kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ক্যাম্পাস টিপস

হ্যাকড হয়ে যাক পড়াশোনা

ইংরেজিতে স্টাডি হ্যাক—মানে পড়াশোনার কঠিন কাজ সহজ করার টিপস। এই কৌশল জানা থাকলে পড়াশোনাকে আর মোটেও কাঠখোট্টা মনে হবে না। বরং পড়াটা হয়ে যাবে এক ধরনের খেলা। বাজফিড ডটকম ঘেঁটে এমন কিছু টিপস জানাচ্ছেন ঈশিকা নাজনীন

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



হ্যাকড হয়ে যাক পড়াশোনা

অন্য রকম ঘ্রাণ

পড়ার সঙ্গে সম্পর্ক আছে স্মৃতির। আর স্মৃতির সঙ্গে ঘ্রাণের।

পরীক্ষার আগে যদি নতুন কিছু পড়তে হয়, তাহলে আশপাশে নতুন কোনো পারফিউম স্প্রে করে নাও। তোমার নাক নতুন একটা ঘ্রাণের সঙ্গে পরিচিত হবে, একই সময়ে মগজে ঢুকছে নতুন পড়া। এতে পড়াটা মনে থাকবে ভালো করে।

 

রেকর্ড করা পড়া

রেকর্ড করা লেকচার যদি দ্রুত শুনে শেষ করতে হয়, তাহলে দ্বিগুণ গতিতে শুনতে পারো। এতে লেকচার বোঝা যাবে ঠিকই, তবে সময় লাগবে অর্ধেক। আবার একই সঙ্গে রেকর্ড করা লেকচার শোনার সময় ব্যাকগ্রাউন্ডে হালকা ভলিউমে ইনস্ট্রুমেন্টাল মিউজিক ছেড়ে রাখতে পারো। মনে রাখার দুইতরফা পদ্ধতি হিসেবে কাজ করবে এটা।

 

ব্লক করো ফেসবুক

ইদানীং পড়ার মনোযোগ নষ্ট করতে ফেসবুক বা হোয়াটসঅ্যাপের জুড়ি নেই। তাই একটি ব্লক সফটওয়্যার ব্যবহার করে এগুলো মাঝে মাঝে নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে পারো। ফেসবুক বন্ধ রাখলে যদি মনটা উসখুস করে তাহলে মনে মনে ভেবে নাও যে পড়ার সময় এক ঘণ্টা ফেসবুক ব্যবহার করা মানে ফ্রেন্ডলিস্টের অনেকের চেয়ে অনেকখানি পিছিয়ে যাওয়া।

 

অন্যের জন্য নোট

এটাও এক ধরনের মানসিক টিপস। খাতায় নোট নেওয়ার সময় মনে মনে ভাবো যে নোটটি তুমি তোমার প্রিয় কোনো বন্ধুর জন্য তৈরি করছ, নিজের জন্য নয়! পরিবর্তনটা টের পাবেই!

 

রাতে ঘুম

রাত জেগে পড়লে ঠিকই, কিন্তু সকালে আর কিছু মনে নেই। ক্লাসরুমে বা পরীক্ষার হলে চোখ বুজলেই শুধু বালিশ চোখে ভাসছে? এমন অবস্থায় পড়তে না চাইলে দিনভর পড়ার পর রাতে ঘুমাতেই হবে। কারণ ঘুমের মধ্যেই দিনের পড়াগুলো গুছিয়ে  রাখে মস্তিষ্ক।

 


মন্তব্য