kalerkantho

26th march banner

বাইশ বছর পর...

ফজলে এলাহী, রাঙামাটি   

৩০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বাইশ বছর পর...

বাইশ বছর পর মিলিত হয়েছিল রাঙামাটির বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে ১৯৯৪ সালে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের সংগঠন ‘ব্যাচ-৯৪’। ১৮ মার্চ ‘আজও বুকের ভেতর উচ্ছল, আমাদের সোনালি কৈশোর’ স্লোগানে আয়োজন করা অনুষ্ঠানের ভেন্যু ছিল রাঙামাটির পলওয়েল ন্যাচার পার্কের লাভ পয়েন্ট। বর্ণিল নানা আয়োজনে বাদ পড়েনি পরিবারের সদস্যরাও।

হারানো বন্ধু হাসান এবং আরেক বন্ধুপত্নী মুন্নীর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় প্রথম দিনের আয়োজন। এরপর সম্মিলিত কণ্ঠে বন্ধুরা সবাই মিলে গায় প্রায় সাত মিনিটের থিম সং। এরপর একে একে পরিচিতিপর্ব, স্মৃতিচারণা আর সন্তানদের পরিবেশনা। মধ্যহ্নভোজনের পর পরিবারের সদস্যদের হাতে তুলে দেওয়া হয় উপহারসামগ্রী।

বিকেলে পাহাড়ের ব্যান্ডদল ‘সাইক্লোন’-এর মুগ্ধ পরিবেশনা, মুহুর্মুহু আতশবাজির সঙ্গে বন্ধুদের ছন্দহীন নৃত্য যেন ফিরিয়ে নিয়ে যায় পুরনো দিনগুলোতে। গানের ফাঁকে চলে র‌্যাফল ড্র।

অনেক বন্ধুর সঙ্গে দেখা ঠিক বাইশ বছর পর, কোনো কোনো বন্ধু অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দেশের বাইরে থেকে হাজির। কোনো কোনো বন্ধুর সঙ্গে একই শহরে থেকেও না দেখার বেদনা কিংবা হাজারো অভিমান মুহূর্তেই বিলীন। যেন স্কুল আর কলেজজীবনের স্মৃতি আঁকড়ে থাকতে চাইছে একেকজন। কী এক অদ্ভুত মোহ জাগানিয়া টান সবার মাঝেই।

সকাল ৯টায় শুরু হওয়া অনুষ্ঠান চলে রাত ১২টা অবধি। মধ্যরাতে অনুষ্ঠান শেষ করে পরদিন সকালে সবাই হাজির প্রিয় কলেজ ক্যাম্পাসে। কলেজের বর্তমান শিক্ষার্থীরা স্বাগত জানায় বড় ভাইদের। কলেজের বিখ্যাত গোল চত্বরে বক্তৃতাপর্বে অংশ নেন পুরনো ছাত্রনেতারা! ফটোসেশন শেষে বন্ধুরা যখন একে একে বিদায় নিচ্ছে, তখন সবার চোখেই জল, দুই দিনের উচ্ছ্বাস যেন মুহূর্তেই বিলীন। শেষে নিজেদেরই সিদ্ধান্ত, এখন থেকে প্রতিবছরই নিয়মিত আয়োজিত হবে এই মিলনমেলার। ভালোবাসা আর বন্ধুতা বুঝি এমনই!


মন্তব্য