kalerkantho


রোহিঙ্গা নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা জানালেন আমালের পরিচালক

বাকৃবি প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:২২



রোহিঙ্গা নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা জানালেন আমালের পরিচালক

ছবি: কালের কণ্ঠ

ঘুম থকে ওঠার পর আর ঘুমাতে যাওয়ার আগে এখন সবচেয়ে বেশি যে শব্দটা শুনি তা হলো ‘রোহিঙ্গা’। কারণ চোখের সামনে ভেসে ওঠে কিছু মানুষ খাবার পানি ও খাদ্য ছাড়া মৃত্যুর প্রহর গুণছে। রোহিঙ্গারাই হচ্ছেন বর্তমান পৃথিবীর সবচয়ে নিপীড়িত জনগোষ্ঠীগুলোর একটি। বাংলাদেশে অবস্থানরত এ জনগোষ্ঠীকে নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা জানালেন ‘আমাল’-এর পরিচালক ইশরাত করিম ইভ। সিঙ্গাপুরের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে (ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অফ সিঙ্গাপুর) একটি অনলাইন লেকচারে তিনি এ অভিজ্ঞতা জানান। প্রায় ঘন্টাব্যাপী তিনি রোহিঙ্গাদের বিষয়ে কথা বলেন।  

ইশরাত করিম ইভ বলেন, রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসার পর থেকেই তাঁর প্রতিষ্ঠান তাঁদের পাশে থেকে কাজ করতে শুরু করেন। রোহিঙ্গাদের প্রতি যা করছে মিয়ানমার সরকার, তা সমগ্র মানবতার বিরুদ্ধেই অপরাধ। এক হাজার বছরের বেশি সময় ধরে আরাকানে বিকশিত হতে থাকা রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব সুবিধা না দেয়া, জোরপূর্বক শ্রমে নিয়োগ করা, বিচারবর্হিভূতভাবে গ্রেপ্তার করা, মালিকানাস্বত্ব, সার্বজনীন শিক্ষা, চিকিৎসা, উপযোগ সেবা ও মৌলিক মানবাধিকার হতে বঞ্চিত করার মাধ্যমে নিমর্মতার শেষ সীমানাটুকু অতিক্রম করেছে মিয়ানমার সরকার। 

ইভ বলেন, আমরা রোহিঙ্গাদের জন্য জন্য আর্থিক সহযোগিতা, বাড়িঘর নির্মাণ, নলকূপ স্থাপন, স্বাস্থ্যসেবা, শিশুদের শিক্ষার ব্যবস্থা, খাবার বিতরণসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছি। তিনি আরো বলেন, দিনের পর দিন খেয়ে না খেয়ে তিনি ও তাঁর সংগঠনের কর্মীরা তাদের জন্য কাজ করেছেন। বর্তমানেও তাঁদের কাজ (প্রজেক্ট) চলমান রয়েছে। 

অনলাইন লেকচারে কি বললেন, এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের দুর্দশা-কষ্টের কথা বলেছি, বাংলাদেশ সরকারের পাশে থাকার কথা বলেছি। রোহিঙ্গাদের কিভাবে এ থেকে উত্তরণ করা যায় তা তাদের সঙ্গে শেয়ার করেছি। বিশ্ব দরবারে এ বার্তাগুলো রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে কাজ করবে এটাই প্রত্যাশা তার। 



মন্তব্য