kalerkantho

‘রাজস্ব আদায়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিতে ব্যবস্থা হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ১১:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘রাজস্ব আদায়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিতে ব্যবস্থা হবে’

আগামী অর্থবছরের বাজেট হবে গত ১০ বছরের মধ্যে সেরা বাজেট। এ বাজেটে নেওয়া পদক্ষেপ বাস্তবায়নে সাধারণ মানুষ স্বস্তিতে থাকবে। রাজস্ব আদায়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে। অর্থপাচার রোধে কঠোরতা থাকবে। আগামী বাজেট নিয়ে কারো কোনো অভিযোগ থাকবে না।

গতকাল সোমবার রাজধানীতে কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ আয়োজিত ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে আয়কর ও মূসকের গুরুত্ব’ শীর্ষক সেমিনারে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া এসব কথা বলেন। এতে আরো বক্তব্য দেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটির চেয়ারম্যান চৌধুরী নাসির আল সারাফাত। সঞ্চালনা করেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক মো. মামুন আল বসির।

তিনি বলেন, ‘সরকার আগামী অর্থবছরে শিল্পায়নে জোর দিয়েছে। যেসব খাতে রাজস্ব ছাড় আছে তা বজায় থাকবে। দেশের রপ্তানি আয়ের প্রায় ৮৫ শতাংশ আসে তৈরি পোশাক খাত থেকে। এ খাত থেকে সরকার তেমন কোনো রাজস্ব আদায় করে না। এ খাতে নতুন উদ্যোক্তা তৈরিতে সরকারের সুবিধাগুলো চলমান থাকবে।’

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘একসময়ে এ দেশে বাজেট প্রণয়নের আগেই বিদেশি ঋণ, আর্থিক অনুদানের খোঁজ করা হতো। এখন মোট বাজেট খরচের প্রায় ৮০ শতাংশ দেশ থেকে সংগ্রহ করা হয়। নিজেদের অর্থে পদ্মা সেতুর মতো বড় প্রকল্প বানাতে আমরা সক্ষম।’

মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘এ দেশে অনেক মানুষ। অনেকের আয় বেশি, কিন্তু তারা কর দেয় না। গতকাল পর্যন্ত ইটিআইএন নিয়েছে মাত্র ৪০ লাখ মানুষ। এ সংখ্যা আরো বেশি হওয়া উচিত। আগামী বাজেটে এ বিষয়ে নজর দেওয়া হচ্ছে। ভ্যাটের অবস্থা আরো খারাপ। সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ভ্যাট নিয়েও অনেকে সরকারি কোষাগারে জমা দেয় না। এ প্রক্রিয়া থেকে বের হয়ে আসার চেষ্টা করা হচ্ছে।’

মন্তব্য