kalerkantho


আগামীকাল দেশব্যাপী আয়কর মেলা উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:০৯



আগামীকাল দেশব্যাপী আয়কর মেলা উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী

ছবি অনলাইন

আগামীকাল মঙ্গলবার ৩ নভেম্বর সকাল ৯টায় রাজধানীর বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাবে ‘আয়কর মেলা ২০১৮’ উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। সাত দিনের এ মেলায় করদাতারা চলতি করবর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। মেলায় করদাতারা হাতে লিখে রিটার্ন দাখিলের পাশাপাশি অনলাইনেও রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। এ ছাড়া ই-পেমেন্টে কর পরিশোধ করতে পারবেন। মুক্তিযোদ্ধা, মহিলা, প্রতিবন্ধী ও প্রবীণ করদাতাদের জন্য মেলায় পৃথক বুথ থাকবে। মেলায় স্থাপিত সোনালী ও জনতা ব্যাংকের বুথে করদাতারা আয়কর জমা দিতে পারবেন। মেলায় অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের অধীন শুল্ক, ভ্যাট, সঞ্চয় অধিদপ্তর, বিসিএস (কর) একাডেমি, কাস্টমস একাডেমি এবং অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের পৃথক বুথ থাকবে। এখান থেকে মেলায় আগত করদাতারা যেকোনো তথ্য জানতে পারবেন।

দেশে ইটিআইএনধারীর সংখ্যা আরো বাড়ানো হবে। এ ব্যাপারে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সবচেয়ে মনোযোগী রয়েছে। একই সঙ্গে রিটার্ন দাখিলের সংখ্যাও বাড়াতে বিভিন্ন কৌশল নেওয়া হচ্ছে। এ জন্য শহরের বাইরে রাজস্ব কর্মকর্তাদের বদলি ও নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে কোনো সুপারিশ বা তদবির গ্রহণ করা হচ্ছে না।

গতকাল রবিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআরের মূল দপ্তরের সম্মেলনকক্ষে আয়কর মেলা ২০১৮ উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া এসব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে চেয়ারম্যান দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সমালোচনা করে বলেন, দুদকে দুর্নীতির খাতের কোনো অভাব নেই। আয়কর বিভাগের দুর্নীতি নিয়ে দুদকের করা রিপোর্ট বিষয়ে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমি দুদকের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করি। দুদকের এমন দুর্নীতির অনেক ক্ষেত্র আছে। তিনি বলেন, দুদক যদি শুধু কর ও কাস্টমস অফিসকে টার্গেট করে কাজ করে ও এখানে অফিস স্থাপন করার চিন্তা করে তাহলে আমি বলব এটা দুদকের পক্ষে কোনোদিনই সম্ভব হবে না। কারণ আয়কর ও কাস্টমস আইনে না চাইলে এখানে কারো পক্ষে অফিস স্থাপন করা সম্ভব নয়।

প্রসঙ্গত, গত ৮ নভেম্বর আয়কর বিভাগের দুর্নীতি প্রতিরোধে করণীয় বিষয়ে ২৩ দফা সুনির্দিষ্ট সুপারিশের একটি পত্র মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব বরাবর পাঠিয়েছে দুদক। ওই পত্রে আয়কর বিভাগে দুর্নীতির কারণ হিসেবে ১৩ উৎস দেখানো হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, রাজস্ব আয় বাড়ানোর পাশাপাশি করনেট বাড়াতে কাজ করছে এনবিআর। এ জন্য বিভাগীয়, জেলা ও উপজেলাসহ সব কর কার্যালয়ের জন্য টার্গেট নির্ধারণ করতে বলা হয়েছে।

এসব কার্যালয়কে নতুন করদাতা চিহ্নিত করতে টার্গেট দেওয়া হয়েছে জানিয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে যেসব ব্যবসায়ী কর দেন না তাঁদের বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে খুঁজে বের করতে বলা হয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে যেসব জনপ্রতিনিধি এরই মধ্যে নির্বাচিত হয়েছেন তাঁরা আয়কর রিটার্ন দাখিল করে কি না তা খতিয়ে দেখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া সিটি করপোরেশনগুলোর সঙ্গে করদাতা বাড়াতে আলাপ-আলোচনা চলছে। আসন্ন সংসদ নির্বাচনে প্রার্থীদের আয়কর পরিশোধের সনদপত্র নেওয়া লাগবে কি না তা জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের ঘোষণা কঠোর নয়। তবে কোনো করখেলাপি যাতে প্রার্থী হতে না পারেন সে বিষয়ে এনবিআর চেষ্টা করবে। সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে আইন করা হবে।

খুলনায় আয়কর মেলা : আগামী মঙ্গলবার খুলনায় সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা শুরু হচ্ছে। গতকাল রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে খুলনা কর অঞ্চলের কর কমিশনার মো. জাহাঙ্গীর আলম জানান, নগরীর বয়রা কর ভবনে সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলা শুরু হচ্ছে। এ ছাড়া বিভাগের যশোর, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা ও মেহেরপুরেও মেলা অনুষ্ঠিত হবে। করদাতাদের করভীতি বন্ধ, সহজ ও নিরাপদে রিটার্ন দাখিলসহ বিভিন্ন বিষয়ে কর প্রদানে উৎসাহিত করতে প্রতিবছরের মতো এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে।



মন্তব্য