kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এলইডি টিভির বাজারে ওয়ালটনের নতুন চমক 'বুম বক্স'

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:৩০



এলইডি টিভির বাজারে ওয়ালটনের নতুন চমক  'বুম বক্স'

টেলিভিশনের বাজারে নতুন ও ব্যতিক্রমী মডেলের ২০ ইঞ্চি এলইডি (লাইট এ্যামিটিং ডায়োড) টিভি এনে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে ওয়ালটন। স্থানীয় বাজারে ওয়ালটনই সর্বপ্রথম নিয়ে এসেছে এই মডেলের টিভি।

এর অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো দুই পাশে শক্তিশালী সাউন্ড বক্স। যে কারণে গ্রাহকের কাছে এটি ওয়ালটন 'বুম বক্স' নামে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছে।

জানা গেছে, করবানি ঈদ উপলক্ষ্যে গত আগস্ট মাসে ওয়ালটন বাজারে ছেড়েছিল বেশ কয়েকটি নতুন মডেলের এলইডি টিভি। এর মধ্যে রয়েছে  ১৯, ২৪, ২৮ ও ৩২ ইঞ্চির সিলভার ভার্সন এলইডি টিভি। সেই সঙ্গে স্থানীয়ভাবে প্রথমবারের মতো ২০ ইঞ্চির এলইডি টেলিভিশন নিয়ে এসেছে ওয়ালটন। যেটি বাজারে বিক্রি হচ্ছে মাত্র ১২,৫০০ টাকায়। সাশ্রয়ী মূল্যে, উচ্চ গুণগতমান, এইচডি (হাই ডেফিনেশন) ডিসপ্লে, দুই পাশে ডলভী সাউন্ড বক্স, শর্ত সাপেক্ষে ছয় মাসের রিপ্লেসমেন্ট গ্যারান্টি, প্যানেল ও আনুষঙ্গিক যন্ত্রাংশে দুই বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি থাকায় ক্রেতাদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে ওয়ালটনের এই নতুন টিভি।

রাজধানীতে ইলেকট্রনিক্স পণ্যের সর্ববৃহৎ পাইকারি ও খুচরা বাজার স্টেডিয়াম মার্কেটে আবাবিল ইলেকট্রনিক্স এর ম্যানেজার মোঃ নজরুল ইসলাম বলেন, দেশিয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের নতুন ২০ ইঞ্চি এলইডি টিভি ব্যাপক বিক্রি হচ্ছে। বিশেষ করে, দুই পাশে দুটি করে মোট চারটি ডলভি সাউন্ড বক্স থাকায় সকলের নজর কেড়েছে এই টিভিটি। উচ্চমানের সাউন্ড সিস্টেম থাকায় বিক্রেতারা এর নাম দিয়েছেন ওয়ালটন 'বুম বক্স'।

কর্তৃপক্ষ জানায়, চলতি বছরে বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম টেলিভিশন কেনার ক্ষেত্রে গ্রাহকদের রুচিতে ব্যাপক পরিবর্তন এসেছে। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে গ্রাহকরা এখন সিআরটি টিভি ছেড়ে এলইডি টিভির প্রতি বেশি ঝুঁকছে। এতোদিন বাজারে ২০ ইঞ্চির কোন এলইডি টেলিভিশন ছিল না। কিন্তু অনেকেই বিশেষ করে গ্রামাঞ্চলের গ্রাহকরা ওয়ালটন শোরুমগুলোতে এসে এই সাইজের টেলিভিশনের খোঁজ করতেন। গ্রাহক চাহিদার কথা পরিবেশকদের মাধ্যমে জানতে পারে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ। আর সেজন্যই ওয়ালটনের টেলিভিশন উন্নয়ন ও গবেষণা বিভাগের প্রকৌশলীরা নিয়ে এসেছেন বৈচিত্র্যময় ডিজাইন ও শক্তিশালী সাউন্ড সিস্টেমের ২০ ইঞ্চি এলইডি টিভি।

এ প্রসঙ্গে ওয়ালটনের সহকারি পরিচালক ও 'বুম বক্স' এর মডেল ম্যানেজার প্রকৌশলী ফখরুল ইসলাম খান বলেন, অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে নিজস্ব তত্বাবধানে কঠোর মান নিয়ন্ত্রণে তৈরি হচ্ছে বুম বক্স টিভি। যাতে ব্যবহার করা হচ্ছে আইপিএস (ইন প্ল্যান সুইচিং), এডিএস (এ্যাডভান্স সুপার ডাইমেনশন সুইচ) এবং এইচএডিএস (হাই এ্যাডভান্স সুপার ডাইমেনশন সুইচ) প্রযুক্তির প্যানেল। এর ফলে দর্শকরা ওয়াইড ভিউয়িং এ্যাঙ্গেল এবং হাই কন্ট্রাস্ট এর পিকচার দেখতে পাচ্ছেন। এর মাদারবোর্ডে সংযোজন করা হয়েছে পাওয়ার সার্জ প্রোটেকশন এবং ইনডিউচড লাইটেনিং প্রোটেকশন সার্কিট, যা বজ্রপাত ও হাই ভোল্টেজজনিত ক্ষতির হাত থেকে টিভিকে রক্ষা করবে।

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ও বিপণন বিভাগের প্রধান এমদাদুল হক সরকার বলেন, ব্যাপক চাহিদার কারণে কারখানায় 'বুম বক্স' মডেলের উৎপাদন আরো বাড়ানো হয়েছে। ভবিষ্যতেও এলইডি টিভির বাজারে এ রকম ব্যতিক্রমী ডিজাইনের টেলিভিশন সরবরাহের ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন কারখানায় আইএসও ক্লাস সেভেন ডাস্ট ফ্রি ক্লিন রুম এর সর্বোচ্চ সতর্কতা ও গুণগতমান রক্ষা করে তৈরি করা হচ্ছে এলইডি টিভি প্যানেল। ছবি ও শব্দের উচ্চমান নিশ্চিতকরণে ডাইনামিক নয়েজ রিডাকশন, সর্বোচ্চ ফ্রেম রেট, ডলবি ডিজিটাল সাউন্ড সিস্টেম সমৃদ্ধ নিজস্ব ডিজাইনের উন্নত প্রযুক্তির মাদারবোর্ড ব্যবহার করা হচ্ছে।

গুণগত উচ্চমানের পাশাপাশি দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিসিং নেটওয়ার্ক থাকায় ক্রেতাদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে এখন ওয়ালটন। বাংলাদেশে একমাত্র ওয়ালটনেরই রয়েছে আইএসও সনদ প্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। গ্রাহক সেবা দিতে সারা দেশে কাজ করছেন প্রকৌশলী ও টেকনিশিয়ানসহ ২ হাজারেরও বেশি দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মী।

এ ছাড়াও দেশিয় এই কম্পানিটির রয়েছে শক্তিশালী গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগ। যেখানে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে থিম ডেভলপমেন্ট, প্রোডাক্ট ডিজাইন, মোল্ড ডিজাইন এবং মোল্ড তৈরির কাজ করা হচ্ছে। যার ফলে ক্রেতাদের চাহিদা ও আগ্রহ অনুযায়ী নিত্য নতুন প্রযুক্তি, বিভিন্ন কালার ও ডিজাইনের ওয়ালটন এলইডি টিভি বাজারে সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে।


মন্তব্য