kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রাজস্ব কার্যক্রম সম্প্রসারণে এনবিআর-এর কৌশলপত্র প্রণয়ন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:২২



রাজস্ব কার্যক্রম সম্প্রসারণে এনবিআর-এর কৌশলপত্র প্রণয়ন

কর আয়যোগ্য সব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে করের আওতায় আনতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) রাজস্ব কার্যক্রম সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে। এ লক্ষে একটি কৌশলপত্র প্রনয়ণ করা হচ্ছে।

পরবর্তীতে এই কৌশলপত্রের আলোকে রাজস্ব কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হবে।
আগামী সপ্তাহের মধ্যে এনবিআরের আয়কর, কাস্টমস্ ও ভ্যাট এই তিন বিভাগের সদস্যরা যৌথভাবে কৌশলপত্র চূড়ান্ত করবে।
সোমবার এনবিআরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মূলত ৫টি নির্দেশনাকে সামনে রেখে এই কৌশলপত্র প্রনয়ন করা হচ্ছে। এগুলো হলো-আয়কর, শুল্ক ও ভ্যাট বিভাগের মাঠ পর্যায়ের সকল দপ্তরসমূহের সাথে সমন্বয় রেখে মাঠপর্যায়ে কর রাজস্বের সম্ভাবনা ও চ্যালেঞ্জ সম্পর্কে প্রতিবেদন তৈরি। মাঠ পর্যায়ের সকল রাজস্ব কর্মকর্তাদের পারফরমেন্সের মূল্যায়ন ও মাসিক ভিত্তিতে প্রতিবেদন প্রেরণ। পাশাপাশি মাঠ পর্যায়ে রাজস্ব ফাঁকি দেয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর একটি তালিকা প্রণয়ন ও এগুলোকে রাজস্ব-বান্ধব প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের জন্য কৌশল প্রণয়ন।
এছাড়া আইসিটি ব্যবহারের মাধ্যমে আয়কর, শুল্ক ও ভ্যাট কার্যক্রমকে গতিশীল করা। সে লক্ষ্যে ফেসবুক নিয়মিতভাবে সমৃদ্ধ (আপডেট) করা। বিশেষকরে ভ্যাট অনলাইন প্রকল্প, ট্যাক্স অনলাইন প্রকল্প এবং অ্যাসাইকুডা ওর্য়াল্ড সিস্টেম কার্যক্রমকে সফল করতে সর্বোতভাবে প্রয়াস চালানো।
এ সকল বিষয় নিয়ে আয়কর, শুল্ক ও ভ্যাট বিভাগের মহাপরিচালক এবং কমিশনারদের মধ্যে নিয়মিত মাসিক পর্যালোচনা সভার আয়োজন করা। এতে এনবিআরের চেয়ারম্যান ও সংশ্লিষ্ট সদস্যরা উপস্থিত থাকবেন।  
এ বিষয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান মোঃ নজিবুর রহমান বলেন, ‘চলতি অর্থ বছরের বাজেটে আয়কর, শুল্ক ও ভ্যাট বিভাগের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে পরিচালিত কার্যক্রম নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণপূর্বক রাজস্ব আদায়ের গতিশীলতা বজায় রাখা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে যে সব বাধা বা প্রতিবন্ধকতা আসবে তা নিরসনে সর্বোচ্চ চেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। ’
রাজস্ব সংগ্রহের কাজে অধিকতর সাফল্য অর্জনের ক্ষেত্রে সরাসরি তাঁর পরামর্শ গ্রহণের জন্য তিনি সকল পর্যায়ের রাজস্ব কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান।


মন্তব্য