kalerkantho

26th march banner

টেলিভিশন বাজারে টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট বিশ্বকাপের হাওয়া

ওয়ালটন এলইডি টিভিতে ২ মাসে প্রবৃদ্ধি ৬২ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ মার্চ, ২০১৬ ২২:৪৬



টেলিভিশন বাজারে টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট বিশ্বকাপের হাওয়া

ক‘দিন আগে শেষ হলো এশিয়া কাপ। চলছে টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ। এরই মধ্যে বিশ্বকাপের চুড়ান্ত পর্বে উঠেছে বাংলাদেশ। বিশ্বের সেরা দলগুলোর সঙ্গে টাইগারদের রোমাঞ্চকর ক্রিকেট খেলা দেখার অপেক্ষায় বাংলাদেশের মানুষ। ক্রিকেটের এই ডামাডোলে চলছে টেলিভিশন বিক্রির হিড়িক। এর মধ্যে দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটন এলইডি টিভি বিক্রিতে গত ২ মাসে প্রায় ৬২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে ১৩ মার্চ দাপটের সঙ্গে ওমানকে হারিয়ে মূল পর্বে উঠে গেছে বাংলাদেশ। প্রতিবেশী দেশ ভারতের মাটিতে এখন অস্ট্রেলিয়া, ভারত, পাকিস্তানসহ সেরা দলগুলোর বিপক্ষে লড়বে বাংলাদেশ। দল বেঁধে কিম্বা ঘরে ঘরে ক্রিকেটের মহোৎসবে সবাই শামিল হচ্ছেন পর্দার সামনে। এই ক্রিকেট উৎসবে যোগ দিতে ক্রেতারা ব্যাপকহারে কিনছেন টেলিভিশন সেট। বিশেষ করে প্রায় সব শ্রেণির ক্রেতারাই এখন ঝুঁকছেন এলইডি টিভি কেনার দিকে।

বিক্রেতাদের হিসেব মতে, ওয়ালটন ব্র্যান্ডের এলইডি টিভির চাহিদা ও বিক্রি বেড়েছে ব্যাপকহারে। ওয়ালটন সূত্র জানায়, গত বছরের শেষ দুই মাসের (নভেম্বর ও ডিসেম্বর) তুলনায় চলতি বছরের প্রথম দুই মাসে (জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি) তাদের এলইডি টিভির বিক্রি বেড়েছে প্রায় ৬২ শতাংশ। তাদের দাবি, বাজারে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে ওয়ালটন টিভি। এর কারণ হিসেবে বলছেন, আমদানিকৃত টেলিভিশনের তুলনায় উচ্চমান এবং দামে সাশ্রয়ী হওয়ায় ওয়ালটন এলইডি টিভি ক্রেতা পছন্দের শীর্ষে ।

রাজধানীর ইলেকট্রনিক্স পণ্যের সবচেয়ে বড় বাজার স্টেডিয়াম মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, খুব স্বল্প পরিসরে বিক্রি হচ্ছে পুরানো আমলের সিআরটি টিভি। এখন স্বল্প থেকে শুরু করে উচ্চ আয়ের ক্রেতারা সকলেই কিনছেন এলইডি টিভি। ক্রেতারা ভিড় করছেন ওয়ালটন, মাইওয়ান, সনি, র‌্যাংগস, প্যানাসনিকসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ডের টেলিভিশন শোরুমগুলোতে। তবে, ক্রেতাদের বেশি ভিড় দেখা গিয়েছে দেশীয় ব্র্যান্ডের শোরুমগুলোতে। এর মধ্যে বিক্রির শীর্ষে রয়েছে ওয়ালটন।

জানা গেছে, গ্রাহকরা মাত্র ১১,৯০০ টাকায় পাচ্ছেন ওয়ালটন ব্র্যান্ডের উচ্চ প্রযুক্তি সম্পন্ন ১৯ ইঞ্চি এলইডি টিভি। ২৪ ইঞ্চি এলইডি টিভি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ১৪,৯০০ টাকায়। ২৮ ও ৩২ ইঞ্চির এলইডি টিভি কিনতে পারছেন যথাক্রমে ১৯,৯০০ ও ২২,৯০০ টাকায়। যদিও তরুণদের আগ্রহ ওয়ালটনের এন্ড্রয়েড স্মার্ট প্রযুক্তির ৪৩, ৪৯ ও ৫৫ ইঞ্চির তিনটি নতুন এলইডি টিভির দিকে। নতুন ও আধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি এই টিভিতে রয়েছে ইউএসবি পোর্ট, ভিজিএ পোর্ট, এইচডিএমআই, ওয়াইপিবিআর, এভি, ইন্টারনেট ব্রাউজিং ও ডাউনলোড, ওয়াইফাই, ব্রডব্যান্ড কানেকশন, ইন্টারনেটে গেমস, ভিডিও এবং ছবি দেখাসহ আরো অনেক সুবিধা। পাওয়া যাচ্ছে ওয়ালটনের ৩২ ইঞ্চির ইন্টারনেট/স্মার্ট টিভি; এই টিভিগুলো আন্তর্জাতিক মানের, মূল্যও সাশ্রয়ী।

 
স্টেডিয়াম মার্কেটে জেনারেল ইলেকট্রনিক্স এর সত্ত্বাধিকারী মো. আবুল হোসেন বলেন, বর্তমানে ক্রিকেট বাংলাদেশসহ এ অঞ্চলের মানুষের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলায় পরিণত হয়েছে। তাই  স্বাভাবিক কারণেই ক্রিকেটের বড় কোনো আসরকে সামনে রেখে টেলিভিশন সেটের চাহিদা অনেক বেড়ে যায়। এবারও টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট বিশ্বকাপ ও সদ্য সমাপ্ত এশিয়া কাপ উপলক্ষ্যে চলতি বছরের শুরুতেই টেলিভিশন বিক্রি বেড়েছে ব্যাপকহারে। তিনি জানান, বিদেশী ব্র্যান্ডের তুলনায় দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের এলইডি টেলিভিশনের বিক্রিই বেশি হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, ওয়ালটনের কারখানায় এখন যেসব এলইডি টিভি তৈরি হচ্ছে এগুলোর মান অত্যন্ত উন্নত। আবার দামেও সাশ্রয়ী। ফলে অন্য ব্র্যান্ডগুলো খুব একটা সুবিধা করতে পারছে না।

আবাবিল ইলেকট্রনিক্স এর বিক্রয় ব্যবস্থাপক মো. রাজু আহমেদ জানান, এ বছর ব্যাপকহারে বিক্রি হচ্ছে এলইডি টিভি। আগে সাধারণত উচ্চ আয়ের লোকেরা এলইডি কিনতো। কিন্তু, বর্তমানে সকল শ্রেণির ক্রেতারাই কিনছেন। তিনি শুনেছেন, নিজস্ব কারখানায় ওয়ালটন বর্তমানে যেসব এলইডি টিভি করছে সেগুলো খুবই উচ্চমানের। আর দেশে তৈরি বলে দামও হাতের নাগালে চলে এসেছে।

টি- টুয়েন্টি ক্রিকেট বিশ্বকাপ উপলক্ষ্যে রাজধানীর মুগদাপাড়া থেকে আশিকুর রহমান স্টেডিয়াম মার্কেটে এসেছেন ৩২ ইঞ্চির একটি এলইডি টিভি কিনতে। তিনি বলেন, আমি এলইডি কেনার জন্য প্রথমে বিদেশি ব্র্যান্ডের শোরুমগুলোতে যাই। কিন্তু দেখলাম সেগুলোর দাম ক্রয় ক্ষমতার বাইরে। আবাবিল ইলেকট্রনিক্সে এসে দেখলাম দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের এলইডি টিভির দাম সাধ্যের মধ্যে। আর বিক্রেতাদের কাছ থেকে জানতে পারলাম মানের দিক থেকেও ওয়ালটনের টিভি অনেক ভালো। তাই ২২,৯০০ টাকায় ওয়ালটনের একটি ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি কিনলাম।

বিক্রেতারা জানান, আরো একটি কারণে ক্রেতারা ওয়ালটন টিভি কিনছেন। কি সেটা? বলছেন, ইলেকট্রনিক্স পণ্যে বিক্রয়োত্তর সেবা একটি বড় বিষয়। আর সেখানেই অন্য ব্র্যান্ডগুলো পিছিয়ে। বিদেশি ব্র্যান্ডগুলো এক্ষেত্রে ক্রেতাদের আস্থার জায়গা হারাচ্ছে। কারণ তারা শুধু পণ্য বিক্রি নিয়ে ভাবে। পরবর্তী সেবার ক্ষেত্রে উদাসীন।


মন্তব্য