kalerkantho

প্রিয়জনকে কী উপহার দেবেন ভালোবাসা দিবসে?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ১২:৪৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রিয়জনকে কী উপহার দেবেন ভালোবাসা দিবসে?

২৬৯ সালে ইতালির রোম নগরীতে সেন্ট ভ্যালেইটাইন'স নামে একজন খৃষ্টান পাদ্রী ও চিকিৎসক ছিলেন। ধর্ম প্রচার-অভিযোগে তৎকালীন রোমান সম্রাট দ্বিতীয় ক্রাডিয়াস তাঁকে বন্দী করেন। কারণ তখন রোমান সাম্রাজ্যে খৃষ্টান ধর্ম প্রচার নিষিদ্ধ ছিল। বন্দী অবস্থায় তিনি জনৈক কারারক্ষীর দৃষ্টহীন মেয়েকে চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ করে তোলেন। এতে সেন্ট ভ্যালেইটাইনের জনপ্রিয়তার প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে রাজা তাকে মৃত্যুদণ্ড দেন। সেই দিন ১৪ই ফেব্রুয়ারি ছিল। অতঃপর ৪৯৬ সালে পোপ সেন্ট জেলাসিউও ১ম জুলিয়াস ভ্যালেইটাইন'স স্মরণে ১৪ই ফেব্রুয়ারিকে ভ্যালেন্টাইন' দিবস ঘোষণা করেন।

 খৃস্টীয় এই ভ্যালেন্টাইন দিবসের চেতনা বিনষ্ট হওয়ায় ১৭৭৬ সালে ফ্রান্স সরকার কর্তৃক ভ্যালেইটাইন উৎসব নিষিদ্ধ করা হয়। ইংল্যান্ডে ক্ষমতাসীন পিউরিটানরাও একসময় প্রশাসনিকভাবে এ দিবস উদযাপন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। এছাড়া অস্ট্রিয়া, হাঙ্গেরি ও জার্মানিতে বিভিন্ন সময়ে এ দিবস প্রত্যাখ্যাত হয়। সম্প্রতি পাকিস্তানেও ২০১৭ সালে ইসলামবিরোধী হওয়ায় ভ্যালেন্টাইন উৎসব নিষিদ্ধ করে সেদেশের আদালত। কিন্তু এসব বাধা সত্ত্বেও সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে ভালোবাসা। 

এই ২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারিতেও ঘৃণাকে পাশ কাটিয়ে বিশ্বব্যাপী পালিত হচ্ছে ভালোবাসা। যার ঢেউ আছড়ে পড়েছে বাংলাদেশেও। যদিও এই ভালোবাসা দিবসটি শুধুমাত্র প্রেমিক যুগল বা দম্পতিদের জন্য নয়, সবার জন্য সব ধরণের সম্পর্কের জন্য, তারপরও প্রেমিক যুগল ও দম্পতিরাই বেশ উৎসাহের সাথে পালন করে থাকেন এই দিনটি। একটু বাড়তি ভালোবাসা প্রকাশ, একটু শপিং, গিফট, ১ টি ফুল বা চকলেট ইত্যাদি পাওয়ার আশায় বসে থাকেন কমবেশি সব মেয়েরাই।

প্রিয়জন অল্প উপহারেও আনন্দিত হয়ে যায়। একটি গোলাপ কিংবা একটি চকলেটেও হৃদয়ে কাঁপন তোলা খুশি আন্দোলিত হয়। এছাড়াও প্রিয়জনকে বই উপহার দিতে পারেন। নিয়মিত জনপ্রিয় বই ও এবারের বইমেলায় আসা নতুন কিছু বই থেকে এক-দু'টি বইও উপহার দিতে পারেন আপনার প্রিয় মানুষটিকে। 

মধ্যাহ্ন

আমি কবি

খোলা চিঠি সুন্দরের কাছে
রাজু ভাই মাইনাস শেলী আপা

দহনকাল
কান্নার আওয়াজ
নীলকণ্ঠী 
শর্মিলা

মন্তব্য