kalerkantho


সেবা প্রকাশনীতে ভূত আর অরণ্য

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৫:৪৫



সেবা প্রকাশনীতে ভূত আর অরণ্য

একুশে বই মেলায় পাবেন সেবা প্রকাশনী (স্টল ৫৯২-৯৩) থেকে বের হওয়া ইশতিয়াক হাসানের দুটি বই। সত্য হরর কাহিনী 'প্রেতজগৎ' লেখা হয়েছে বিদেশি বিভিন্ন বই, পত্র-পত্রিকা আর বই ঘেঁটে। রোমাঞ্চকর আর ভুতুড়ে ঘটনাগুলো পড়ে গায়ের রোম দাঁড়িয়ে যাবে। এদিকে শিকার কাহিনী 'ওয়ান ম্যান অ্যাণ্ড আ থাউজ্যাণ্ড টাইগার্‌স্‌' এর মূল লেখক ভারতের বিখ্যাত শিকারি কর্নেল কেশরী সিং। রূপান্তর করেছেন ইশতিয়াক হাসান। নিচে বই দুটোর সারসংক্ষেপ দেওয়া হলো।

প্রেতজগৎ 
হঠাৎ ফাঁক হয়ে গেল মেঝেটা। ধীরে ধীরে উঠে আসছে জিনিসটা। অন্তরাত্মা কেঁপে উঠল মেয়েটার। ভয়ংকর একটা মুখ। চারপাশে ছড়িয়ে আছে লম্বা চুল। আর কোলে একটা মৃত শিশু। কী ওটা?

জানালার দিকে তাকালেন মহিলা। আতংকে শিউরে উঠলেন। ওখানে আছে ওটা। কুয়াশার একটা দেয়ালের মত। তাকে অনুসরণ করে চলে এসেছে। এখন কী হবে? বাড়িতে বিশাল সাত ফুটি ঘড়িটা আনার পর থেকেই শুরু হলো গণ্ডগোল। কে যেন হেঁটে বেড়ায় গোড়া বাড়িময়, থপ থপ করে। দরজার সামনে এসে আছড়ে পড়ে। ঘড়িটাই না তো? আইসল্যাণ্ডের এক পাদ্রির বাড়িতে হানা দিচ্ছে ভয়ংকর এক অশরীরী। কিন্তু শুধু তরুণ ম্যাগনাসই কেন দেখতে পায় তাকে?

মেরি সিলেস্টি জাহাজের নাকিকেরা গেল কোথায়? লাইট হাউস থেকে বের হয়ে আসা জিনিসটাই বা কী? লন্ডন শহরে ঘুরে বেড়ানো ওই ছায়ামূর্তিটা কি তবে উড়তে পারে? ‘ওল্ড বুকে’র কফিনটাই বা খালি কেন? এমিলি মরগান হোটেল কিংবা সেণ্ট লুইস গোরস্তান কি ভূতের আড্ডাখানা? এমনি সব প্রশ্নের উত্তর পেতে চাইলেই পড়তে পারেন এই বইটি। তবে সবগুলোর উত্তর পাবেনই এ গ্যারান্টি দিতে পারছি না। কারণ ভুতুড়ে সব ঘটনার কি সবসময় সমাধান থাকে? ও আরেকটা কথা, শরীরের রোম খাড়া করে দেয়া কাহিনীগুলো কিন্তু নিছক গল্প নয়, সত্যি। 

ওয়ান ম্যান অ্যাণ্ড আ থাউজ্যাণ্ড টাইগার্‌স্‌ 
মানুষখেকোটা এতটাই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে যে বাড়ির দরজা ভেঙে পর্যন্ত মানুষ নিয়ে যাচ্ছে। বাধ্য হয়ে নিজেকেই টোপ বানালেন শিকারি। হাতিতে চড়ে শিকারে বেরিয়েছিলেন দুই শিকারি। হঠাৎ সামনে হাজির এক বাঘ। গুলি খেয়েও গর্জন করে হাতির পিঠে চড়ে বসল। এখন কী হবে?

লোকে বলে বাঘের হাতে নিহত মানুষ নাকি তার হত্যাকারী বাঘটাকে মারতে সাহায্য করে শিকারিকে। আসলেই কী? আচ্ছা বলুন তো লাঠি দিয়ে বাড়ি দিয়ে কী বাঘ মারা সম্ভব? কিংবা তলোয়ার দিয়ে? 

ত্রিশ বছরের বেশি ভারতের জঙ্গলে বাঘের পিছনে ছুটেছেন কর্নেল কেশরী সিং। নিজে শিকার করেছেন, আবার শিকারে নিয়ে গিয়েছেন রাজা পঞ্চম জর্জ, লর্ড মাউন্টব্যাটন, লর্ড রিডিংসহ অনেক বিখ্যাত মানুষকে। তাঁর ঝুলিতে তাই জমা আছে বাঘ নিয়ে অসাধারণ সব অভিজ্ঞতা। কোনোটা পড়ে হবেন রোমাঞ্চিত। কোনটা পড়ে আবার ভাববেন এও কী সম্ভব! শুধু বাঘ নয়, বইটিতে আছে পাগলা হাতি আর চিতা বাঘ শিকারেরও চমৎকার সব কাহিনী। 



মন্তব্য