kalerkantho


সেট কারিগর

সেটে স্বপ্ন সাজান শহিদুল

বিজ্ঞাপনের সেট ডিজাইন করেন শহিদুল ইসলাম। এখান থেকে হাত পাকিয়ে চলচ্চিত্রেও সেট সাজিয়েছেন। লিখেছেন ফরহাদ হোসেন

১৩ জানুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সেটে স্বপ্ন সাজান শহিদুল

‘২০০৮ সালের কথা। আর্ট ডিরেক্টর হাসান তারেক ভাই একদিন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ঘুরতে নিয়ে যান। র্যাম্প মডেলিংয়ের জন্য সেট তৈরি হবে। সেটের ডিরেক্টর তারেক ভাই। পৌঁছাতে রাত হয়ে যায়। সারা রাত কাজ হবে। হাসান ভাই বলেন, আজ রাতে সেখানে থাকতে হবে। আমি ভাইয়ের কাজ দেখতে থেকে গেলাম। কাজ শুরু হয় ১১টায়; কিন্তু কখন যে রাত পার হয়ে গেছে টেরই পাইনি। দেখলাম, সবাই মিলে কেমন করে একটা সেট বানিয়ে ফেললেন রাতের মধ্যেই। এই সেট তৈরির কাজ দেখে নিজের মধ্যে আগ্রহ তৈরি হয়।’

সেট ডিজাইনে আসার গল্পটা এভাবেই জানালেন শহিদুল ইসলাম। ডিজাইনের প্রথম সুযোগটাও আসে হাসান তারেকের হাত ধরেই। অমিতাভ রেজা আরএকে সিরামিক বিজ্ঞাপনের শুটিং করেন উত্তরায়। এখানেই শহিদুলের কাজ শুরু হয় প্রপস বয় হিসেবে। বছর দেড়েক কাজ করেন বেশ কয়েকটি প্রোডাকশন হাউসে। এর পর শুরু করেন আর্ট ডিরেকশন। সেট ডিজাইনই এখন তাঁর ধ্যানজ্ঞান। এফডিসিতে যখন তাঁর সঙ্গে কথা হয় তখনো গ্রামীণফোনের একটি বিজ্ঞাপনের সেট ডিজাইনের কাজ করছিলেন।

এখন পর্যন্ত প্রায় ৪০০ বিজ্ঞাপনে সেট ডিজাইন করেছেন শহিদুল। সেট ডিজাইন সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘আমি আর্ট ডিরেকশনে নতুন কিছু করার চেষ্টা করি। কোনো নতুন কাজ শুরুর আগেই মাথায় একটা চিন্তা সব সময় কাজ করে, এই কাজে কিভাবে নতুনত্ব আনা যায়।’ তাঁর সেরা কাজের অভিজ্ঞতা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিজ্ঞাপন। ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেটসহ নানা সেনানিবাসে চমত্কার লোকেশনে সেট করেছেন। বাংলালিংকের শুনতে কি পাও, গ্রামীণফোনের কই গেলা রে, পাঁচ কোটি গ্রাহক, কথা জমিয়ে রাখা বিজ্ঞাপনের সেট করেছেন।

মজার একটি অভিজ্ঞতার কথা জানতে চাইলে বলেন, ‘জিপির একটা থিম সংয়ের কাজ চলছিল উত্তরার দিয়াবাড়িতে। তখন প্রচণ্ড শীত। তিন দিন কাজ করার পর জানা গেল কিছুই হয়নি। পরে আবার নতুন করে কাজ শুরু করি।’

তাঁর ডিজাইন করা সেটের দর্শকপ্রিয় টিভিসির মধ্যে রবি, জিপি নেটওয়ার্ক, এয়ারটেল, ইউনিলিভার, কুড়কুড়ে, প্যারাশুট অ্যাডভান্স, প্যারাশুট বেলিফুল, নেসলে ব্র্যান্ড, লাফার্জ সিমেন্ট অন্যতম।

কাজের শুরুটা হাসান তারেকের হাত ধরে হলেও গুরু মানেন আশফাক উজ জামান বিপুল ও রশিদ অপুকে। এখন তাঁর গ্রুপেই কাজ করেন আরো ছয়জন সহকারী। একটি বিজ্ঞাপনের ভালোমন্দ অনেকটাই সেটের ওপর নির্ভর করে বলে জানান তিনি। ‘পরিচালক কী চান একজন আর্ট ডিরেক্টরকে তা বুঝে তারপরই কাজে হাত দিতে হবে’ বলেন শহিদুল।



মন্তব্য