kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কথাবার্তা

যতবার দেখি ভুল ধরা পড়ে

হাসান তৌফিক অঙ্কুর
বিজ্ঞাপন নির্মাতা
বিজ্ঞাপন নির্মাণ করেন হাসান তৌফিক অঙ্কুর। শুরুটা বিজ্ঞাপনের গল্প লেখা দিয়ে। দেড় শর বেশি বিজ্ঞাপন বানিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে কথা বলেছেন শোভন সাহা

২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



যতবার দেখি ভুল ধরা পড়ে

বিজ্ঞাপন নির্মাণের সঙ্গে যুক্ত হলেন কিভাবে?

আমি মার্কেটিং বিভাগে পড়াশোনা করেছি। অ্যাডভার্টাইজিংয়ের ওপর কোর্স ছিল।

পড়াশোনা শেষ করে বিজ্ঞাপন এজেন্সি মিডিয়াকমে শিক্ষানবিশ হিসেবে যোগ দিই। আমার কাজ বিজ্ঞাপনের গল্প লেখা। একদিন নিজের লেখা একটি গল্প খুব ভালো লাগল। ভাবলাম নিজেই বানিয়ে ফেলি। ঊর্ধ্বতন অজয় কুমার কুণ্ড দাকে জানাই। তত দিনে বিজ্ঞাপন না বানালেও এ বিষয়ে অনেক কিছু জেনে গেছি। তিনি সামান্য বাজেট দিতে রাজি হলেন। আগে থেকে মিউজিক ও অ্যানিমেশন করতাম। বিজ্ঞাপন বানাতে এসে সবই কাজে লেগে যায়।

 

প্রথম বিজ্ঞাপন?

প্রথম নির্মিত বিজ্ঞাপন ‘রুচি চানাচুর’। ২০০৩ সালে বানিয়েছিলাম। প্রচারের পর দারুণ সাড়া পাই। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

 

আপনার নির্মিত উল্লেখযোগ্য বিজ্ঞাপন?

আরএফএল পিপিআর পাইপ, ইউ পিভিসি গ্লাস ডোর, ফ্রেশ আটা, ফ্রেশ প্রিমিয়াম টি, ফ্রেশ সয়াবিন অয়েল, প্রাণ ম্যাংগো ফ্রুটি আমলোক, ফ্রেশ মিল্ক, প্রাণ আপ, ব্রেভার মল্ট ড্রিংকস, বসুন্ধরা সিটি উল্লেখযোগ্য।

 

অনুষ্ঠানের মধ্যে দর্শক বিজ্ঞাপন দেখতে চায় না। তাহলে বিজ্ঞাপন প্রচারের নিয়মটা কী হওয়া উচিত?

অনুষ্ঠানের মধ্যে বেশি বিজ্ঞাপন প্রচার করা উচিত নয়। তাতে দর্শক বিরক্ত হয়। তবে বিজ্ঞাপন দেখেও মানুষ এখন আনন্দ পায়। অনেক ভালো এবং মজার গল্পের বিজ্ঞাপন তৈরি হচ্ছে এখন। আগে একটা বিজ্ঞাপনই তিন-চার বছর ধরে প্রচারিত হতো। কিন্তু এখন ছয় মাসের বেশি একটি বিজ্ঞাপন প্রচার হয় না। ক্লায়েন্টের দৃষ্টিভঙ্গিতে অনেক পরিবর্তন এসেছে। এ কারণে বিজ্ঞাপন বিরক্তিকর—এই অভিযোগও কমে এসেছে।  

 

ভালো বিজ্ঞাপনে কোনটা গুরুত্বপূর্ণ?

একটি ভালো গল্প একটি ভালো বিজ্ঞাপনের পূর্বশর্ত। গল্পের পর থেকেই নির্মাতার কাজ। তবে অনেক সময় একটি দুর্বল গল্পও নির্মাতার মুনশিয়ানার জন্য দারুণভাবে পর্দায় ফুটে উঠতে পারে। তবে জনপ্রিয়তা ততটা অর্জন করতে পারে না।

 

বিজ্ঞাপন বানাতে যে অসুবিধায় ভোগেন?

সময়। যে বিজ্ঞাপন নির্মাণে  তিন দিন সময় দরকার, ক্লায়েন্ট সেখানে দুই দিন সময় দেয়। এ ছাড়া পোস্ট প্রোডাকশন, বাজেট সংকটও প্রকট। কিছু জিনিস চাইলেও আমরা এখানে করতে পারি না। যেমন স্লো মোশন, ব্যাক শট। এগুলোর জন্য বাইরে যেতে হয়। আমাদের পর্যাপ্ত টেকনিক্যাল সাপোর্ট নেই। তবে নাটক, সিনেমা থেকে বিজ্ঞাপন অনেক এগিয়ে।

 

কার বিজ্ঞাপন ভালো লাগে?

অমিতাভ রেজা, পিপলু আর খান, আদনান আল রাজীবের করা বিজ্ঞাপন বেশি ভালো লাগে। এ ছাড়া নতুনদের মধ্যে সাকিব ফাহাদের কাজ ভালো লাগে।

 

নিজে যখন নিজের বিজ্ঞাপন দেখেন?

আমার ভালো লাগে না। যতবার দেখি ভুল ধরা পড়ে। মনে হয় কাজটা যদি আবার করতে পারতাম! আমার নির্মিত বিজ্ঞাপন দেখে খুব কমই খুশি হই।

 

ছোটবেলায় দেখা প্রিয় বিজ্ঞাপন?

জীবন বীমার বিজ্ঞাপন, রেড কাউ, বাত্তির রাজা ফিলিপসহ বেশ কিছু পুরনো দিনের বিজ্ঞাপন এখনো চোখে ভাসে।

 

আগামীর স্বপ্ন?

আমার নিজের মন ভরে—এমন অনেক বিজ্ঞাপন বানাতে চাই। এমন কাজ করতে চাই, যেটা দেখার পর ভুলগুলো আমার চোখে আর বাধবে না।


মন্তব্য