kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পেছনের গল্প

দাদিজান ব্যাংক আইছে

প্রচার হচ্ছে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং বিজ্ঞাপন। এতে চঞ্চল চৌধুরী গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ব্যাংকের এজেন্ট হিসেবে অভিনয় করেছেন। বানিয়েছেন আতিক জামান। এর পেছনের গল্প শোনাচ্ছেন শোভন সাহা

১৪ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



দাদিজান ব্যাংক আইছে

বনের মধ্য দিয়ে রাস্তা। এরপর গ্রামের মেঠোপথ।

মাঝে ছোট্ট নদী। নদী পেরিয়ে গ্রামের কাছে পৌঁছে যান চঞ্চল চৌধুরী। তাঁর বাইকের শব্দ শুনে খেলা ছেড়ে দৌড়ে আসে একটি মেয়ে। তারপর চিৎকার দিয়ে বলে, দাদিজান, ব্যাংক আইছে। এরপর এজেন্টকে অ্যাপায়ন করতে জুসের ব্যবস্থা করা হয়। ছোট মেয়েটির কাছে জানতে চাওয়া হয় কার কী প্রয়োজন? সে বলে, ‘দাদিজানের অ্যাকাউন্ট খোলা, বড় চাচা ছেলেরে কলেজের জন্য টাকা পাঠাইব, নতুন চাচি বিদেশ থেকে চাচার পাঠানো টাকা উঠাবো। ’ এমনই কিছু সুবিধা মানুষের ঘরের দুয়ারে পৌঁছে দেওয়ার গল্প নিয়ে এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংকিং বিজ্ঞাপন। এতে এজেন্ট চঞ্চল চৌধুরী আর ছোট মেয়েটি মিম।

 

গল্পের কারণে চঞ্চল চৌধুরী

এই বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবে আগে থেকেই ক্লায়েন্টের পছন্দ ছিল চঞ্চল চৌধুরী। তার কারণ কী জানতে চাইলে বিজ্ঞাপনটির নির্মাতা আতিক জামান বলেন, ‘ব্যাংকটির টার্গেট কাস্টমার গ্রামের মানুষ। তাদের কাছে চঞ্চল চৌধুরী সবচেয়ে প্রিয় অভিনেতা। গ্রামের মানুষের কাছে এ জন্য চঞ্চল চৌধুরীর গ্রহণযোগ্যতাও অনেক বেশি। এ জন্যই ক্লায়েন্ট এই বিজ্ঞাপনের জন্য তাঁকে বেছে নিয়েছেন। ’

 

এক দিন বেশি শুটিং

এতে প্রথমে পরিকল্পনা অনুযায়ী দুই দিনে দুই শিফট শুটিং করার কথা ছিল। অর্থাৎ প্রতিদিন দুপুর ৩টা থেকে সন্ধ্যার আগ পর্যন্ত। ইনডোরে এক দিন আর আউটডোরে এক দিন শুটিংয়ের জন্য নির্ধারণ করা হয়। ‘শুটিংয়ের জন্য একটি খামারবাড়ির ঘরগুলো এক দিনের জন্য ভাড়া নিই। প্রথম দিন আমাদের কাজ শেষ হয় না। কারণ দিনের আলো ফুরিয়ে এসেছিল। পরের দিন ঘর ভাড়া করতে গিয়ে বিপত্তি! জানতে পারি আগে থেকেই অন্যদের নিকট সেদিনের জন্য ঘরগুলো ভাড়া দেওয়া। তারপর দিন ঘর ভাড়া করে শুটিং করি। ’ জানালেন আতিক জামান।

 

নৌকায় বাইক তোলা

এতে যে নদী দেখা যায়, সেটা আসলে অনেক ছোট। নদীতে চলা নৌকাগুলো আরো ছোট। সেগুলোতে শুধু মানুষ পারাপার হয়। নৌকায় মানুষের সঙ্গে একটি মোটর বাইক পার করতে হবে। দৃশ্যটাই এমন। কিন্তু বাইক কিছুতেই নৌকায় ওঠানো যাচ্ছিল না। উঁচু করে ওঠাতে গেলে নৌকা পানিতে ভেসে সরে যায়। বেশ কয়েকবার চেষ্টার পর বাইক নৌকায় তোলা সম্ভব হয়। আতিক জামান বলেন, ‘নৌকায় বাইকের ওপর চঞ্চল ভাইকে বসে থাকতে হবে। এটা নিয়ে তিনি বেশ আতঙ্কিত। যদি বাইকসহ পানিতে পড়ে যান। ওদিকে নৌকা ততক্ষণে রীতিমতো দুলতে শুরু করেছে। সে অবস্থায়ই কোনোমতে শুটিং শেষ করা হয়। নদীর মধ্যে নৌকার ওপর বাইকে বসে থাকা একেবারেই নতুন অভিজ্ঞতা ছিল চঞ্চল চৌধুরীর। ’ 

 

গল্পের বাইরে ছিল মহিষ

শুটিংয়ের জন্য গাজীপুরের হোতাপাড়ায় লোকেশন প্রস্তুত করা হয়। গল্প অনুযায়ী চঞ্চল চৌধুরী একটা বড় গাছের নিচ দিয়ে যাওয়ার সময় এক ব্যক্তির সঙ্গে কুশল বিনিময় করবেন। সব কিছু প্রস্তুত। এমন সময় সেখান দিয়ে একজন কৃষক দুটি মহিষ নিয়ে যাচ্ছিলেন। আতিক বলেন, ‘তত্ক্ষণাৎ সিদ্ধান্ত নিই বিজ্ঞাপনে মহিষ দেখাব। কারণ মহিষ দুটি গল্পকে আরো প্রাণবন্ত করে তুলবে। আমরা মালিককে কিছু টাকা দিয়ে ঘণ্টা দুয়েকের জন্য মহিষ দুটি ভাড়া করি। মহিষের মালিকও খুব সহজেই আমাদের প্রস্তাবে রাজি হয়ে যান। ’

 

ভালো করেছে মিম

বিজ্ঞাপনটিতে সবচেয়ে বেশি ডায়ালগ ছিল ছোট্ট মিমের। আতিক বলেন, ‘ওকে নিয়ে আমরা প্রথমে একটু ভয়ে ছিলাম। ও কি পারবে অত কথা একসঙ্গে বলতে! মিম আগেও গ্রামীণফোন, রবিসহ বেশ কয়েকটি বিজ্ঞাপন করেছে। কিন্তু সেগুলোয় তার তেমন কোনো সংলাপ ছিল না। শুটিংয়ের সময় খুব সহজেই সে গড় গড় করে কথাগুলো বলে যাচ্ছিল। দেখে ইউনিটের সবাই আশ্চর্য হয়ে যান। ’

 

লোকেশন ও সময়

বিজ্ঞাপনটির দৃশ্য গাজীপুরের কয়েকটি স্থানে শুটিং করা হয়। বাড়িটি ছিল গাজীপুরের খতিক খামারবাড়ি শুটিং হাউসের। আর বাকি দৃশ্যগুলো হোতাপাড়ার। দৃশ্য ধারণে লেগেছে তিন দিন। মার্চ মাসে শুটিং করা হয়।

 

এজেন্সি ও প্রোডাকশন হাউস

৪০ সেকেন্ডের বিজ্ঞাপনটির এজেন্সি ক্লিকন ৩৬০ মার্কেটিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন। প্রোডাকশন হাউস সলিউশন ৩৬০ ডিগ্রি। ক্লায়েন্ট এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড।

 

পেছনে আরো যাঁরা...

অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর আজহার পিলি। পোশাক ডিজাইন তাবাসসুম জামান বন্যা, হেড অব প্রোডাকশন আনোয়ার হোসেন। আর্ট ডিরেকশন সুশান্ত। মিউজিক রাশিদ শরীফ শোয়েব, সাউন্ড ডিজাইন রিপন নাথ। দৃশ্য ধারণ করেছেন পাবলো ও গল্প লিখেছেন আমিন রবিন।


মন্তব্য