kalerkantho


পেট্রল-ডিজেলচালিত গাড়ি নিষিদ্ধ হচ্ছে চীনে, থাকবে শুধুই ব্যাটারিচালিত গাড়ি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৯:৫৪



পেট্রল-ডিজেলচালিত গাড়ি নিষিদ্ধ হচ্ছে চীনে, থাকবে শুধুই ব্যাটারিচালিত গাড়ি

ছবি প্রতীকী

পরিবেশ দূষণের কারণে ডিজেল ও পেট্রলচালিত গাড়ি এখন বিশ্বের নানা দেশে উৎপাদন ও চলাচল বন্ধের পরিকল্পনা চলছে। আর এক্ষেত্রে পেট্রল-ডিজেলের বিকল্প হিসেবে পরিবেশ বান্ধব ব্যাটারিচালিত বা বৈদ্যুতিক গাড়িকে প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে।

পশ্চিমা কয়েকটি দেশ আগে পেট্রল-ডিজেলের গাড়ি বন্ধের পরিকল্পনার কথা জানালেও এ ধারায় এবার যোগ দিল চীন।

দূষণ ও কার্বনের নিঃসরণ কমাতে ডিজেল ও পেট্রলচালিত সব ধরনের গাড়ি ও ভ্যানের উৎপাদন ও বিক্রি নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা করছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় গাড়ির বাজার চীন। তবে কবে থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হতে পারে তা এখনো নিশ্চিত করেনি দেশটির সরকার।

ফলে ভবিষ্যতে শুধু বৈদ্যুতিক ব্যাটারিচালিত ও হাইড্রোজেন চালিত কিংবা হাইব্রিড ধরনের বিকল্প জ্বালানির গাড়িই চলবে চীনে।

চীনের উপ শিল্পমন্ত্রী সরকারি সংবাদ সংস্থা জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তারা প্রাসঙ্গিক গবেষণাও শুরু করে দিয়েছেন।

দূষণ ও কার্বন নির্গমন নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখার চেষ্টায় ইতিমধ্যেই ব্রিটেন ও ফ্রান্স ২০৪০ সালের মধ্যে নতুন সব ডিজেল ও পেট্রল গাড়ি নিষিদ্ধের ঘোষণা দিয়েছে।

চীনা মালিকানাধীন গাড়ি কম্পানি ভলভো জুলাই মাসেই ঘোষণা করেছে, ২০১৯ সাল থেকে তাদের সব নতুন মডেলে একটি বিদ্যুৎচালিত মোটর থাকবে। ভলভোর চীনা মালিক সংস্থা গিলি ২০২৫ সালের মধ্যে ১০ লাখ ইলেকট্রিক কার বিক্রিরও পরিকল্পনা করেছে।

রেনোঁ-নিসান, ফোর্ড ও জেনারেল মোটর্সের বিশ্বের প্রথম সারির গাড়ি-নির্মাতারা অনেকেই চীনে ইলেকট্রিক গাড়ি তৈরির প্রচেষ্টায় যুক্ত আছে।

দূষণ নিয়ন্ত্রণের লক্ষ্যে নতুন যে সব বিধিনিষেধ চালু হতে যাচ্ছে, তার আগে আকর্ষণীয় চীনা বাজারের একটা অংশ দখল করার জন্য গাড়ি-নির্মাতারা অনেকেই মরিয়া। ফলে পেট্রল-ডিজেলের গাড়ি নিষিদ্ধ করা হলে বৈদ্যুতিক বা ব্যাটারিচালিত গাড়ির বাজার যে রমরমা হয়ে উঠবে, তা নিশ্চিত করেছেন বিশ্লেষকরাই।
সূত্র : গার্ডিয়ান


মন্তব্য