kalerkantho


প্রিয় গাড়ির যত্নআত্তি, যা না করলেই নয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ মার্চ, ২০১৭ ১৭:২৯



প্রিয় গাড়ির যত্নআত্তি, যা না করলেই নয়

গাড়িটাকে ঠিকঠাক রাখতে তার যত্নে সচেতন হতে হবে। শিশুটিকে যেভাবে যত্নআত্তিতে বড় করে তুলছেন, তেমনি গাড়ির যত্ন নিতে হবে।

এ বিষয়ে নিন বিশেষজ্ঞের টিপস।

১. প্রতিমাসে অন্তত একবার গাড়ির ভেতরে ও বাইরে পরিষ্কার করুন। নিজেকে পরিষ্কার রাখার মতোই বিষয় গাড়ি পরিষ্কার রাখা। এ কাজে কিছু ভ্যাকুম ক্লিনার রয়েছে যা দারুণ সাফাই করতে পারে। গাড়ির ভেতরে ভ্যাকুম দিয়ে পরিষ্কার করুন। আর বাইরে পানি ও ক্লিনার ব্যবহার করুন।

২. ভালো ব্র্যান্ডের কোনো তেল ব্যবহার করুন। প্রতি ৫-৭ হাজার মাইল চলার পর গাড়ির তেল বদলাতে হয়। মোবিল ১ এর মতো সিনথেটিক তেল সবচেয়ে ভালো।

ইঞ্জিনকে সচল রাখতে সময়ের নিয়মিত বিরতিতে তেল বদলানোর কথাই বলেন বিশেষজ্ঞরা।

৩. প্রতিমাসে একবার চাকার প্রেসার পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে। শুধু তাই নয়, প্রতি সাড়ে ৭ হাজার মাইল চলার পর চাকা বদলানো উচিত। এর পর ভালো মানের চাকা লাগিয়ে নিতে ভুলবেন না।

৪. গাড়ির ব্রেক আপনার জীবন রক্ষা করবে। প্রতি ২৫ হাজার মাইল চলার পর ব্রেক প্যাড বদলানো জরুরি। নয়তো ব্রেকের শক্তি ধীরে ধীরে কমে আসবে। তা ছাড়া ব্রেক প্যাড ক্ষয়ে আসার পর অনাকাঙ্ক্ষিত বিরক্তিকর আওয়াজ হতে থাকে। এর জন্য ব্রেক প্যাডই দায়ী থাকে।

৫. সাইড ভিউ মিরর কিন্তু নিরাপদ গাড়ি চালানোর জন্য অতি জরুরি। এটি ভেঙে গেলে বা ঘোলাটে হয়ে গেলে বদলে ফেলুন। নয়তো যেকোনো সময়ে বিপদে পড়বেন।

৬. গাড়িটি হয়তো কোনো এক সময় বিক্রি করে দেবেন। এর দাম মনমতো পেতে হলে ভেতরটার যত্ন নিতে হবে। নয়তো ভালো দাম মিলবে না। ইন্টেরিয়র ঠিকঠাক রাখতে সার্ভিসিং করুন নিয়মিত।

৭. অন্ধকার নামার সঙ্গে সঙ্গেই হেডলাইট ছাড়া গতি নেই আপনার। তাই কোনভাবেই হেডলাইট খারাপ রাখা যাবে না। অনেক হেডলাইটের আলো কমে আসে। সেগুলোও দেখিয়ে নিতে হবে।

৮. প্রতি ৩০ হাজার মাইল চলার পর এয়ার ফিল্টার বদলে নিতে হবে। গাড়ির ফিল্টার আপনার দেহের ফুসফুসের মতো। এর যত্ন না নিলেই বিপদ। ময়লাপূর্ণ এয়ার ফিল্টার আপনার গাড়ির গতিকে কমিয়ে দেবে। সূত্র: বাজফিড

 


মন্তব্য