kalerkantho


স্কুটির দেখভালে করণীয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৫ মার্চ, ২০১৭ ১৫:৫৫



স্কুটির দেখভালে করণীয়

এ দেশের মেয়েদের কাছে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে স্কুটি। ছেলেরাও স্কুটিপ্রেমী হয়ে উঠছেন।

ভালো সেবা পেতে হলে তাই এর দেখভাল করতে হবে বৈকি। এখানে এর নিরাপত্তা ও যত্ন বিষয়ে কিছু সংক্ষিপ্ত টিপস নিন।

১. অবশ্যই একে নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। প্রতিদিনই এতে ধূলাবালি জমে। ওপরটা তাই পানি দিয়ে ধুয়ে নেবেন। ক্লিনার ব্যবহার করলে যথাযথটাই ব্যবহার করুন।

২. চাকায় বায়ুচাপ নিয়মিত পরীক্ষা করতে হবে। এই চাপ ঠিক না থাকলে তা খুবই বিপজ্জনক। এতে টায়ার ও রাস্তার মধ্যকার সংঘর্ষ বৃদ্ধি পাবে।

চাকার অবচয়ের হারও পরীক্ষা করতে হবে। বিশেষ করে যে চাকায় বায়ু ভরতে হয় তা পরীক্ষাধীন রাখতে হয়।

৩. স্কুটিটাকে সব সময় ছায়ায় পার্ক করবেন। সূর্যের তাপে এর জ্বালানি বাষ্পীভূত হতে থাকে। চরমভাবাপন্ন কোনো তাপই স্কুটির জন্য ঠিক নয়। আর বৃষ্টি থেকে বাঁচাতে অবশ্যই পানিনিরোধী কাভার ব্যবহার করুন। আবার অনেক স্কুটি ব্যাটারিতে চলে। রোদে রাখলে ব্যাটারি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

৪. মসৃণ সার্ভিসের জন্য নিয়মিত তেল বদলাতে হয়। তাই ইঞ্জিনের তেল পরিবর্তন করবেন মনে করে। কিছু স্কুটির ক্ষেত্রে প্রতি ৩০০-৫০০ মাইল চলার পর তেল বদলাতে হয়। আর কিছু স্কুটির ক্ষেত্রে ১০০০ মাইল পর পর। নির্দেশনা অনুযায়ী কাজটি করতে হবে।

৫. স্পার্ক প্লাগে কার্বন জমেছে কিনা দেখুন। নয়তো রাস্তার মাঝে বিপদে পড়ে যাবেন। স্কুটি স্টার্ট নেবে না। প্রয়োজনে এটি বদলে নিন।

৬. কার্বুরেটর পরিষ্কার করা অতি জরুরি কাজ। তেল পাম্প করে তাকে বায়ুর সঙ্গে মেশানোর গুরুদায়িত্ব পালন করে কার্বুরেটর। এই কাজটি কার্বুরেটর করে তার ক্ষুদ্র ছিদ্রের ঝিল্লি, পোর্ট এবং রন্ধ্রের মাধ্যমে। এগুলো খুব সহজেই ময়লা হয়ে যায়। এগুলো পরিষ্কার করুন পেশাদার কাউকে দিয়ে।

৭. যত যত্নশীলই হোন না আপনি, নিয়মিত সার্ভিসিং না করালে বিপদে পড়ে যাবেন। কোনো পেশাদার সার্ভির সেন্টারের নিয়ে যান একটা নির্দিষ্ট সময় পর পর। সূত্র : ড্রুম

 


মন্তব্য