kalerkantho


রেসিপি

ঝটপট লাঞ্চ বক্স

কর্মজীবীদের জন্য প্রতিদিন লাঞ্চ বক্স গুছিয়ে নেওয়া এক হ্যাপাই বটে! কী করে ঝটপট তৈরি হবে লাঞ্চ বক্স—কানাডার মন্ট্রিল থেকে জানিয়েছেন ফারহানা শারমিন তৃষা

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



ঝটপট লাঞ্চ বক্স

ফ্রোজেন ফুড নিয়ে কিছু কথা

            যেকোনো খাবার ঝটপট তৈরি করতে নিজের সুবিধামতো সময়ে হাফ ডান বা ম্যারিনেট করে ডিপ ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

১.         ফ্রোজেন ফুড জিপ লক ব্যাগে ডিপ ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

২.         জিপ লক ব্যাগ না থাকলে এয়ারটাইট বক্সে করে ডিপ ফ্রিজে সংরক্ষণ করুন।

৩.         ফ্রোজেন ফুড লম্বা সময় ঠিক রাখার জন্য ভালো করে কর্নফ্লাওয়ার দিয়ে কোট করে রাখা ভালো।

৪.         প্রিজারভেটিভ ছাড়া মাংসজাতীয় ফ্রোজেন ফুড ১৫ দিনের বেশি ইউজ না করাই ভালো।

৫.         ডিপ ফ্রিজ থেকে নামিয়ে কক্ষ তাপমাত্রায় এনে রান্না করুন।

 

ঝটপট ফ্রাইড চিকেন, সটেড সবজি টক দইয়ের রায়তা ও ব্রেড

উপকরণ

ফ্রাইড চিকেন-মুরগির টুকরা ৮টি, দুধ পরিমাণমতো, বিস্কিটের গুঁড়া পরিমাণমতো, লবণ স্বাদমতো, লাল মরিচের গুঁড়া স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য।

বি. দ্র. সব উপকরণের পরিমাপ নির্ভর করবে মুরগির সাইজের ওপর।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         মুরগির টুকরাগুলো ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিয়ে ছুরির সাহায্যে দুই পাশে দাগ কেটে নিন। পেপার টাওয়েল দিয়ে মুছে নিন।

২.         একটি বাটিতে সব উপকরণ নিয়ে একসঙ্গে চামচের সাহায্যে মিশিয়ে নিয়ে খুব বেশি ঘন না করে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন।

৩.         এতে মুরগির টুকরা ডুবিয়ে নিয়ে ডুবো তেলে ভেজে নিন লালচে করে।

৪.         কেউ চাইলে আগে থেকে মুরগির টুকরা মিশ্রণে ম্যারিনেট করে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। লাঞ্চ বক্সে নেওয়ার আগে ভেজে নিন।

 

সটেড সবজি

আপনার পছন্দমতো যেকোনো সবজি যেমন—গাজর, বরবটি, বিদেশি বিনস, মিষ্টি আলু কেটে নিয়ে লবণ ও গোলমরিচ দিয়ে মাখিয়ে অল্প তেলে ৭/৮ মিনিট ভেজে নিন।

 

টক দইয়ের রায়তা

ঘন ও পানি ঝরানো টক দইয়ের সঙ্গে কাঁচা মরিচ কুচি, বিট লবণ, লাল মরিচের গুঁড়া স্বাদমতো ও সামান্য জিরার গুঁড়া মিশিয়ে ফেটে নিলেই তৈরি হবে মজাদার টক দইয়ের রায়তা।

সম্পূর্ণ লাঞ্চ প্ল্যাটারটির জন্য পাউরুটি, সটেড সবজি ও ফ্রাইড চিকেন দইয়ের রায়তা দিয়ে লাঞ্চ বক্সে নিয়ে নিন।


মুরগি ভুনা

উপকরণ

ব্রয়লার মুরগি ১ কেজির একটি আট পিস করা (ব্রয়লার মুরগিতে ঝটপট করা যাবে। কারণ সিদ্ধ হতে সময় কম লাগবে), গরম মসলা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ কাপ, আদা-রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো, হলুদ গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, ধনিয়া গুঁড়া দেড় টেবিল চামচ, জিরা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ ৫/৬টি (এখানে গুঁড়া মরিচের পরিবর্তে কাঁচা মরিচ দিয়ে রান্না করা হয়েছে। এতে সুগন্ধও আসবে), মিষ্টি জিরা বা মৌরি ১ চা চামচ, সরিষার তেল পরিমাণমতো।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১. পাত্রে তেল দিয়ে গরম হলে এতে পেঁয়াজ বাটা ও আদা-রসুন বাটা দিয়ে হালকা ভেজে নিন।

২. সামান্য পানি দিয়ে বাকি গুঁড়া মসলা দিয়ে কষিয়ে নিন।

৩. এতে মুরগির টুকরাগুলো দিয়ে দিন এবং ঢাকনা ছাড়া ১০ মিনিট ভালোভাবে কষিয়ে নিন।

৪. কষানো হলে কাঁচা মরিচ, লবণ ও পরিমাণমতো পানি দিয়ে সিদ্ধ হওয়ার জন্য ঢেকে দিন।

৫. সিদ্ধ হলে ঢাকনা তুলে রাখুন এবং ওই মসলাতেই ভুনা ভুনা করে নামিয়ে নিন।

বি. দ্র. মাংস ছুটির দিনে রান্না করে ভালোভাবে ঠাণ্ডা করে ফ্রিজে রেখে দিলে প্রয়োজনমতো যেকোনো দিন শুধু অফিসে যাওয়ার আগে বক্সে ভাতের সঙ্গে নিয়ে যেতে পারবেন।


পটোল, টমেটো ও মাছের তরকারি

উপকরণ

আপনার পছন্দমতো যেকোনো মাছ, টমেটো ১টি টুকরা করা, পটোল ২/৩টি টুকরা করা (পছন্দমতো যেকোনো সবজি নিতে পারেন), পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, লাল মরিচ গুঁড়া স্বাদমতো, লবণ স্বাদমতো, তেল পরিমাণমতো।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         মাছ লবণ ও অল্প হলুদ দিয়ে ভেজে রাখুন।

২.         পাত্রে তেল দিয়ে এতে পেঁয়াজ কুচিগুলো হালকা ভেজে নিন।

৩.         গুঁড়া মসলা দিয়ে অল্প পানি দিয়ে কষিয়ে এতে সবজি দিয়ে সামান্য লবণ দিয়ে দিন।

৪.         ঢাকনা ছাড়া ৫/৬ মিনিট রান্না করে পরিমাণমতো পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিন।

৫.         এতে মাছগুলো দিয়ে আরো ৫/৬ মিনিট রান্না করুন।

            বি. দ্র. কেউ চাইলে আগেই বেশি করে মাছ ভেজে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। রান্নার সময় প্রয়োজনমতো টুকরা          নিয়ে নিন। সময় কম লাগবে। পুরো লাঞ্চ বক্স তৈরির  জন্য ভাত, মাংস, মাছ ও সবজির সঙ্গে সালাদ দিয়ে দিন। সঙ্গে আচার বা লেবু নিতে পারেন।


স্যান্ডউইচ

ঝটপট লাঞ্চ আইটেম হিসেবে স্যান্ডউইচের জুড়ি নেই। এই রেসিপিটি একই সঙ্গে স্বাস্থ্যসম্মত।

উপকরণ

পাউরুটি ৪ পিস (চারপাশ কেটে নিতে হবে), স্লাইস চিজ ২টি, শসা, টমেটো পছন্দমতো, কাঁচা মরিচ কুচি স্বাদমতো।

 

ফিলিং

মুরগির বুকের মাংসের টুকরা পাতলা স্লাইস করা ১ কাপ, টমেটো সস ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো

গোলমরিচ গুঁড়া স্বাদমতো, জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১ চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ, তেল পরিমাণমতো।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

 

১.         কড়াইতে তেল দিয়ে মাঝারি আঁচে গরম করে নিন এবং পেঁয়াজ কুচি দিয়ে হালকা সোনালি করে ভেজে নিন।

২.         এতে মুরগি ও সস বাদে বাকি সব উপকরণ দিয়ে কষিয়ে নিন।

৩.         এবার মুরগির টুকরা দিয়ে অল্প পানি দিয়ে ঢেকে দিন।

৪.         সিদ্ধ হয়ে এলে ঢাকনা সরিয়ে সস দিন ও হালকা ভাজা ভাজা করে নামিয়ে নিন।

৫.         এবার মূল স্যান্ডউইচ তৈরির জন্য পাউরুটিগুলো নিয়ে তিন কোনা করে কেটে নিন।

৬.         এক পিস পাউরুটির ওপর প্রথমে স্লাইস চিজ দিয়ে একে একে চিকেন ফিলিং, শসা, টমেটো ও কাঁচা মরিচ কুচি দিয়ে লেয়ার করে নিয়ে ওপরে অন্য পিস পাউরুটি দিয়ে টুথ পিক গেঁথে দিন। আপনার স্যান্ডউইচ লাঞ্চ বক্সে ভরার জন্য রেডি। পরিপূর্ণ মিল হিসেবে এর সঙ্গে পছন্দমতো চিপস ও সালাদ যোগ করে দিন।

বি. দ্র. চিকেন ফিলিং অবসরে করে রেখে ফ্রিজে রাখা যাবে এবং অফিস যাওয়ার আগমুহূর্তে পাউরুটির মাঝে দিয়ে নিয়ে যেতে পারেন।

 


ঝটপট ফ্রাইড রাইস ও কাবাব

উপকরণ

সিদ্ধ করা বাসমতী/পোলাওয়ের চাল ২ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, সিদ্ধ সবজি/ক্যানের মিক্সড সবজি ১ কাপ, চিংড়ি মাছ ১ কাপ, ডিম ২টি, সয়াসস পরিমাণমতো, টমেটো কেচাপ ১/৪ কাপ, গোলমরিচ গুঁড়া স্বাদমতো, লবণ স্বাদমতো, মাখন ৩ টেবিল চামচ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         পাতিলে মাখন দিয়ে হালকা গরম হলে এতে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে স্বচ্ছ হওয়া পর্যন্ত ভেজে নিন। এর মধ্যে চিংড়ি দিয়ে ভেজে নিন এবং আলাদা করে রাখুন।

২.         ডিম-লবণ দিয়ে ভেজে ঝুরঝুরে করে নিন। এতে পছন্দমতো সবজি দিয়ে হালকা ভেজে এর সঙ্গে সয়াসস ও টমেটো কেচাপ দিয়ে দিন।

৩.         সিদ্ধ করে রাখা চাল/ভাত, চিংড়ি দিয়ে দিন এবং স্বাদমতো লবণ, গোলমরিচ দিয়ে ভালোভাবে ভেজে নিন। ব্যস, তৈরি ঝটপট ফ্রাইড রাইস।

বি. দ্র. ক্যানের সবজি না পেলে পছন্দমতো সবজি আগে থেকে সিদ্ধ করে ফ্রিজে রেখে দরকারমতো ব্যবহার করা যাবে। কেউ চাইলে আগের রাতে রান্না করা ভাত ভালোভাবে ঠাণ্ডা করে ফ্রিজে রেখে পরের দিন ফ্রাইড রাইস রান্না করতে পারেন।


ঝটপট কাবাব

উপকরণ

গরু/খাসি/মুরগির কিমা ১ কাপ, ময়দা আধা কাপ, কাঁচা মরিচ কুচি স্বাদমতো, লবণ স্বাদমতো, গরম মসলা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, ব্রেড ক্রাম, বিস্কিটের গুঁড়া আধা কাপ, ডিম ১টি, তেল ভাজার জন্য।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         মাংসের কিমার সঙ্গে সব উপকরণ একসঙ্গে মেখে নিয়ে হাতের তালুতে নিয়ে কাবাবের আকার দিয়ে নিন।

২.         কাবাবের মিশ্রণ যদি বেশি নরম মনে হয় আন্দাজমতো আরেকটু ব্রেডক্রাম দিতে পারেন অথবা মাখার পর যদি বেশি শক্ত মনে হয়, ডিম অল্প করে দিয়ে পছন্দের কন্সিস্টেন্সি (ঘনত্ব) নিয়ে আসতে পারেন।

৩.         চুলায় তেল গরম করে ডুবো তেলে কাবাব ভেজে নিন অথবা প্রতিটি কাবাব হালকা ভেজে ফ্রিজে বক্সে সংরক্ষণ করতে পারবেন। পরে লাঞ্চ বক্স তৈরির সময় ভালো করে ভেজে নিন।

 



মন্তব্য