kalerkantho


কেনাকাটা

ঘরের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা

নাঈম সিনহা   

১৬ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০



ঘরের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা

একটা সময় ছিল, যখন গৃহস্থালির সব ফেলনা জিনিস একটি ঝুড়িতেই ফেলা হতো। এখন ঘরের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় এসেছে পরিবর্তন। রান্নাঘরের শুকনা ও ভেজা ময়লা আলাদা পাত্রে রাখুন। সহজে দুর্গন্ধ হয়—এমন ভেজা ময়লা যেমন—মাছের আঁশ, সহজে পচে যায় এমন ময়লা পলিব্যাগে আলাদা করে ফেলুন। ভেজা ময়লার জন্য ঢাকনাসহ ওয়েস্টবিন ব্যবহার করুন। এতে গন্ধ সহজে বাইরে ছড়াবে না। শুকনা বা হালকা ময়লা ফেলার জন্য ঘরের কোনায় ছোট পাত্র বা ঝুড়ি রাখতে পারেন। ঝুড়ির নিচে কাগজ কিংবা পলি বিছিয়ে দিলে ময়লা পরিষ্কারে সহজ হবে।

 

কী ফেলবেন না

♦           বাড়ির খবরের কাগজ, পুরনো খাতা, কাগজের ঠোঙা না ফেলে সংরক্ষণ করুন। পরে বিক্রি বা রিসাইকেল করতে পারবেন।

♦           বাজার থেকে আসা পলিব্যাগ, কাগজের ব্যাগ না ফেলে সংরক্ষণ করুন।

♦           শাকসবজির খোসা একটা পাত্রে সপ্তাহখানেক রেখে পচিয়ে গাছের টবের মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিন। দারুণ সার হবে।

♦           ফেলনা চায়ের পাতি ব্যবহার সপ্তাহখানেক একটি পাত্রে রেখে গাছের গোড়ায় দিন সার হিসেবে।

♦           প্লাস্টিকের পুরনো বোতল, কাচের বোতল, শ্যাম্পু ও অন্যান্য ফেলনা বোতল বিক্রির জন্য জমিয়ে রাখুন। তবে নকল হওয়ার আশঙ্কা এড়াতে বোতলগুলো ফুটো করে রাখুন।

♦           বাজার থেকে আনা প্লাস্টিকের ব্যাগগুলো ধুয়ে সংরক্ষণ করুন। বারবার ব্যবহার করুন। এতে প্লাস্টিকের ব্যবহার হ্রাস পাবে।

♦           আম, জাম, মৌসুমি ফলের বীজ একটি ব্যাগে সংরক্ষণ করুন। পরে সেগুলো বাইরে মাটিতে বা খোলা জায়গায় ফেলে দিন। সেখান থেকে নতুন গাছ হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে।

♦           টিন বা অ্যালুমিনিয়ামের ক্যান-কৌটা ফেলে না দিয়ে আবার ব্যবহার করুন কিংবা বিক্রির জন্য রেখে দিন।

♦           চিপসের প্যাকেট, দুধের প্যাকেট পরিষ্কার করে সংরক্ষণ করুন। ফ্রিজে বিভিন্ন জিনিস রাখার ক্ষেত্রে কাজে দেবে।

 



মন্তব্য