kalerkantho


অফিসের টিফিনে নুডলস

২৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০




অফিসের টিফিনে নুডলস

দিনের একটি বড় সময় কর্মব্যস্ততায় কাটে অফিসে। তাই অফিসে কী খাবেন, কতটুকু খাবেন তা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। খাবারে ব্যালান্স না থাকলে কাজেও মন বসবে না। অল্পতেই ক্লান্ত হবেন, মানসিক চাপ নিতে পারবেন না, দীর্ঘমেয়াদি অসুস্থতায়ও পড়তে পারেন। অনেকেই ভাত-বিরিয়ানি-খিচুড়ির মতো ভারী খাবার খেতে পছন্দ করেন না। একঘেয়েমিও চলে আসে। নুডলস সে ক্ষেত্রে সহজ সমাধান।

 

সকালের নাশতায়

সকালে অফিসে যাওয়ার তাড়ায় অনেকেই বাসায় নাশতা করেন না। অফিসে সকালের নাশতা হতে পারে নুডলস দিয়ে। তবে লক্ষ্য রাখতে হবে নুডলসের সঙ্গে যেন ডিম, সবজি থাকে। তাতে শরীরের সঙ্গে খাবারে পুষ্টিগুণের মাত্র ঠিক থাকবে। সে ক্ষেত্রে মুরগির ডিম দিয়ে ভেজিটেবল নুডলস রান্না করে নিয়ে যেতে পারেন অফিসে। থাকতে পারে আপনার পছন্দমতো সবজি।

 

দুপুরের খাবারে

দুপুরের মূল খাবারের তালিকায় নুডলস, চাওমিন, পাস্তা রাখা যেতে পারে। নুডলস রান্নায় সমপরিমাণ মাংস, সবজি ও স্নেহ জাতীয় খাবার রাখতে পারেন। এতে শরীর সঠিক মাত্রায় পুষ্টি পাবে। সে ক্ষেত্রে গরমে সিদ্ধ মুরগির মাংস ও সবজি দিয়ে স্যুপ নুডলস কিংবা টমেটো চিকেন নুডলস বেশ ভালো কাজে দেবে।

 

নুডলসে নাশতা

নুডলসে হতে পারে বিকেলে অফিসের নাশতাও। সে ক্ষেত্রে বানাতে পারেন নুডলসের সবজি পাকোড়া, চিকেন নুডলস বল, স্যান্ডউইচ, বার্গার কিংবা রোল। এতে সাধারণ নুডলসই হয়ে যাবে অসাধারণ। খাবারে তেলের পরিমাণ যত কম থাকে ততই ভালো।

 

পুষ্টিবিদের কথা

বারডেম জেনারেল হাসপাতালের খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগের প্রধান পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ বলেন, ‘ভাত বা রুটির বিকল্প হিসেবে নুডলস খাওয়া যেতে পারে। সাধারণত আটা ও চাল এই দুই ধরনের নুডলস হয়ে থাকে। আটার নুডলসে ফাইবার ও প্রোটিন বেশি পরিমাণে থাকে। দিনে হালকা নাশতা হিসেবে কিংবা মূল খাবারে থাকতে পারে নুডলস। তিন বেলা নুডুলস খেলেও নেই কোনো সমস্যা।

সতর্কতা

বাইরে বানানো নুডলস না খেয়ে, বাড়ি থেকেই নুডলস বানিয়ে আনা উত্তম। বাইরের পোড়া তেলে অ্যাসিডিটিসহ নানা সমস্যা হতে পারে।



মন্তব্য