kalerkantho


মেহেদি রাঙা ঈদ

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



মেহেদি রাঙা ঈদ

চাঁদরাতে আয়োজন করে মেহেদি দেওয়া ঈদ আনন্দের অবিচ্ছেদ্য অংশ। ঈদের মেহেদি নকশাই ঠিক করে দেয় আগামী এক বছর মেহেদির ট্রেন্ড কেমন যাবে। রেড বিউটি স্যালনের রূপ বিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীনের সঙ্গে কথা বলে এ বছরের মেহেদি নকশার খোঁজ জানাচ্ছেন মারজান ইমু

 

এ বছর ফ্যাশনে যেমন ধরাবাঁধা কোনো ট্রেন্ড নেই, মেহেদিতেও তা-ই। পোশাক ও ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মিলিয়ে ইচ্ছামতো মেহেদি পরার সুযোগ থাকছে। দেশীয় ধাঁচের সাজ-পোশাকের সঙ্গে ফুল-পাতা, কলকি, ময়ূর দিয়ে মেহেদির নকশা হতে পারে। পশ্চিমা সাজ-পোশাকের সঙ্গে জ্যামিতিক নকশা, পাখি, প্রজাপতি আর ট্যাটুর নকশায় মেহেদি পরলে মানানসই হবে। একইভাবে ঐতিহ্যবাহী সাজ-পোশাকে কনুই থেকে আঙুলের ডগা পর্যন্ত যতটুকু ইচ্ছা মেহেদির আলপনা করা যেতে পারে। কিশোরীদের দাবার ছকের নকশা, কোনাকুনি লম্বাটে অথবা আঁকাবাঁকা ঢেউ খেলানো নকশার লম্বাটে এক লাইনের নকশায় খুব মানাবে। হাতের নকশা খুব বড় না করে স্লিভলেস পোশাকের সঙ্গে বাজুতে আধুনিক নকশায় মেহেদি দেওয়ার পরামর্শ দিলেন আফরোজা পারভীন। কিশোরীদের জন্য ছিমছাম নকশা হতে পারে বাহুতে, পায়ে, ঘাড়ে কিংবা পিঠেও। হাতের আকার ও আকৃতির সঙ্গেও মেহেদির নকশা মানিয়ে যেতে হবে। বড় হাতে ভরাট নকশা ভালো দেখায়। সরু হাতে লম্বাটে ছিমছাম নকশা মানাবে। নিজে মেহেদি দেওয়ার ঝামেলা এড়াতে সাহায্য নিতে পারেন সৌন্দর্যসেবা প্রতিষ্ঠানের। বিউটি পার্লারগুলো চাঁদরাত পর্যন্ত মেহদিসেবা চালু রাখে। সে ক্ষেত্রে পছন্দমতো কোণ বা টিউব মেহেদি সঙ্গে করে নিয়ে যেতে হবে। বেশির ভাগ পার্লারে শুধু মেহেদির নকশা করে দেওয়া হয়। মেহেদির নকশার ওপর নির্ভর করে খরচ। শিশুদের জন্য ২০০ থেকে ৮০০ টাকা। বড়দের দুই হাতে নকশার জন্য খরচ পড়বে ডিজাইনভেদে এক থেকে দুই হাজার টাকা। ছিমছাম হালকা নকশায় এক হাতে মেহেদি দিতে ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা খরচ হতে পারে।

 

গাঢ় রং পেতে

►    হাত-পায়ে ওয়াক্সিং করার তিন দিনের মধ্যে বাজারের কেনা মেহেদি লাগাবেন না। এতে ত্বকের ক্ষতি হতে পারে।

►    মেহেদি লাগানোর আগে হাত ভালোভাবে ধুয়ে মুছে নিন।

►    নকশা করার সময় হাতের কাছে নরম কাপড় বা টিস্যু রাখুন। অতিরিক্ত মেহেদি লেগে গেলে অথবা নকশা নষ্ট হলে দ্রুত মুছে নিন।

►    মেহেদি শুকাতে শুরু করলে সামান্য লেবুর রস আর চিনি মিশিয়ে নকশার ওপর তুলি দিয়ে লাগান। মেহেদির রং স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি গাঢ় হবে।

►    মেহেদির সঠিক রং পেতে শুকানোর পর না ধুয়ে ঝেড়ে ফেলুন। কাঙ্ক্ষিত রং পেতে ৫-৬ ঘণ্টার মধ্যে পানি লাগাবেন না।

 

কেনা মেহেদিতে সাবধানতা

►    নকল মেহেদিতে স্বাস্থ্যঝুঁকির আশঙ্কা থাকে। তাই ভালো মানের দোকান থেকে মেহেদি কিনুন। কেনার আগে টিউবে অবশ্যই মুখ সিল করা দেখে নিন।

►    মেহেদি ব্যবহারে অনেকের ত্বকে র্যাশ হতে পারে। অ্যালার্জির সমস্যা থাকলেও মেহেদি ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্ক হওয়া উচিত।



মন্তব্য