kalerkantho


রেসিপি

ডায়াবেটিক রোগীর তিন বেলা

ডায়াবেটিক রোগীর খাবারে আছে বিশেষ নিয়ম। তাই রান্নায় প্রয়োজন বিশেষ উপকরণ ও সতর্কতা। ডায়াবেটিস রোগের মাত্রা ও ধরনের ওপর নির্ভর করে রোগীর খাবারে ক্যালরি মেপে দেওয়া হয়। ডায়াবেটিক রোগী খেতে পারেন তেমন রেসিপি দিয়েছেন উম্মাহ মোস্তফা

১৪ মে, ২০১৮ ০০:০০



ডায়াবেটিক রোগীর তিন বেলা

রাতের ডিনার : ওটসের খিচুড়ি

উপকরণ

ওটস ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, আদা কুচি ১ চা চামচ, মসুর ডাল ৩ টেবিল চামচ, হলুদ আধা চা চামচ, লাল মরিচের গুঁড়া আধা চা চামচ, ধনে গুঁড়া আধা চা চামচ, টালা জিরা গুঁড়া ১ চিমটি, চিকেন কিমা সিকি কাপ, লবণ স্বাদমতো। 

গ্রানিসের জন্য উপকরণ : আদা কুচি ১ চা চামচ, ধনেপাতা কুচি ২ চা চামচ, পুদিনা পাতা কুচি ১ চা চামচ।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         ওটস পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন। দুই কাপ পানিতে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন।

২.         ১০ মিনিট পরে এগুলো একটা ব্লেন্ডারে নিন। তাতে সব গুঁড়া ও বাটা মসলা দিয়ে ব্লেন্ড করে নিন।

৩.        হাঁড়িতে তেল গরম করুন। পেঁয়াজ কুচি দিয়ে ভাজতে থাকুন।

৪.         লালচে হলে আদা কুচি দিয়ে দিন। ব্লেন্ড করা মিশ্রণটি প্যানে ছেড়ে দিন। চিকেনের কিমা ও ডাল দিয়ে দিন।

৫.         ১০ মিনিটের মধ্যে কিমা ও ডাল সিদ্ধ হয়ে গেলে এবং ঘন হলে নামিয়ে রাখুন। ওপরে পুদিনা পাতা, ধনেপাতা কুচি ও আদা কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

 

 

সকালের নাশতার পাঁচমিশালি সবজি

সকালের নাশতা

পাতলা আটার রুটি ২টি, ডিম পোচ ১টি, সবজি ১ বাটি (২০০ গ্রাম)।

উপকরণ

পেঁপে (কিউব করে কাটা) সিকি কাপ, ধুন্দল সিকি কাপ, গাজর ২ টেবিল চামচ, লাল মরিচের গুঁড়া ১ চিমটি, হলুদ ১ চিমটি, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ১টি, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, আদা-রসুন বাটা ১/৪ চা চামচ, অলিভ অয়েল ২ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         তেল গরম করে তাতে পেঁয়াজ ও আদা-রসুন বাটা দিয়ে ভাজতে থাকুন।

২.         লালচে হলে সব সবজি ও মসলা দিয়ে কষিয়ে ঢেকে দিন সিদ্ধ হওয়ার জন্য।

৩.        প্রয়োজনে একটু পানি দিন সিদ্ধ হওয়ার জন্য।

৪.         হয়ে গেলে ধনেপাতা কুচি ও কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

 

►► দুপুরের খাবার থালি

ফুলকপি ও কাবুলি চানার কারি

উপকরণ

সিদ্ধ কাবুলি চানা আধা কাপ, কপি আধা কাপ, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ, আদা ও রসুন বাটা আধা চা চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চিমটি, অলিভ অয়েল ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ দিয়ে ভাজতে থাকুন।

২.         লালচে হলে তাতে কপি দিয়ে ভাজা শুরু করুন।

৩.        কপি থেকে পানি বের হতে থাকলে সব গুঁড়া ও বাটা মসলা দিয়ে দিন।

৪.         এখন এতে সিদ্ধ চানা দিয়ে দিন। পানি দিয়ে ভালোভাবে কপি সিদ্ধ হতে দিন।

৫.         সিদ্ধ হলে মাখা মাখা করে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

 

 

দই বেগুন

উপকরণ

লম্বা বেগুন ২টি, মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা চামচ, ধনে গুঁড়া আধা চা চামচ, দই ২ টেবিল চামচ, অলিভ অয়েল ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         বেগুনগুলো লম্বা করে কাটুন। মরিচ, হলুদ ও ধনে গুঁড়া দিয়ে মেখে রাখুন কিছুক্ষণ।

২.         একটি প্যানে তেল নিয়ে পেঁয়াজ দিয়ে ভাজুন।

৩.        পেঁয়াজ লালচে হলে তাতে দই দিন।

৪.         মসলা মাখা বেগুন দিয়ে অল্প পানি ও লবণ দিয়ে সিদ্ধ হতে দিন।

৫.         বেগুন সিদ্ধ হলে অল্প ধনেপাতা দিয়ে নেড়েচেড়ে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

 

 

কপি কিমার যুগলবন্দি

উপকরণ

ফুলকপি ১ কাপ, পেঁপে (কিউব করে কাটা) সিকি কাপ, কিমা সিকি কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১টি, টমেটো কুচি ২ টেবিল চামচ, হলুদ আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ৩টি, ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ, অলিভ অয়েল ২ টেবিল চামচ, লবণ স্বাদমতো।

যেভাবে তৈরি করবেন

১.         একটি পাত্রে তেল গরম করুন। তাতে পেঁয়াজ দিয়ে ভাজতে থাকুন। পেঁয়াজ লালচে হলে টমেটো কুচি দিন।

২.         টমেটো থেকে পানি বের হতে থাকলে তাতে কিমা ও বাকি সব উপাদান দিয়ে ভাজতে থাকুন। অল্প পানি দিয়ে সিদ্ধ হতে দিন।

৩.        সব কিছু সিদ্ধ হয়ে গেলে ধনেপাতা কুচি ও কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে আরো কিছুক্ষণ রেখে মাখা মাখা করে নামিয়ে পরিবেশন করুন।



মন্তব্য