kalerkantho


কেনাকাটা

রুটি হবেমেশিনে

পিঁড়ি-বেলুনে রুটি বানানোর দিন বুঝি শেষ হলো। খুব সহজে কম সময়ে রুটি বানাতে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে রুটি মেকার। ইলেকট্রিক আর ম্যানুয়াল দুই ধরনেরই মিলবে। বাজার ঘুরে রুটি মেকার নিয়ে বিস্তারিত লিখলেন মারজান ইমু

১ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০



রুটি হবেমেশিনে

রুটি বানানোর জন্য বাজারে রয়েছে দেশি ও বিদেশি ব্র্যান্ডের রুটি মেকার। ইলেকট্রিক রুটি মেকারে বানানোর সঙ্গে সঙ্গে সেঁকেও নেওয়া যায়।

তবে  হাতে তৈরি ম্যানুয়াল মেকারে শুধু রুটি বানানো যায়। সেঁকতে চাইলে চুলার দরকার হবে।

 

হস্তচালিত

সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি হস্তচালিত রুটি মেকার। কাঠের তৈরি ছোট ও বহনযোগ্য এই যন্ত্রে কম সময়ে অনেক রুটি বানানো সম্ভব। কাঠের পাশাপাশি স্টেইনলেস সমীলের তৈরি ম্যানুয়াল রুটি মেকারও আছে। ম্যানুয়াল রুটি মেকারে রুটি বানাতে কাঁচা বা সিদ্ধ আটার ডো বানিয়ে নিতে হবে প্রথমে। এরপর রুটি মেকারের ওপর পরিমাণমতো ডো রেখে হাতল ধরে চাপ দিলেই আটার ডো রুটিতে  পরিণত হবে। বিদ্যুতের প্রয়োজন হবে না। চাইলে চালের রুটি, পরোটা ও লুচিও বানানো যাবে।

প্রয়োজনমতো রুটির আকার বড় বা ছোট করা যায়। বানানো শেষ হলে চুলায় সেঁকে নিতে হবে।

 

ইলেকট্রিক

ইলেকট্রিক রুটি মেকার সাধারণত মেটালের তৈরি। এবং রুটি বানানোর পিঁড়ির অংশটি ননস্টিক হয়।

আটার ডো বানিয়ে রুটি মেকারে দিলে রুটি বানানো ও সেঁকে নেওয়া দুটি কাজ মেশিনই করে ফেলে। কিছু মেকারে টাইমার সেট করা থাকে। রুটি ফুলে উঠলে তাপ বন্ধ হয়ে যাবে। এতে রুটি পুড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে না। আবার কিছু ইলেকট্রিক মেকারে রুটি ফুলে গেলে নিজ থেকে সুইচ বন্ধ করে দিতে হয়। না হলে রুটি পুড়ে যেতে পারে।

 

ব্র্যান্ড ও দরদাম

বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ইলেকট্রিক রুটি মেকারের মধ্যে মিয়াকো, ইগল, ম্যাজেস্টিক, কমেট, নোভা, ওশান, ওয়ালটন এবং গ্রিন অ্যাপল উল্লেখযোগ্য। দেশীয় ব্র্যান্ডে রয়েছে লাবিবাহ, সম্পূর্ণা ও মেহেদি রুটি মেকার।

কাঠের তৈরি এই রুটি মেকারের তিনটি মডেল রয়েছে। কাঠের তৈরি ম্যানুয়াল রুটি মেকারের দাম আকার  ভেদে ৮০০ থেকে তিন হাজার আটশত টাকা পর্যন্ত হতে পারে। ষ্টেইনলেস স্টীলের ম্যানুয়াল রুটি মেকারের দাম নয়শত টাকা থেকে বারোশ টাকা। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মধ্যে র্যাংগসের ইলেকট্রিক রুটি মেকার কিনতে খরচ পড়বে সাড়ে তিন হাজার, মিয়াকো এবং ম্যাজেষ্টিক পাবেন আড়াই থেকে চার হাজার টাকায়, নোভা চার থেকে সাড়ে পাঁচ হাজার টাকা। জয়পান ব্র্যান্ডের দাম মডেল ভেদে আড়াই থেকে পাঁচ হাজার টাকা। এবং গ্রীন অ্যাপেল  দেড় হাজার টাকায় পাবেন। ওশান ব্র্যান্ডের কয়েকটি মডেল রয়েছে। দাম দুই হাজার থেকে সাড়ে চার হাজার টাকা। ওয়ালটন রুটি মেকার এক হাজার নয়শত  থেকে দুই হাজার দুইশত টাকা।

 

কেনার আগে ও পরে

         কেনার আগে রুটি মেকারের ব্যবহারবিধি, সুবিধা- অসুবিধা এবং যত্নআত্তি সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিন।

         বিক্রয়োত্তর সেবা কিংবা ওয়ারেন্টি কার্ডটি কেনার সময় বুঝে নিন।

         কাঠের রুটি মেকার বেশিক্ষণ পানিতে ভিজিয়ে রাখা ঠিক নয়। ধোয়ার পরই শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে বাতাসে শুকিয়ে রাখুন।

         ননস্টিক রুটি মেকারে রুটি বানানোর আগে অল্প একটু তেল মাখিয়ে নিন। ব্যবহারের পর ধুয়ে শুকিয়ে রাখুন। ননষ্টিক আবরণ দীর্ঘদিন ভালো থাকবে।


মন্তব্য