kalerkantho


ভেষজ দাওয়াই

কাশি সারায় তেজপাতা

তেজপাতা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। জেনে নিন তেজপাতার গুণাগুণ এবং আমাদের কী কাজে লাগে। জানালেন অধ্যক্ষ হাকিম ফেরদৌস ওয়াহিদ

১ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০



কাশি সারায় তেজপাতা

        খুশকি দূর করতে পারে তেজপাতা। কয়েকটা তেজপাতা পানিতে ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে সেই পানি মাথার স্কাল্পে আর চুলে লাগিয়ে নিন।

১৫ মিনিট পর শ্যাম্পু করে নিন।

 

        মাথার স্কাল্প থেকে চুলকানি দূর করতে তেজপাতা ভিজিয়ে রেখে বেটে এর মধ্যে নারিকেল তেল মিশিয়ে স্কাল্পে লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানিতে ধুয়ে নিন।

        রান্নায় নিয়মিত তেজপাতা থাকলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে। তেজপাতায় এমন উপাদান আছে, যা রক্তে ইনসুলিনের মাত্রা কমায়।

        কোষ্ঠকাঠিন্যে বা পেট ফাঁপা কমাতে পারে তেজপাতা। তেজপাতা শরীর থেকে টক্সিন বের করে দেয়। এ ছাড়া পাতায় উপস্থিত এনজাইম সহজেই খাবার হজম করে।

        তেজপাতায় রুটিন (rutin) আর ক্যাফিক (caffeic) এসিড আছে, যা হৃদযন্ত্র ভালো রাখে এবং কোলেস্টেরল লেভেল কমায়।

        কাঁচা তেজপাতায় অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি (anti-inflammatory) প্রপার্টি আছে। এটা বেটে  মচকে যাওয়া স্থানে বা অস্থিসন্ধির ব্যথায় লাগালে ব্যথা কমে যাবে।

         তেজপাতা বেটে ব্যথার ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানিতে ধুয়ে নিতে হবে। তেজপাতার তেলও ব্যবহার করা যায়।

        ক্যান্সার সেল নষ্ট করে দিতে পারে তেজপাতা। তেজপাতায় উপস্থিত ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস এবং ক্যাটেচিনস (phytonutrients and catechins) । এ ছাড়া ক্যান্সার সেল বাড়তেও দেয় না।

        তেজপাতা বাটা ত্বকের ক্ষত সারায়। তেজপাতায় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল আর অ্যান্টি-মাইক্রোবিয়াল প্রপার্টি আছে।

        তেজপাতা কাশি সারিয়ে তোলে, একই সঙ্গে গলা খুশখুশ কমায়। এটি খুব সহজেই রেস্পিরেটরি সিস্টেমকে পরিষ্কার করে। সর্দি হোক বা কাশি, তেজপাতা দ্রুত সারিয়ে তুলতে পারে। এর জন্য পানিতে ৪ থেকে ৫টি তেজপাতা ফুটিয়ে পানি অল্প ঠাণ্ডা করে একটা কাপড়ে ভিজিয়ে বুকে সেঁক দিতে হবে।

        তেজপাতা দিয়ে জ্বাল দেওয়া পানি পান করলে কিডনিতে পাথর হয় না। এ ছাড়া গ্যাস্ট্রিকের সমস্যাও কম হয়।

        স্ট্রেস বা উত্কণ্ঠায় থাকলে তেজপাতা দেওয়া চা খেতে পারেন। স্নায়ু শান্ত হবে, উত্কণ্ঠা কমবে এবং তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে পড়তে পারবেন।

 


মন্তব্য