kalerkantho


নারিকেল তেলের জাদুকরী গুণ

নারিকেল তেলের নানাবিধ ব্যবহার জানালেন হারমনি স্পা অ্যান্ড ক্লিওপেট্রা বিউটি স্যালনের রহিমা সুলতানা রীতা

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নারিকেল তেলের জাদুকরী গুণ

উপকারিতা

 

রূপচর্চা

চুল পড়া, চুল পাকা রোধ, খুশকি দূর ও চুলের সজীবতা ধরে রাখতে নারিকেল তেল খুব ভালো কাজ করে। নারিকেল তেল ক্ষতিগ্রস্ত চুল যেমন ঠিক করে, তেমনি ন্যাচারাল কন্ডিশনার হিসেবেও কাজ করে। এটি ত্বকে বেসিক লোশন হিসেবে কাজ দেয়। তুলার বলে নারিকেল তেল লাগিয়ে চোখের মেকআপ তোলা যায়। ত্বকের যেসব জায়গায় দাগ, সেসব জায়গায় নারিকেল তেল নিয়মিত ম্যাসাজ করলে দাগটি হালকা হয়ে যায়। নারিকেল তেল ন্যাচারাল সান প্রটেক্টর হিসেবে কাজ করে।

এ ছাড়া হেয়ার ম্যাসাজ তেল হিসেবে নারিকেল তেল জনপ্রিয়। এটি চুলের ফ্রিজি ভাব কমায়। ফেসিয়াল ময়েশ্চারাইজার হিসেবে ব্যবহার করা যায়। গোসলের আগে সমপরিমাণ নারিকেল তেল ও চিনি মিশিয়ে শরীরে ম্যাসাজ করুন। এটি স্ক্র্যাব হিসেবে ভালো কাজ করে।

যাঁদের হাতের কনুই খসখসে ও শুকনো, তাঁরা নারিকেল তেল কনুইয়ে ম্যাসাজ করলে ঠিক হয়ে যাবে।

চোখের নিচের ডার্ক সার্কেল দূর করতে ছোট বাটিতে নারিকেল তেল নিয়ে তাতে তিনটি ভিটামিন ‘ই’ ক্যাপসুল মিশিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। জমে গেলে প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে চোখের নিচে লাগিয়ে রাখুন। নিয়মিত করলে ডার্ক সার্কেল থাকবে না। নখের কিউটিকলে লাগালে নখের গ্রোথ ভালো হবে।

 

শিশুর যত্ন

ছোট শিশুদের গোসলের আগে মালিশের জন্য নারিকেল তেল ব্যবহার করা যায়। এ ছাড়া গোসলের আগে তুলায় নারিকেল তেল ভিজিয়ে কানে দিলে পানি ঢোকার আশঙ্কা থাকে না। ফলে কানে সংক্রমণ হয় না।

 

 

অন্যান্য

প্রাকৃতিক ডিওডোরেন্ট হিসেবেও নারিকেল তেল ব্যবহার করা যায়। এ ক্ষেত্রে ছয় কাপ নারিকেল তেল, সিকি কাপ বেকিং সোডা, সিকি কাপ অ্যারারুট প্রয়োজন হবে। প্রথমে বেকিং সোডা ও অ্যারারুট একত্রে মিশিয়ে নিন। এর মধ্যে নারিকেল তেল চামচ দিয়ে মেশান। এরপর কাচের জারে বা পুরনো ডিওডোরেন্ট কনটেইনারে রেখে ব্যবহার করুন।

গর্ভাবস্থায় অনেকের পেটে স্ট্রেস মার্ক দেখা দেয়। এসব দাগের ওপরে নিয়মিত নারিকেল তেল মালিশ করলে দাগ হালকা হয়ে যাবে। শরীরের কোনো স্থানে অল্প পুড়ে গেলে সেই স্থানটি অনেকক্ষণ পানি দিয়ে ধুয়ে নারিকেল তেল লাগালে জ্বালাপোড়া কমে যাবে।

উকুন দূর করতেও নারিকেল তেল ব্যবহার করা যায়। এ জন্য লাগবে আপেল সিডর ভিনেগার ও নারিকেল তেল। প্রথমে ভিনেগারে পুরো চুল ভিজিয়ে নিন। এরপর অপেক্ষা করুন যতক্ষণ ভিনেগার না শুকায়। শুকালে নারিকেল তেল লাগিয়ে শাওয়ার ক্যাপ বা একটি পাতলা তোয়ালে দিয়ে মাথা মুড়ে রাখুন। কয়েক ঘণ্টা পর চিকন দাঁতের চিরুনি দিয়ে মাথা আঁচড়ান। যতটা পারেন। এতে উকুন ও ডিম বের হয়ে আসবে। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।


মন্তব্য