kalerkantho


কেনাকাটা

উৎসবে দেশীয় ক্লাচ

চামড়া, পাট কিংবা গামছার মতো বিভিন্ন ধরনের দেশীয় উপাদানে তৈরি ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসের ব্যাগ এনেছে ব্যাগ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ট্যান। এসব ব্যাগের খবর দিলেন পিন্টু রঞ্জন অর্ক

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



উৎসবে  দেশীয় ক্লাচ

পহেলা ফাল্গুন কিংবা ভালোবাসা দিবসে ঘুরতে বের হন অনেকেই। এ সময় নতুন পোশাকের সঙ্গে কাঁধে ঝোলানো প্রতিদিনকার ব্যাগটা এড়িয়ে চলতে চান সবাই।

কিন্তু মোবাইল, চাবির রিং, লিপস্টিক, টাকাসহ ছোট অনেক কিছু বহনের জন্য একটা ব্যাগ তো চাই। এ ঝামেলা এড়াতে দৃষ্টিনন্দন ক্লাচ এনেছে ট্যান, যাতে উৎসবের আমেজ ও প্রয়োজন দুটিই চলে। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার তানিয়া ওয়াহাব জানালেন, ‘ফাল্গুনে প্রায় সবাই পোশাকের ওপরই বেশি গুরুত্ব দেয়। কিন্তু পোশাকের পাশাপাশি মেয়েদের প্রয়োজনীয় ফ্যাশন অনুষঙ্গ ব্যাগ। তাই ফাল্গুন আর ভালোবাসা দিবসের জন্য ক্লাচ এনেছি, যা টেকসই ও ফ্যাশনেবল। ’ দেশীয় উপাদানেই তৈরি। পাটের বেইজের ওপর চামড়া দিয়ে নকশা করা ক্লাচ। কিছু আছে চামড়ার সঙ্গে গামছা, বিভিন্ন রকমের ডাই কাপড়, সিল্ক, তসর ইত্যাদি ফেব্রিকের মিশ্রণে তৈরি। ইনভেলাপের ডিজাইনের ক্লাচও আছে। বর্ণমালা দিয়ে নকশা করা ক্লাচও মিলবে। ব্যাগের লাইনিংটাও দেশীয় উপাদানেই—জানালেন তানিয়া ওয়াহাব। গামছা কাপড়ের ব্যাগের লাইনিংয়ে হলুদ রঙের চামড়া। অর্থাৎ কনট্রাস্ট করে চামড়ার লাইনিং দেওয়া। শাড়ি, ফতুয়া, সালোয়ার-কামিজ কিংবা টপের সঙ্গে মানিয়ে যাবে।

আর ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসের প্রধান তিন থিম রং হলুদ, সবুজ আর লালকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। তানিয়া ওয়াহাব আরো জানালেন, কয়েক বছর আগেও ফাল্গুনে হলুদের রাজত্ব ছিল। এখন হলুদের পাশাপাশি সবুজ চলছে। আর লাল তো ভালোবাসার রং। তাই ব্যাগের রঙের ক্ষেত্রেও এই বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। একরঙা ব্যাগ যেমন আছে, তেমনি আছে দুটি বা তিনটি রঙের মিশেলে করা ব্যাগও। ব্যাগের ভেতরে একাধিক চেম্বার আছে। প্রতিটি ক্লাচ কিনতে পারবেন ৮০০ থেকে ৯০০ টাকায়। অনলাইনে ঘরে বসেও কিনতে পারবেন। এ ছাড়া দেশীয় উপকরণ দিয়ে তৈরি নানা ধরনের ব্যাগ পাবেন আড়ং, বাংলার মেলা, আইডিয়াস, কারুপল্লী ও যাত্রায়।

আর ট্যানের ব্যাগ পাবেন শেরেবাংলা রোড, শাহজালাল লেদার কমপ্লেক্সে তাদের শোরুমে এবং  ফেসবুক পেজ : https:// www.facebook.com/tanbangladesh/


মন্তব্য