kalerkantho


আসলো যখন ফুলের ফাগুন

ফুলের গয়নার কদর সব সময়ই। উৎসব পার্বণে তাতে যোগ হয় নতুন মাত্রা, নতুন বৈচিত্র্য। এ বছরের ফাগুন সাজে ফুলের গয়নার ট্রেন্ড নিয়ে লিখেছেন মারজান ইমু

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



আসলো যখন ফুলের ফাগুন

মডেল : বৃষ্টি পোশাক : ওয়েস্ট রঙ ও পটের বিবি সাজ : পারসোনা ছবি : কাকলী প্রধান

আজ পহেলা ফাল্গুন। আর ফাল্গুন যেন ফুলের উৎসব।

এই উৎসবে সাজের পুরোটাজুড়ে থাকে নানা ধরনের ফুল। উৎসবকে কেন্দ্র করে ফুলের গয়নায় এসেছে নানা বৈচিত্র্য। এখন সাজে অর্কিড, ক্যালান্ডুলা, গ্লাডিওলাস, জারবেরাসহ বিদেশি বাহারি সব ফুল সহজলভ্য আর জনপ্রিয় হয়েছে। এর মধ্যেও কদর কমেনি গাঁদা, পদ্ম, রজনীগন্ধা, কসমস ও গোলাপের মতো দেশি ফুলও। নানা ঢঙের ফুলের গয়না মেয়েদের সাজে যোগ করেছে নতুনত্ব।

 

ফুল আর গয়না

শিমুল, পলাশ, কাঁঠালচাঁপা, গোলাপ, কাঠগোলাপ, কসমস, মাধবীলতা, ডালিয়া, গাঁদা, চন্দ্রমল্লিকাসহ আরো কত বুনোফুল রং আর সুবাস মেখে বসন্তের আগমনী বার্তা জানায়। রেড বিউটি স্যালনের কর্ণধার রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভিন জানান, ‘প্রচলিত ফুলের গয়নার সেট, লহরি মালা, মাথার টায়রা, ব্যান্ডেনা, খোঁপার মালা তো আছেই। তবে গয়নায় চমক চাইলে মালার পরিবর্তে গলায় বেশ কয়েকটা ফুল যোগ করে কণ্ঠহার বা চিক গয়না বানিয়ে নিতে পারেন। স্লিভলেস ব্লাউজের সঙ্গে ফুলের বাজু সাজে আনবে বৈচিত্র্য।

ফুলের গয়নায় নতুনত্ব আনতে চাইলে সহজ সমাধান রং। সাদা ফুলের মালা বানিয়ে একটা গাঢ় রঙের বড় ফুলের লকেট বানাতে পারেন। এ ক্ষেত্রে কানের দুল হবে শুধুই সাদা ফুলে। শাড়ির ব্রোচ বানিয়ে নিতে পারেন মাঝারি আকারের ফুল দিয়ে। কয়েকটি গোলাপ, অর্কিড বা জারবেরা দিয়ে গোলাকার বা লম্বাটে ব্রোচ পরতে পারেন। এ ক্ষেত্রে শাড়ির রঙের বিপরীত রঙের ফুল বেছে নিন ব্রোচের জন্য। ’

কানের দুলে ফুলের সঙ্গে পুঁতি যোগ করে টপ বা ঝুমকো বানিয়ে পরতে পারেন। হাতের রত্নচূড়, আংটি থাকতে পারে গয়নার তালিকায়। চুলে সাদা ছোট রক্ত গাঁদা, কসমস বা কাঠগোলাপ দিয়ে সিঁথিপাটি করে তাতে রঙিন একটা বড় ফুল টিকলির মতো বসিয়ে দিন। কিংবা শুধু একটা রঙিন ফুল ক্লিপ দিয়ে চুলের সিঁথিতে টিকলির আদলে আটকে নিন। আর খোঁপা ঢেকে দিন হলুদ গাঁদা ফুলের মালা দিয়ে। মাথায় ফুলের রিং বা ব্যান্ডেনাতো প্রতি বছরই পরছেন। এবার না হয় ভিন্ন কিছু ভাবুন। হতে পারে ফুলের তাজ কিংবা সিঁথির এক পাশজুড়ে ফুলের ক্লিপ।

 

রং মিলান্তি

শাড়ির রং আর ধরন বুঝে ফুলের গয়না নির্বাচন করার পরামর্শ দেন পারসোনার রূপবিশেষজ্ঞ কানিজ আলমাস খান। তাঁর মতে, ‘দেশি বা বিদেশি ফুল যা-ই হোক, শাড়ির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ রঙের ফুল বেছে নিন। শাড়ির রং মিলিয়ে কিংবা বিপরীত রঙের ফুল বেছে নিতে পারেন। একরঙা শাড়িতে কয়েক রঙের রঙিন ফুল একসঙ্গে পরলে বেশ দেখাবে। আবার হলুদ-কমলা, সবুজ বা যেকোনো উজ্জ্বল শাড়ির সঙ্গে  রজনীগন্ধা, জারবেরা, কাঠগোলাপ বা যেকোনো সাদা ফুলের গয়না সাজে আনবে পূর্ণতা। আবার সাদা বা অফহোয়াইট শাড়িতে রঙিন পাড় থাকলে অর্কিড, পদ্ম, রঙিন কসমস, গার্নেশন, পলাশের মতো অপ্রচলিত ফুলের গয়না বেছে নিতে পারেন। ’ 

সারা দিনের ঘোরাঘুরিতে অনেকেই লং কামিজ, কুর্তা বা টপসে স্বচ্ছন্দ বোধ করেন। তাঁদের জন্য বিন্দিয়ার রূপবিশেষজ্ঞ শারমিন কচির পরামর্শ হলো, ‘সালোয়ার-কামিজ বা কুর্তা বা টপসের সঙ্গে অনেক ভারী ফুলের গয়না মানায় না; যেটা আবার শাড়িতে সহজেই মানিয়ে যায়। তাই গয়না পরতে চাইলে হালকা ও কম ফুল দেওয়া গয়না বেছে নিতে হবে। গাউন বা কলিদার কাটের লং কমিজের সঙ্গে ফুলের তাজ ব্যতিক্রমী লুক দেবে। কার্লি চুলের সাজে একপাশে সারি বেঁধে চাইলেই ফুলের কাটা বানিয়ে নেওয়া যায়। এ ক্ষেত্রে বড় ফুলের সঙ্গে কয়েক গুচ্ছ জিপসি গুঁজে নিতে পারেন। সালোয়ার-কামিজ, টপস, গাউন বা কুর্তার সঙ্গে মানিয়ে যাবে।

ফুলের সাজে একটু ফিউশন চাইলে কুর্তা, কটি বা টপসের সঙ্গেও গাঁদা ফুলের বড় ঝোলানো মালা, মাথায় ব্যান্ড আর হাতে ব্রেসলেট বেছে নিতে পারেন। বেশ একটা ব্যতিক্রমী লুক পাবেন।

পাশ্চাত্য কাটের পোশাকের সঙ্গে কানের দুল না পরাই ভালো। তার বদলে গলা আর মাথায় গয়নাকে প্রাধান্য দিলে সাজে পূর্ণতা আসবে। ’

 

সাজে সামঞ্জস্য

পারসোনার রূপবিশেষজ্ঞ কানিজ আলমাস খান বললেন, ‘ফাগুনের পোশাক এমনিতেই রঙিন। তাই সাজের রং ন্যাচারাল হলেই ভালো দেখাবে। এই গরমে খুব হালকা মেকআপেই স্নিগ্ধ লাগবে। ময়েশ্চারাইজার আর কমপ্যাক্ট দিয়েই দিনের বেইজ সেরে নেওয়া ভালো। বিকেল বা সন্ধ্যায় ম্যাট ফাউন্ডেশন ব্যবহার করা যেতে পারে। রঙিন পোশাকের সঙ্গে ভারসাম্য আনতে চোখের সাজটা একেবারে হালকা রাখুন। তামাটে, বাদামি বা সোনালি ম্যাট ধাঁচের শ্যাডো ব্যবহার করুন। ঠোঁটের সাজে একটু গাঢ় আর উজ্জ্বল লিপস্টিক চলতে পারে। চাইলে বেছে নিতে পারেন চোখের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হালকা কোনো রংও। পোশাক থেকে যেকোনো একটা রঙের ছোঁয়া থাকতে পারে আইশ্যাডো বা লিপস্টিকে। ’ 

মিউনিস ব্রাইডালের রূপবিশেষজ্ঞ তানজিমা শারমিন জানালেন, ‘চুলটা একটু কার্লি করে খোলা রাখলেই ভালো দেখাবে। শাড়ির সঙ্গে চাইলে পরিপাটি করে খোঁপা বা বেণিও করে নিতে পারেন। তবে এখন মেসি চুলের ট্রেন্ড চলছে। তাই পশ্চিমা ধাঁচের পোশাকে সামনের চুলে অল্প মেসি ভাব এনে পেছনে কার্ল করে ছেড়ে রাখলে বেশ মানাবে। আর সঙ্গে বাহারি ফুলের গয়না তো রইলই। ’


মন্তব্য