kalerkantho


রং আর ভালোবাসার উৎসবে

ফুলের ডালি নিয়ে হাজির পহেলা ফাল্গুন। সঙ্গী হয়েছে ভালোবাসা দিবস। দুই উৎসবের পোশাকে কাটিং-প্যাটার্ন, রং ও ফ্লোরাল মোটিফ নিয়ে নিরীক্ষা করেছেন ডিজাইনাররা। পাঁচ ডিজাইনারের উৎসবের পোশাক নিয়ে জানালেন মারজান ইমু

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



রং আর ভালোবাসার উৎসবে

মডেল : নাজিফা পোশাক : মুমু মারিয়া সাজ : রেড বিউটি স্যালন ছবি : কাকলী প্রধান

ফাল্গুন আর ভালোবাসা দিবসে শাড়ি পরা তো অনেক হলো। এবার এ থেকে বেরিয়ে নানা কাট আর রঙের পোশাকের ডিজাইন করেছেন ডিজাইনাররা।

 

ভ্যালেন্টাইন ডিজাইনকে ফোকাস করেছি

জাফর ইকবাল

সিইও, ওটু

 

ফাল্গুন আর ভালোবাসা আসে একসঙ্গে। এবার আমরা ভ্যালেন্টাইন ডিজাইনকেই ফোকাস করতে চেয়েছি। ছেলে ও মেয়েদের জন্য আলাদা করে পোশাক ডিজাইন হয়েছে। থাকছে থিম ও নকশা মেলানো যুগল পোশাক। মেয়েদের ভ্যালেন্টাইন কালেকশনে থাকছে গাউন, কামিজ, লং শার্ট ও কুর্তি। ছেলেদের জন্য শার্ট-ব্লেজার, বো টাই, টি-শার্ট ও পাঞ্জাবি থাকছে। লাল-কালো রংকে প্রাধান্য দিয়ে ডিজাইন করা হয়েছে যুগল পোশাক। মেয়েদের পোশাকে লাল ও সোনালির সঙ্গে ব্যবহূত হয়েছে মেরুন রং। হ্যান্ড ও মেশিন এমব্রয়ডারির সঙ্গে জারদৌসী নকশার জমকালো আমেজ আছে পোশাকে।

লালের সঙ্গে কালোর কম্বিনেশন ডিজাইন থাকছে ছেলেদের পোশাকে। সলিড রঙা শার্টের পাশাপাশি চেক শার্টও রয়েছে ভ্যালেন্টাইন কালেকশনে।

 

লাল জর্জেটের ফিস কাটের গাউন। বডিজুড়ে কর্নার শেপে জরি সুতায় পাতার মোটিফ এমব্রয়ডারি করা। যুগল কালেকশনের এই ডিজাইনে ছেলেদের জন্য থাকছে লাল শার্ট ও কালো ব্লেজার।

 

 

ফেব্রিকস ডাই নিয়ে নিরীক্ষা হয়েছে

রেজাউল কবীর

হেড অব ব্র্যান্ড, সেইলার

 

এবারের বসন্ত ভালোবাসার উৎসবে ছেলেদের কালেকশনে থাকছে পাঞ্জাবি, শার্ট, টি-শার্ট, পলো শার্ট, জ্যাকেট ও ব্লেজার। মেয়েদের পোশাকে ফ্লোরাল মোটিফে এ লাইন প্যাটার্ন  থাকছে। ডিজাইন এমবলিশমেন্টে ব্যবহূত হয়েছে ফ্রিল, জিপার, এমব্রয়ডারি ও বৈচিত্র্যময় ডাই। ভেজিটেবল ডাই, টাই-ডাই ও টেক্সটাইল ডাই হাইলাইটেড ডিজাইন থাকছে ছেলে-মেয়ে উভয় কালেকশনে। হালকা হলুদ থেকে উজ্জ্বল কমলা কিংবা গাছের কচি পাতা থেকে পতাকা সবুজ রঙের উজ্জ্বল শেডগুলোর এক্সপেরিন্টাল কাজ হয়েছে। এর পাশাপাশি অফহোয়াইট, সাদা, লাল, নীল, বেগুনি রঙের ব্যবহার পোশাকগুলোকে বর্ণিল করেছে। এবারের পলো শার্টে এক্সক্লুসিভ কালেকশনে থাকছে ইন্ডিগো সিরিজ। ইন্ডিগো সিরিজের পলো শার্টে বিশেষত্ব হচ্ছে নিট ফেব্রিকসে কুল ডাই ও ভিনটেজ এসিড ওয়াশ।

 

হালকা সবুজ টাই-ডাই প্রিন্ট করা। ছিমছাম কাটের রেগুলার ফিট পাঞ্জাবি। শর্ট ড্রেসের আদলে প্যাটার্ন বেইজ সালোয়ার-কামিজ। কচি কলাপাতা রঙা কামিজে সোনালি স্ক্রিন প্রিন্টের নকশা। গলার সামনে ইয়কের আদলে মেশিন এমব্রয়ডারির কাটওয়ার্ক করা। কামিজের বটম লাইনে পাইপিনের ব্যবহার হয়েছে।

 

 

 

এবারের ফাল্গুনের থিম জঙ্গল

মারিয়া মুমু

ডিজাইনার, মুমু মারিয়া

মোটিফের ক্ষেত্রে ফুল খুব পছন্দ আমার। বছরজুড়ে সব উৎসবেই ফ্লাওয়ার মোটিফ নিয়ে কাজ করা হয়। তবে প্রতিবারই তাতে কিছু নতুনত্ব থাকে। এবারের ফাল্গুনের থিম ‘জঙ্গল’। ফুলের সঙ্গে গাছ-পাতা নিয়ে একটু জঙ্গলের লুক আনার চেষ্টা হয়েছে। কখনো কয়েকটি ফুল নিয়ে ’মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ’ মোটিফে কাজ করেছি। অর্থাৎ ফাল্গুনের প্রকৃতির ভিন্ন ভিন্ন রূপ, বহুমাত্রিক ব্যবহার আর নানা ভাবনা তুলে আনতে চেষ্টা করেছি মোটিফে। বরাবরের মতো এই ফাল্গুনেও দেশীয় ও পাশ্চাত্য কাটিং প্যাটার্নের সমন্বয় থাকছে পোশাকে। লং কামিজে গাউনের লুক দিয়েছি। পাশ্চাত্যের জনপ্রিয় শার্ট-ড্রেসের ছায়া থাকছে কামিজের কাটে। ডিজাইনে ফ্রিল, লেস ওয়ার্ক, এমব্রয়ডারি ব্যবহার করা হয়েছে। গরমকালের কথা মাথায় রেখে সুতি, মসলিন ও শিফন নিয়ে কাজ করেছি। ফ্যাশন ও স্বাচ্ছন্দ্য বিবেচনায় খুব আঁটসাঁট না করে পোশাকগুলো একটু লুজ ফিটিং করেছি। ফাল্গুন কালেকশনে থাকছে কামিজ, গাউন, লং কুর্তা ও টপস।

 

গাউন কাটের লং ফ্রক-কামিজ। উজ্জ্বল কমলা পিউর শিফন জর্জেট ফেব্রিকসে জঙ্গল প্রিন্টের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে স্লিভলেস হাতায় ও গালায় মেরুন রঙের মসলিন কাপড়ের বর্ডার। গাউনের ইনারে মসলিন লেয়ারে ফুল-পাতার সিঙ্গেল এমব্রয়ডারি আলাদা বৈচিত্র্য এনেছে।       

 

প্রিন্সেস কাট দিয়েছি কামিজে

ফারাহ দিবা 

ডিজাইনার, আসপ্রি লাইফস্টাইল বাই ফারাহ দিবা

 

পোশাকে নানা ধরনের কম্পোজিশনে প্যাচওয়ার্ক সৃষ্টি করতে পছন্দ করি। রং আর প্যাচওয়ার্ক নিয়ে কাজ করেছি এবারের পোশাকে। প্যাটার্ন বেইজ, লং ঘরানার কলিদার বা প্রিন্সেস কাট থাকছে মেয়েদের পোশাকে। লং প্যাটার্নের কামিজের ওয়েস্টে ব্যবহূত হয়েছে নতুন নতুন প্যাটার্ন।   কামিজে প্রিন্সেস কাটের সঙ্গে পুঁতি ও সুতার কাজের নকশার পাশাপাশি মেশিন এমব্রয়ডারি প্যাচওয়ার্ক থাকছে। এ ছাড়া ব্লক, স্ক্রিন প্রিন্ট ও ভেজিটেবল ডাই ব্যবহার করা হয়েছে ডিজাইনে। সামনেই গ্রীষ্মকাল। তাই জর্জেট, লিলেন ও সুতি কাপড় প্রাধান্য দিয়েছি। স্লিভলেস বা থ্রি-কোয়ার্টারের সঙ্গে আরামদায়ক ফেব্রিকসে লং স্লিভও থাকছে। প্যাটার্ন, কাটছাঁটে মনোযোগ দিলেও রঙের ক্ষেত্রে প্রকৃতি অনুপ্রাণিত রং ব্যবহার করেছি। গ্রীষ্মকালে সাদার চেয়ে স্বস্তির কিছু নেই। তাই ফাল্গুনের উজ্জ্বল সব রঙের সঙ্গে সাদার ব্যবহার থাকছে উল্লেখযোগ্যভাবেই। মোটকথা কাটিং ও রং প্রাধান্য দিয়েই ডিজাইন করেছি এবারের ফাল্গুন।

 

প্যাটার্ন বেইজ, লং ঘরানার কলিদার কামিজ। কামিজের টপ লাইন ফোকাস হয়েছে। গলায় ও ওয়েস্ট বেল্টে প্যাচওয়ার্ক এবং বুকের অংশে আর কাটওয়ার্কের ফিউশন ডিজাইন থাকছে। বটম লাইনের ঘেরজুড়ে আলাদা ফেব্রিকসে স্ক্রিন প্রিন্টের নকশাদার বর্ডার বসানো

 

নকশায় প্রাকৃতিক টেকচার ব্যবহার করেছি

সৌমেন আফরিন

ডিজাইনার, হুর

 

ফ্যাশনের চলতি ট্রেন্ড অনুসরণ করি ডিজাইনিংয়ে। পাশ্চাত্য ও উপমহাদেশীয় কাটিংয়ের সমন্বয় করে তাতে দেশীয় লুক দিতে পছন্দ করি। উৎসবের রঙে উজ্জ্বল বোল্ড কালার ব্যবহার করতে ভালো লাগে। ফুল-পাতাসহ বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক টেকচার  পোশাকের নকশায় উপস্থাপন করেছি। প্রিন্ট নিয়ে ভিন্নধর্মী কাজ থাকছে। ফেব্রিকস প্রিন্ট ছাড়াও ডিজাইনার প্রিন্ট ব্যবহার করেছি পোশাকে। ফাল্গুনের গতানুগতিক রঙের বাইরের রং নিয়ে কাজ করেছি। ব্র্যান্ড কালেকশন ছাড়াও আমি কাস্টমাইজড ডিজাইন করতে ভালোবাসি। তাই ফাল্গুনের পাশাপাশি ভালোবাসা দিবসের কালেকশনেও সমান মনোযোগ ছিল। লাল রঙের বিভিন্ন শেড নিয়ে কাজ করেছি ভ্যালেন্টাইন কালেকশনে। প্যাটার্নে থাকছে ফিউশন ক্যাজুয়াল কাট। গাউন, শর্টস ও লং কুর্তা, টিউনিক টপ, লং কামিজ রেখেছি পোশাক আয়োজনে।

 

হুরের প্রিন্সেস কাটের মেরুনরঙা  ফ্লোরটাচ সিল্ক গাউন। গাউনজুড়ে কালো কারচুপির সূক্ষ্ম নকশা। গাউনের নেকলাইন ও স্লিভলাইনে নেট ফেব্রিকসে ম্যাচিং নকশা রয়েছে। সঙ্গে ফ্যাশন হাউস ওটুর লাল শার্ট ও কালো মখমল ব্লেজার।  

 


মন্তব্য