kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


তারকার রেসিপি

শারদে ভিন্ন স্বাদে

নৃত্যশিল্পী ও কোরিওগ্রাফার পূজা সেনগুপ্ত। তাঁর মা পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপসচিব নন্দিতা সরকার। মা-মেয়ে দুজনেই রাঁধতে ভীষণ ভালোবাসেন। এ-টু-জেডের পাঠকদের জন্য চারটি রেসিপি দিলেন তাঁরা

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



শারদে ভিন্ন স্বাদে

পায়েস

উপকরণ

দুধ ২ লিটার, চিনি ৩৭৫ গ্রাম, পোলাওয়ের চাল ১২৫ গ্রাম, তেজপাতা ২টি, কিশমিশ ১২টি।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

দুধ ও তেজপাতা ভালো করে জ্বাল দিয়ে ফুটে উঠলে চাল ধুয়ে তাতে ঢেলে দিতে হবে।

চাল সিদ্ধ হওয়ার সময় পর্যন্ত নাড়তে হবে। চাল  সিদ্ধ হয়ে গেলে চিনি দিয়ে আবারও নাড়তে হবে। চিনি দেওয়ার পর যে পাতলা ভাবটা আসবে, তা টেনে গেলে পায়েসের পাত্র চুলা থেকে নামিয়ে রেখে দিতে হবে। খুব ভালো কিশমিশ না হলে পায়েসে না দেওয়াই ভালো। এতে পায়েস কেটে আসল ঘ্রাণ নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

 

 

ছানার পাতুরি

উপকরণ

দুধ ১ লিটার (ছানা কেটে নিতে হবে), সাদা সরিষা বাটা ২ টেবিল চামচ, পোস্ত বাটা ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ বাটা ৪টি, টমেটো পেস্ট বা কেচাপ ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ ৩টি, দুধ ২ টেবিল চামচ, টক দই ২ টেবিল চামচ।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

দুধে ভিনেগার দিয়ে ছানা কেটে নিতে হবে। এরপর ছানা মসলিন কাপড়ে বেঁধে ২-৩ ঘণ্টা ঝুলিয়ে রাখতে হবে। এরপর ছড়ানো পাত্রে রেখে চৌকো করে কেটে নিতে হবে। কড়াইয়ে সরিষার তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি বাদামি করে ভাজা হলে পোস্ত, সরিষা, কাঁচা লঙ্কা বাটা দিয়ে খুব ভালো করে ভাজতে হবে। গন্ধ বের হলে দুধ ও দইয়ের মিশ্রণ ঢেলে দিতে হবে। একটু নেড়েচেড়ে টমেটো পেস্ট, লবণ ও স্বাদমতো চিনি দিতে হবে। এরপর সামান্য সরিষার তেল দিয়ে ভালোভাবে নেড়ে ছানার টুকরাগুলো গ্রেভির ওপর বসিয়ে দিয়ে হালকা আঁচে ২-৩ মিনিট রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, যেন ছানা যেন চামচের সঙ্গে লেগে না যায়। এরপর নামিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

 

চাটনি

উপকরণ

কাঁচা আম ১ ফালি (বড়), জলপাই ৫টি (৪ টুকরা), আমড়া ৪টি (সমানভাবে চার টুকরা করে কাটা), আলুবোখারা ৪টি, কিশমিশ ১২টি, গোটা শুকনা মরিচ ২টি, পাঁচফোড়ন ১ চা চামচ, চিনি ৩০০ গ্রাম।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

আম ও জলপাই সিদ্ধ করে  হাত দিয়ে ভালো করে চটকে নিতে হবে। আমড়ার অর্ধেক চটকিয়ে বাকি অর্ধেক একইভাবে রাখতে হবে। সরিষার তেলে শুকনা মরিচ ভালো করে ভেজে তেজপাতা ও পাঁচফোড়ন দিতে হবে। এরপর সামান্য হলুদ দিয়ে মিশ্রণটি ঢেলে দিতে হবে। খুব ভালোভাবে সিদ্ধ হলে চিনি দিয়ে অনেক্ষণ ফোটাতে হবে। এরপর আলুবোখারা ও কিশমিশ দিয়ে ঢেকে ২-৩ মিনিট রাখতে হবে। নামানোর আগে আধা টেবিল চামচ করে গরম মসলার গুঁড়া ও সাদা গোলমরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দিতে হবে। এক মিনিট চুলায় ঢাকনা দিয়ে রেখে নামিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

 

ফুলকপি ও আলুর ডালনা

উপকরণ

ফুলকপি ৪টি, বড় আলু ২টি, হলুদ বাটা আধা চা চামচ, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, জিরা বাটা ১ টেবিল চামচ, শুকনা মরিচ বাটা আধা চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা চামচ, চিনি আধা চা চামচ, লবণ স্বাদমতো।

 

যেভাবে তৈরি করবেন

ডুবোতেলে আলু, লবণ না দিয়ে বাদামি করে ভেজে নিন। ফুলকপি লবণ ও হলুদ দিয়ে প্রথমে ঢেকে রাখুন। পানি বের হলে তা না শুকানো পর্যন্ত ভাজুন। এরপর তেলে জিরা ও তেজপাতা দিয়ে গরম মসলা বাদে বাকি মসলাগুলো দিয়ে কষান। এরপর পরিমাণমতো পানি দিন। ঝোল ফুটে উঠলে লবণ, ফুলকপি ও আলু ঢেলে ঢেকে দিন। সিদ্ধ হয়ে গেলে এক চিমটি পরিমাণ ময়দা অথবা কর্নফ্লাওয়ার গুলে ঝোলের সঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে দিন। মাখামাখা হলে ঘি, গরম মসলা ও চিনি দিয়ে নামিয়ে নিন।

গ্রন্থনা : পিন্টু রঞ্জন অর্ক, ছবি : কাকলী প্রধান

শাড়ি : পূজার ব্যক্তিগত সংগ্রহ।

মেকওভার : মিন্টু আহমেদ।


মন্তব্য