kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইন্টেরিয়র

কাজে সাজে বেসিন

নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গ বেসিন। ঘরের কোথায় কেমন বেসিন প্রয়োজন ও তার সাজ কেমন হবেম—জানালেন ইন্টেরিয়র ডিজাইনার ফারজানা গাজী

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



কাজে সাজে বেসিন

ধরন

বেসিন দুই ধরনের—প্যাডেস্টাল ও কেবিনেট বেসিন। প্যাডেস্টাল বেসিনের নিচে বেটার নামক স্ট্যান্ড পাইপ আর কেবিনেট বেসিনের নিচে স্টোরেজ ব্যবস্থা।

বাথরুম বেসিন ও ডাইনিং বেসিনই আমাদের কাছে পরিচিত। এ ছাড়া বাড়ির ছোটখাটো জায়গায় কর্নার বেসিন থাকে। আজকাল  বারান্দায়ও বেসিনের ব্যবহার হচ্ছে। বেসিনের সঙ্গে আনুষঙ্গিক কিছু উপকরণ থাকে। সোপকেস, মিরর স্ট্যান্ড, মিরর, বিব কল (হাতের চাপ দিয়ে যে কল খোলা হয়) ইত্যাদি। সাধারণত বেসিন লাগানো হয়ে থাকে তিন ফুট উচ্চতায়। তারও ১.৫ ফুট উচ্চতায় অর্থাত্ মেঝে থেকে ৪.৫ ফুট উচ্চতায় লাগাতে হয় আয়না এবং এর মাঝামাঝি বেসিন স্ট্যান্ড বা মিরর স্ট্যান্ড। ডাইনিং বেসিন একটু ডেকোরেটিভ হয়। স্বচ্ছ কাচের, সুন্দর ডিজাইনের ডাইনিং বেসিন বাজারে পাওয়া যায়। সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। তবে সিরামিকের তৈরি বেসিন বেশি ব্যবহূত হয়।

সাজ

বেসিন কেনার সময় কোথায় ব্যবহার করবেন, তা মাথায় রাখুন। স্টোরেজ দরকার থাকলে বেসিনের নিচে কেবিনেট ব্যবস্থা আছে কি না দেখে নিন। স্বচ্ছ কাচের বোল শেপের বেসিন এখন খুব চলছে। এর ওপর উজ্জ্বল রঙের জিয়োমেট্রিক বা ফ্লোরাল মোটিফ নকশা দেখতে ভালো দেখায়। স্বচ্ছ কাচের বেসিনের সঙ্গে কাউন্টার টপটিও স্বচ্ছ কাচের দিলে মানাবে। বেসিনের নিচের অংশে স্টোরেজের বদলে টুকিটাকি রাখার একটা কাচের তাক দিতে পারেন। আর পাশে ছোট্ট আংটায় তোয়ালে ঝোলানোর জায়গা। ডাইনিং বেসিনের টাওয়াল হ্যাঙ্গারটিতে টাওয়াল না রেখে একটি রঙিন গামছা রাখতে পারেন। অল্প জায়গায় ঘরের সুবিধামতো এক কোণে অর্ধবৃত্তাকার স্টোরেজসহ বেসিনও লাগাতে পারেন। স্টোরেজ প্রয়োজন না হলে ছোট টেবিল টপ বেসিন কিনে ফেলুন। গ্র্যানাইট বা মার্বেলের কাউন্টার টপ অথবা স্টেনলেস স্টিল স্ট্যান্ডের ওপর বেসিন দিতে পারেন। ছোট্ট বেসিনের জন্য ‘সিঙ্গেল লিভার বেসিন মিক্সচার’ লাগানো ভালো। এই কলে একটি লিভার দুই পাশে ঘুরিয়ে ঠাণ্ডা বা গরম পানি পাওয়া যায়। আর বড় বেসিনের জন্য সেন্টার হোল বেসিন মিক্সচার। এতে ঠাণ্ডা ও গরম পানির জন্য কলের দুই পাশে দুটি নব লাগানো থাকে।

আয়না

বেসিনের আকারের সঙ্গে মিল রেখে বেসিন আয়না ব্যবহার করুন। আয়নাও সাজানোর উপাদান হিসেবে কাজ করে। পছন্দের ক্ষেত্রে গোল, চার কোনা বা ডিম্বাকার আয়না বেসিনের আকারের সঙ্গে মিল রেখে বসান। আর আয়নার ফ্রেম হিসেবে কাঠ ও গ্লাস পেইন্ট ব্যবহার করতে পারেন। এ ছাড়া নকশাওয়ালা আয়নার ফ্রেম কিনে তার মধ্যেও আয়না বসাতে পারেন। বেসিনের চার পাশের টাইলস বা দেয়াল গুরুত্বপূর্ণ। বেসিনের রঙের সঙ্গে মিল রেখে বা কন্ট্রাস্ট করে বেসিন এরিয়ার জায়গাটুকুতে ওই রঙের টাইলস বসান অথবা দেয়ালে রং বাছাই করুন।

 

আলো

বেসিনের সাজসজ্জায় আলো বেশ দরকারি। সাধারণত আয়নার ওপর স্ট্যান্ডলাইট লাগানো হয়। আয়তাকার আয়নার ওপরে মিরর লাইট লাগান। গোল, ডিম্বাকৃতি বা লম্বাটে আয়নার দুই দিকে দুটি ল্যাম্প শেড লাগানো যেতে পারে। আয়নার দুই পাশে ডেকোরেটিভ লাইট অথবা স্পটলাইট দিয়েও বেসিন এরিয়াকে আকর্ষণীয় করা যায়।

আজকাল অনেকে হ্যাঙ্গিং লাইটও বসাচ্ছেন। সতেজ সাজ পেতে বেসিন টপে ছোট ফুলের টব ও অন্যান্য ইনডোর গাছ রাখুন। পানিতে জন্মানো ইনডোর গাছগুলোই বেশি উপযোগী। ছোট্ট একটি বনসাইও থাকতে পারে।


মন্তব্য