kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নোলকে নতুন

গয়নার ফ্যাশনে সেকেলে বা পুরনো বলে কিছু নেই। এ সময়ও নোলক স্বমহিমায় উজ্জ্বল। র‌্যাম্পের গালিচা থেকে বার্থ ডে পার্টিতে নোলকের সরব উপস্থিতি। তবে নকশায় যোগ হয়েছে নতুনত্ব। এই সময় নোলকের বাজারি হালচাল জানাচ্ছেন সমৃদ্ধি হৃদিতা

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নোলকে নতুন

তরুণীদের পছন্দের অনুষঙ্গের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছে নোলক। উৎসব-উপলক্ষ ছাড়িয়ে হরহামেশাই ব্যবহৃত হচ্ছে এই গয়না।

সালোয়ার-কামিজ বা শাড়ির সঙ্গে তো পরা হতোই। এখন হালের প্যান্ট-টপ, জাম্প স্যুট, ম্যাক্সি ড্রেসের সঙ্গেও পরা হচ্ছে নোলক। গোলাকার রিং নোলকের পাশাপাশি ত্রিকোণ বা চৌকোণসহ বিভিন্ন নকশার নোলক এসেছে বাজারে। সঙ্গে থাকছে সোনা বা সোনার মধ্যে রুবি, পান্না, চুনি, নীলা, জিরকন প্রভৃতি পাথর বসানো। সাদা পাথরের নোলকও চলছে। সব সময় ব্যবহারের জন্য সোনা, রুপা বা গোল্ডপ্লেট নোলক বেশি জনপ্রিয়। বড়জোর তাতে দু-একটি ছোট্ট পাথর থাকতে পারে। অনুষ্ঠান বা উপলক্ষে পরার জন্য সংগ্রহে রাখতে পারেন পাথর বসানো জমকালো নোলক।

নোলক পরার জন্য সাধারণত নাকের নিচের অংশে ছিদ্র করার প্রয়োজন হয়। তবে কিছু নোলক পাওয়া যায়, যেগুলো ছিদ্র ছাড়াও পরা সম্ভব। যা হালকা চাপ দিয়ে কাঙ্ক্ষিত জায়গায় আটকে রাখা যায়। আর খুব চাপ বা আঘাত না পেলে সাধারণত খুলে পরে না। তাই যে কেউ চাইলে এ ধরনের নোলক পরতে পারেন। তবে নিত্যনতুন নোলকের লুক চাইলে নাকের নিচের অংশে ছিদ্র করে নেওয়া ভালো। আর নাকের মাঝের অংশে হওয়ায় ছিদ্র সহজে চোখে পড়ে না।  

হালের ফ্যাশন অনুষঙ্গ হিসেবে নোলকের উপস্থিতি খুব বেশি দিনের নয়। তাই গয়না হিসেবে নোলক নির্বাচনের আগে পরিবেশ-পরিস্থিতি মাথায় রাখুন। মুখের আকৃতির সঙ্গে নোলকের আকার-আকৃতি মানানসইয়ের বিষয়টিও বেশ জরুরি। গয়নার ডিজাইনার লায়লা খায়ের কনক বললেন, ‘মুখের গঠন, ওপরের ঠোঁট ও নাকের মধ্যকার জায়গার দূরত্বের ওপর নির্ভর করে নোলকের আকৃতি বাছাই করতে হয়। যদি নাক ও ঠোঁটের মাঝে দূরত্ব কম হয়, তাহলে ছোট রিং মানানসই। অন্যদিকে দূরত্ব বেশি হলে বড় রিং। ’

পরিধেয় অনুষঙ্গটি কতটা মানানসই এবং তাতে কতটা স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন, সে বিষয়টিও সমান গুরুত্বপূর্ণ। স্বাচ্ছন্দ্য পেলে নির্দ্বিধায় নাকে পরে নিন পছন্দসই নোলক।

 

কেমন দামে কোথায় পাবেন 

সোনা ও হীরার নোলক পাবেন ঢাকার বায়তুল মোকাররম, বসুন্ধরা সিটি শপিং মল, কর্ণফুলী গার্ডেন সিটি, ইস্টার্ন প্লাজা, ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড, আড়ং বা যেকোনো গয়নার  দোকানে। দাম পড়বে ৮৫০ থেকে ৪০০০ টাকা। রত্ন পাথর ও নকশার ওপর নির্ভর করে দাম কমবেশি হতে পারে। রুপা বা অন্য ধাতুর নোলক মিলবে ঢাকার নিউ মার্কেট, চকবাজার, চাঁদনী চক ও গাউছিয়ায়। নকশাভেদে ৪৫০ থেকে হাজার টাকার মধ্যেই পাবেন ছিমছাম থেকে বাহারি নকশা। ব্যতিক্রমী নকশার নোলক চাইলে পিরান, মাদুলি, যাত্রা, আইডিয়াসসহ দেশীয় ফ্যাশন হাউসে খোঁজ করতে পারেন। অনলাইন জুয়েলারি শপেও পাবেন ব্যতিক্রমী ডিজাইনের নোলক। দাম ৫০০ থেকে ১২০০ টাকার মধ্যে।

এ ছাড়া ঢাকার প্রায় সব শপিং মলের গয়নার দোকানে খুঁজলেও পেয়ে যাবেন হরেক ডিজাইনের নোলক। দাম পড়বে ১০০ থেকে ৫০০ টাকা।

মডেল : লাবন্য

সাজ : বিন্দিয়া বিউটি স্যালন

ছবি : কাকলী প্রধান


মন্তব্য