kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ডায়েট

ওজন কমাবেন?

ঈদের সময় অনেক রিচ ফুড খাওয়ার কারণে ওজন বেড়ে যেতে পারে। বাড়তি ওজন আবার কমিয়ে ফেলতে চান? কী করে কমাবেন জানালেন আইসিডিডিআরবির পুষ্টিবিদ ফারহানা নিশো

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ওজন কমাবেন?

ওজন কমাতে যা করবেন

♦ অতিরিক্ত ওজন কমানোর সহজ উপায় হলো সঠিক ও পরিমিত খাদ্য গ্রহণ এবং প্রচুর কায়িক পরিশ্রম বা ব্যায়াম করা।

♦ প্রতিদিন এক ঘণ্টা করে হাঁটা , সাইকেল চালানো, সাঁতার কাটা, ত্রিকোণ আসন, উত্থাসন আসন প্রভৃতি ওজন কমানোর জন্য খুবই উপকারী।

♦ চর্বিজাতীয় খাবার, যেমন—মাখন, তেল, গরু বা খাসির মাংস, বাটার প্রভৃতি থেকে দূরে থাকুন। শরীরের জন্য এগুলো প্রয়োজন রয়েছে; কিন্তু নির্দিষ্ট পরিমাণে, যার কমবেশি হলে সমস্যা দেখা দেয়।

♦ প্রচুর পরিমাণে শাকসবজি ও ফলমূল খাবেন। বেশি বেশি পানি পান করবেন। একবারে বেশি খাবেন না। একটু পর পর অল্প অল্প করে খাবেন। ক্ষুধা লাগলে শসা বা ফল খেয়ে নেবেন। কারণ শসা ও টক ফল ওজন কমায়।

♦ ওজন কমানো খাবারে খেলে ক্যালসিয়াম ও লোহার অভাব ঘটতে পারে। এ ক্ষেত্রে ডিম ও কলিজা লোহার চাহিদা পূরণ করবে। চেষ্টা করবেন লবণ বর্জিত খাদ্য গ্রহণ করতে।

♦ শরবত, কোমল পানীয়, সব রকম মিষ্টি, তেলে ভাঁজা খাবার, চর্বিযুক্ত মাংস, তৈলাক্ত মাছ, বাদাম, শুকনা ফল, ঘি, মাখন, সর ইত্যাদি বাদ দিতে হবে।

♦ শর্করা ও চর্বি জাতীয় খাবার ক্যালরির প্রধান উৎস। কম ক্যালরির খাবার স্থূল ব্যক্তির ওজন খুব দ্রুত কমায়।

 

ওজন কমাতে ডায়েট চার্ট

সকাল : দুধ ছাড়া চা বা কফি, দুটি আটার রুটি, এক বাটি সবজি সিদ্ধ, এক বাটি কাঁচা শসা।

দুপুর : ৫০ থেকে ৭০ গ্রাম চালের ভাত। মাছ বা মুরগির ঝোল এক বাটি। এক বাটি সবজি ও শাক, শসার সালাদ, এক বাটি ডাল ও ২৫০ গ্রাম টক দই।

বিকেল : দুধ ছাড়া চা বা কফি, মুড়ি বা বিস্কুট দুটি।

রাত : আটার রুটি তিনটি, এক বাটি সবজি, এক বাটি ডাল, টক দই বা এক বাটি সালাদ অথবা মাখন তোলা দুধ।

 

জেনে রাখুন

দেহের প্রতি কেজি ওজনের জন্য প্রয়োজন দৈনিক এক গ্রাম প্রোটিন। তাই ৬০ কেজি ওজনবিশিষ্ট ব্যক্তির খাদ্যে ৬০ গ্রাম প্রোটিন হলেই হবে। মাসে এক দিন ওজন মাপতে হবে, লক্ষ রাখতে হবে ওজন বাড়ার হার কম না বেশি। ওজন বৃদ্ধি অসুখের লক্ষণ। মেদ বা ভুঁড়ি, অতিরিক্ত ওজন কোনোটাই স্বাস্থ্যের লক্ষণ নয়; বরং নানা অসুখের কারণ হয়ে দেখা দেয়।


মন্তব্য