kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।


রূপচর্চা

ত্বক ও চুলের যত্নে ফলের মাস্ক

প্রসাধনী ব্যবহার না করে ত্বক ও চুলের যত্নে নানা রকম ফলের মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন, যা ত্বক পরিষ্কার, ময়েশ্চারাইজ, চুলের খুশকি দূর করাসহ নানা সমস্যার সমাধান দেবে। কী ধরনের মাস্ক কিভাবে বানিয়ে ব্যবহার করবেন—জানালেন বীথিস বিউটি স্যালনের বীথি চৌধুরী

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ত্বক ও চুলের যত্নে ফলের মাস্ক

ত্বকের জন্য

আপেল : একটি আপেল ভাপে সিদ্ধ করে  খোসা ছাড়িয়ে চটকে এর সঙ্গে ১ চামচ মধু মিশিয়ে পেস্ট করে নিন। মুখে মিশ্রণটি লাগিয়ে ১০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।

আপেলে আছে প্রচুর ভিটামিন এবং অ্যাসট্রিনজেন্ট, যা ত্বক আর্দ্র রাখতে সাহায্য করবে।

বেদানা : বডি স্ক্রাব হিসেবে বেদানা  উপকারী। বেদানা ছাড়িয়ে ছেঁচে এর সঙ্গে দুই টেবিল চামচ কাঠবাদামের গুঁড়া ও আধা চা চামচ গুঁড়াদুধ মিশিয়ে পেস্ট বানান। ভেজা শরীরে হাত দিয়ে এই পেস্ট ম্যাসাজ করে লাগান। পাঁচ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। শরীরের মরা কোষ দূর করতে সাহায্য করবে।

অ্যাভাকাডো : এতে আছে ভিটামিন ‘এ’, ‘ই’ ও ‘ডি’সহ বিভিন্ন খনিজ উপাদান এবং পটাশিয়াম। এটা ত্বকের রুক্ষতা ও ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক সুস্থ করতে কাজ করে। ব্লেন্ডারে অর্ধেকটা অ্যাভাকাডো নিয়ে এর মধ্যে ১ টেবিল চামচ ফ্রেশ ক্রিম ও ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে ব্লেন্ড করুন। এবার মাস্কটি ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

স্ট্রবেরি : স্ট্রবেরি থেঁতো করে টক দইয়ের সঙ্গে মিশিয়ে নিন। মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। স্ট্রবেরি  সানবার্ন দূর ও স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করে।

কমলা : টাটকা কমলার খোসা ত্বকে ঘষে নিলে ত্বকের কালচে ভাব কমবে। এ ছাড়া খোসা শুকিয়ে গুঁড়া করে রেখেও ব্যবহার করা যাবে। গুঁড়া করা খোসা দুধ ও মধুর সঙ্গে মিশিয়ে মাস্ক ও স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করবেন।

পেঁপে : ব্রণের সমস্যা সারতে ও ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে পেঁপের মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন। চটকে নেওয়া পাকা পেঁপে ২ চা চামচ, গ্লিসারিন ১ চা চামচ ও গুঁড়া দুধ ১ চা চামচ ভালোভাবে মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

কলা : ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে কলার জুড়ি নেই। তা ছাড়া ত্বক পরিষ্কার রাখতেও সাহায্য করে। কলা ভালোভাবে চটকে এর সঙ্গে মধু ও ওটস গুঁড়া মিশিয়ে মুখে লাগান। ১৫ মিনিট পর অল্প তরল দুধ দিয়ে মুখ ভিজিয়ে আলতোভাবে ঘষে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

 

চুলের জন্য

নারিকেল বা জলপাই : রাতে ঘুমানোর আগে মাথার স্কাল্পে এবং পুরো চুলে নারিকেল অথবা জলপাই তেল হালকা গরম করে ম্যাসাজ করে লাগান। এতে স্ক্যাল্পে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পাবে। সকালে শ্যাম্পু করে ফেললেই চুল কোমল ও ঝলমলে থাকবে। খুশকি কমাতে নারিকেল তেলের সঙ্গে আমলকী ও লেবুর রস মিশিয়ে মাথায় স্ক্যাল্পে মালিশ করুন। সপ্তাহে তিন দিন করতে পারলে খুশকি থাকবে না।

 

টিপস

►  যেকোনো মাস্ক ত্বকে ব্যবহারের পর ধুয়ে ত্বক হালকা ভেজা থাকতে ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে নিন।

►  প্রতিদিন কমপক্ষে আট গ্লাস পানি পান করা জরুরি। এতে ত্বক ভেতর থেকে আর্দ্র থাকবে।


মন্তব্য