kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


তুলে রাখুন শীতের পোশাক

শীত চলে গেল। এবার শীতের পোশাক গুছিয়ে রাখার পালা। সঠিকভাবে শীতের পোশাক সংরক্ষণ না করলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। কিভাবে রাখবেন জানালেন পিন্টু রঞ্জন অর্ক

৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



তুলে রাখুন শীতের পোশাক

 

পরিষ্কার করে রাখুন

পরিষ্কার না করে পোশাক তুলে রাখলে পোশাকে দাগ পড়ে ও রং নষ্ট হয়ে যায়। ফলে তুলে রাখার আগে অবশ্যই শীতের পোশাক পরিষ্কার করে রাখুন।

সব পোশাকই সাবান-পানি দিয়ে ধোয়ার প্রয়োজন নেই। কিছু পোশাক আছে, যেগুলো ড্রাইওয়াশ প্রয়োজন।   সেগুলো লন্ড্রি থেকে ড্রাইওয়াশ করিয়ে নিতে পারেন।

 

সাজিয়ে রাখুন

শীতের অনেক পোশাক একসঙ্গে ঠাসাঠাসি করে রাখবেন না। পোশাক রাখার সময় প্রথমে ভারী পোশাক, তার ওপর হালকা পোশাক ভাঁজ করে রাখুন। প্রয়োজনে ন্যাপথালিন ও নিমপাতা সরাসরি কাপড়ের মধ্যে না রেখে সুতি কাপড়ে পেঁচিয়ে তার মধ্যে রাখুন। কারণ বেশি ঠেসে রাখলে বিশেষ করে পশমিজাতীয় পোশাকগুলো নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

 

কোট-ব্লেজার হ্যাঙ্গারে

কোট-ব্লেজার বা সোয়েটার তুলে রাখার আগে ব্রাশ দিয়ে ধুলো ময়লা পরিষ্কার করে নিন। প্রয়োজনে ড্রাইওয়াশ করে নিতে পারেন। ভাঁজ না করে সোয়েটার-ব্লেজার হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখুন। ভাঁজ পড়বে না। দীর্ঘদিন ভালো থাকবে। আর হ্যাঙ্গারে ঝোলানোর সময় অবশ্যই কোট-ব্লেজারের কভার পরিয়ে নেবেন এবং কাঁধের মধ্যে প্যাড দেবেন। এটা সম্ভব না হলে কোট-ব্লেজারের কাঁধের জায়গাটা পাতলা প্লাস্টিকে ঢেকে রাখতে পারেন। পশমি শালও সম্ভব হলে ঝুলিয়ে রাখুন।

 

লেপ-কম্বল রোদে শুকিয়ে

লেপ-কম্বল তুলে রাখার আগে অবশ্যই কড়া রোদে কয়েক ঘণ্টা দিয়ে নিন। এরপর ঠাণ্ডা করুন। আর লেপ-কম্বলের কভার হালকা গরম পানিতে ডিটারজেন্ট গুলে তার মধ্যে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে ধুয়ে নিন। শুকানো শেষে লেপ-কম্বল ভালো করে প্যাকেট করে রাখবেন। যেন তাতে ধুলো-ময়লা ঢুকতে না পারে। পোকামাকড়ের আক্রমণ ঠেকানোর জন্য লেপ-কম্বলের ভাঁজে ভাঁজে ন্যাপথালিন দিয়ে রাখুন। উলেন কাপড় মেশিনে না ধুয়ে হাতে ধোয়ার চেষ্টা করুন। এতে কাপড়ের আকার নষ্ট হয়ে যাবে না। ভালো মানের ডিটারজেন্ট ব্যবহার করুন ববলিনের আশঙ্কা থাকবে না। প্রয়োজনে রিঠা সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রেখে সেই পানি দিয়ে কাপড় ধুয়ে নিতে পারেন।

 

আলাদা আলাদা

শীতে বড়দের তুলনায় শিশুদের পোশাক বেশি থাকে। সম্ভব হলে বড়দের ও শিশুদের পোশাক আলাদা আলাদা রাখুন। কারণ বড়গুলোর নিচে পড়ে ছোটগুলো আড়ালে চলে গেলে খুঁজে পেতে সমস্যা হবে। একেবারে আলাদা রাখা সম্ভব না হলে আগে বড়দের পোশাক রেখে তার ওপর ছোটদের পোশাক রাখতে পারেন।


মন্তব্য