kalerkantho


ঘরও সাজান নিজের মতো

অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে ঈদে বাড়িতে মেহমানের আগমন ঘটে বেশি। নিজেকে সাজানোর পাশাপাশি তাই ঘর সাজানোও জরুরি। লিখেছেন পিন্টু রঞ্জন অর্ক

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ঘরও সাজান নিজের মতো

অতিথি এসে বসবে যেথায়

ঈদে ঘরের সাজে স্নিগ্ধ ভাব থাকা চাই। সোফা নতুন বা পুরনো যা-ই হোক না কেন, রাখুন পরিষ্কারপরিচ্ছন্ন।

সোফার কাভার উজ্জ্বল রঙের হলেই উৎসবের ভাবটা ফুটে উঠবে। দেয়ালে নতুন করে রং করিয়ে নিতে পারেন। উজ্জ্বল রং গুরুত্ব দিন দেয়ালে। চাইলে ওয়াল পেইন্টও করিয়ে নিতে পারেন। অলংকৃত টবে সবুজ গাছ যদি ঘরের কোনায় রাখেন, তাহলে তা অন্য রকম আবেদন সৃষ্টি করবে। ল্যাম্পশ্যাড ব্যবহার করে ড্রইংরুমের চেহারাই পাল্টে দিতে পারেন। দেয়াল ও পর্দার রং বিবেচনা করে ঠিক করুন কোন রঙের আলো বা ল্যাম্পশ্যাড ব্যবহার করবেন। তবে বসার ঘর অর্থাৎ ড্রইংরুমের জন্য বড় ও ত্রিভুজ আকারের ল্যাম্প ব্যবহার করাই ভালো। অনেক দিন ঘরের আসবাবগুলো একই জায়গায় থাকলে কিছু জিনিসের ডেকোরেশন বদলে দিন। ঈদে বসার ঘরের আলোকসজ্জা অবশ্যই হতে হবে আধুনিক ও সুন্দর। স্ট্যান্ডিং লাইট হলে সোফার ডান বা বাঁ পাশে লাইট রাখুন। সোফা তো বারবার বদলানো সম্ভব না। সে ক্ষেত্রে সোফার কাভার ও কুশন আর জানালার পর্দাগুলো পাল্টে দিন। দেখবেন পুরো বাড়ি ঈদের ছোঁয়া লাগবে।

পরিপাটি রান্নাঘর

ঈদের দু-তিন দিন আগেই রান্নাঘর পরিষ্কার করুন। মসলার পাত্রের গায়ে নাম লিখে গুছিয়ে নিন যেন দরকারমতো হাতের নাগালে পেতে পারেন। আগেই চেক করুন প্লেট-গ্লাস, কাপ-পিরিচ, চামচ সব সেট মেলানো আর গোছানো আছে কি না। বঁটি, ছুরি আগেই ধার দিয়ে এনে হাতের কাছে রাখুন। ঈদে বাসায় অনেক অতিথি আসেন, তখন খুব দ্রুত রান্না করার দরকার হয়। তাই বেশ খানিকটা মসলা ব্লেন্ড করে ফ্রিজে রেখে দিন। সবচেয়ে দামি ও কম দরকারি জিনিসগুলো রাখুন কিচেন রেকের ওপরের দিকটায়। কাচ, মেলামাইন, মাটি, অ্যালুমিনিয়াম ইত্যাদি বাসনকোসন ও কাপ-পিরিচ ও চামচ আলাদা আলাদা স্থানে রাখুন। এতে এলোমেলো হয়ে যাওয়া বা ভেঙে যাওয়ার ভয় থাকবে না। চাইলে রান্নাঘরের একপাশে রাখতে পারেন কিছু শোপিসও।

তাজা ফুলে বেডরুম

বেডরুমের সাজে নতুনত্ব আনতে বেডকাভারের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে পর্দার রং ব্যবহার করতে পারেন। খাটের পাশে টেবিল ল্যাম্প রাখুন। মেঝেতে একটি রঙিন শতরঞ্জি বিছিয়ে দিন। সম্ভব হলে দেয়ালে একটি পেইন্টিং ঝুলিয়ে দিন। বেডরুমে জামাকাপড় এলোমেলো না রেখে স্টোর করার জন্য ওয়ার্ডরোব বা আলমারি ব্যবহার করুন। ড্রেসিং টেবিলের দুই পাশে দুটি ছোট ফুলদানি রেখে দেখতে পারেন। তাজা ফুলের আবেদনই সব সময়কার। গোলাপ, রজনীগন্ধার মতো ফুলকে প্রাধান্য দিন। ফুলের সৌরভ আর সৌন্দর্য মিলে এক অন্য রকম ভালো লাগার সৃষ্টি করবে। একটুখানি সবুজের ছোঁয়া চাইলে পাতাবাহার কিংবা অন্য কোনো গাছের চারা কিংবা ফুলসহ গাছের টব এনে রাখতে পারেন।

পরিচ্ছন্ন বাথরুম

বাসার পরিষ্কারপরিচ্ছন্ন মেঝে দেখে মুগ্ধ কোনো অতিথি যদি বাথরুমে ঢুকে দেখেন সেটি অপরিচ্ছন্ন আর নোংরা, তাহলে কিন্তু আপনার ইমেজ নিমেষেই ম্লান হয়ে যাবে! আসলে বাড়ির লোকজন কতটা পরিষ্কারপরিচ্ছন্ন, সে সম্পর্কে সহজেই ধারণা পাওয়া যায় সে বাথরুম দেখে। তাই এটি নিয়মিত পরিষ্কার রাখা সবার জন্যই জরুরি। স্বাস্থ্যগত কারণেও বাথরুম পরিষ্কারপরিচ্ছন্ন রাখতে হয়। বাথরুমে টিস্যু, সাবান, ক্লিনার আছে কি না দেখে নিন। না থাকলে এখনই এনে রাখুন।

 

মডেল : লাবনী

ছবি : কাকলী প্রধান


মন্তব্য