kalerkantho


বাসদ ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি

মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২০:৫৫



মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ

একাদশ সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উত্থাপন করেছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি।

আজ মঙ্গলবার পৃথক বিবৃতিতে এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী সকল প্রার্থীর জন্য সমসুযোগ নিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়েছে। বাম জোটের কয়েকজনের প্রার্থীতা বাতিলের ঘটনা উল্লেখ করে তারা সরকারি দল ও তাদের প্রার্থীদের খুশী করতেই এইসব তৎপরতা চালানো হচ্ছে বলে দাবি করেছেন।

বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান এক বিবৃতিতে বলেছেন, বাছাইয়ে সংশোধনযোগ্য তুচ্ছ ঘটনায় গণহারে বিরোধী প্রার্থীদের মনোনয়ন বাতিল করে কমিশন প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিতের দিকে ঝুঁকে পড়েছে। নির্বাচনে ভোটারদের ভীতি শঙ্কা দূর করা ও প্রার্থীদের জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টিতে কমিশন উপর্যুপরি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে চলেছে। বাস্তবে কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, মনোনয়ন জমা দেওয়ার দিন ও পরে আচরণবিধি লঙ্ঘনের কোনো খবর তাদের কাছে নেই। এ ঘটনা প্রমাণ করে কমিশন ‘উটপাখী নীতি’ গ্রহণ করেছে। তিনি অবিলম্বে বিতর্কিত ভূমিকা ছেড়ে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনের জন্য কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভায়ও একই আহ্বান জানানো হয়েছে। পার্টির পক্ষ থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন, মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইকালে রিটার্নিং কর্মকর্তারা যেভাবে ঠুনকো অজুহাতে বিরোধীদলীয় শত শত প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন তাতে তাদের পক্ষপাতমূলক ভূমিকা আরো একবার প্রমাণিত হল। বেশকিছু আসনে সরকারি দলকে আগাম জিতিয়ে দেওয়ার জন্যই এসব অশুভ তৎপরতা জনগণের মধ্যে তা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে নির্বাচন কমিশন আগামী জাতীয় নির্বাচনে সরকারি ছক বাস্তবায়নের দায়িত্ব নিয়েছে।

নির্বাচনী ইশতেহার: আগামী ৮ ডিসেম্বর শনিবার বেলা ১১ টায় সেগুনবাগিচায় পার্টি অফিস সংলগ্ন ‘সংহতি মিলনায়তনে’ পার্টির নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করবে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি। ইতোমধ্যে ইশতেহার চূড়ান্ত করা হয়েছে। বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির ১১ জনসহ এই নির্বাচনে পার্টির নির্বাচনী প্রতীক ‘কোদাল’ নিয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের মোট ২৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।



মন্তব্য