kalerkantho


প্রার্থীশূন্য আসনে কী করবে ঐক্যফ্রন্ট?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ২২:৪৭



প্রার্থীশূন্য আসনে কী করবে ঐক্যফ্রন্ট?

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শুরু হয়েছে। নানা ত্রুটি ও আইনগত বাধ্যবাধকতার কারণে রোববার অনেক প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। যাদের প্রার্থীতা বাতিল হয়েছে তারা আপিল করতে তিন দিন সময় পাবেন।

 নির্বাচন কমিশনের যাচাই-বাছাইয়ে বগুড়া, মানিকগঞ্জ, শেরপুরসহ বিভিন্ন যায়গায় ত্রুটি-বিচ্চুতির কারণে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের বেশকিছু প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।

আপিলের পর তারা মনোনয়ন ফিরে না পেলে ওইসব আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বা বিএনপির কোনো প্রার্থী থাকবে না। সেক্ষেত্রে ওইসব আসনে ঐক্যফ্রন্ট কী পদক্ষেপ নেবে?

এ বিষয়ে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলেছেন ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয়ক ও গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু। তিনি বলেন, ‘শূন্য আসনে (যে আসনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী থাকবে না) যদি ঐক্যফ্রন্টের সমমনা ভালো লোক পাওয়া যায় তাহলে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের সমর্থন দেয়া হবে।’

তিনি বলেন, ‘এখনও আপিলের সময় রয়েছে, আসন শূন্য থাকার পরিস্থিতি এখনও আসে নাই। তবে এ বিষয়টি আন্দাজ করে আমরা আগে থেকেই ফ্রন্টের পক্ষ থেকে এক আসনে একাধিক প্রার্থীকে মনোনয়ন দিয়ে রেখেছি। আমরা আশা করি, কাউকে না কাউকে পাওয়া যাবে। আর যদি একজনকেও না পাওয়া যায় তাহলে আগামীকাল (৩ ডিসেম্বর) অথবা পরশু আমরা সভায় বসবো। সেখান থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

ঐক্যফ্রন্টের সমন্বয় কমিটির সমন্বয়কারী ও বিএনপি নেতা বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, ‘প্রথমত আমাদের বাতিলকৃত প্রার্থীরা আপিল করবে। যদি এতেও না হয় তবে বিকল্প চিন্তা করা হবে।’

ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘সবই বাতিল করে থাকলে আমরা একসঙ্গে বসে আলাপ করে সিদ্ধান্ত নেব। তবে সেক্ষেত্রে স্বতন্ত্র কোনো প্রার্থীকে সমর্থন দেয়ার বিষয়ে আমরা ভাববো। সেসব আসনে কারা কারা আছে সেসব দেখে সমর্থনের বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো।’



মন্তব্য