kalerkantho


সংবাদ সম্মেলনে রিজভী

খালেদার চিকিৎসায় অনভিজ্ঞ থেরাপিস্টকে নিয়োগ রহস্যজনক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৬:১১



খালেদার চিকিৎসায় অনভিজ্ঞ থেরাপিস্টকে নিয়োগ রহস্যজনক

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আমরা খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও উৎকন্ঠিত। তার মানবাধিকারকে হরণ করে তাকে তীব্র কষ্ট দিয়ে তিলে তিলে জীবন বিপন্ন করারই ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে সরকার। আজ বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, খালেদা জিয়াকে আগে নিয়মিত ফিজিওথেরাপি দিতেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের একজন সিনিয়র অভিজ্ঞ থেরাপিস্ট। পরে তাকে পরিবর্তন করে সরকার দলীয় মনোভাবাপন্ন একজন নতুন অনভিজ্ঞ থেরাপিস্টকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, যা রহস্যজনক।

এ সময় ইভিএম প্রসঙ্গে দিল্লির উদাহরণ টেনে রুহুল কবির রিজভী বলেন, সম্প্রতি ইভিএমে কারচুপির জন্য দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নির্বাচনের ভোট বাতিল হয়ে গেছে। এর পর থেকে সেখানে ইভিএমের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছেন ছাত্ররা।

রিজভী বলেন, এসব জানার পরও বহুল আলোচিত ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে সরকার। মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় তাড়াহুড়া করে তিন হাজার ৮২৫ কোটি টাকার এ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়।

তিনি আরো বলেন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলসহ জনসমাজের নানা স্তরের সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন আগামী নির্বাচনে ব্যবহার না করার জন্য নির্বাচন কমিশনের নিকট আপত্তি জানিয়েছিল। প্রধান নির্বাচন কমিশনারও সেই আপত্তিতে সাড়া দিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনে এটি ব্যবহার হবে না বলে জানিয়েছিলেন। অথচ গতকাল একনেকে দেড় লাখ ইভিএম সংগ্রহ প্রকল্পের অনুমোদন দেন প্রধানমন্ত্রী। সরকার জনগণকে ত্যাজ্য করে জালিয়াতির মেশিন ইভিএমের ওপর নির্ভরশীল হয়েছে। এ ছাড়া সরকারের আর উপায় নেই। কারণ সরকারের নির্বাচন দরকার, কিন্তু ভোট দরকার নেই। সরকারের কাছে ইভিএম কেনা অত্যন্ত জরুরি এ জন্য ভোটগ্রহণের দিন এই মেশিন ব্যবহার হলে ভোটারদের প্রয়োজন হবে না।



মন্তব্য