kalerkantho


দলীয় প্রতীকে অনীহা বিএনপি নেতাদের

সিলেটের গোলাপগঞ্জে মেয়র পদে উপনির্বাচন

সিলেট অফিস    

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১২:০৪



দলীয় প্রতীকে অনীহা বিএনপি নেতাদের

সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপনির্বাচন হবে আগামী ৩ অক্টোবর। মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ দিন আগামীকাল রবিবার। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগ মেয়র পদে দলের একক প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছে। কিন্তু প্রার্থী নিয়ে বিপাকে পড়েছে বিএনপি। গোলাপগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদককে দল থেকে মনোনয়ন দিলেও এক দিন পর তিনি দলীয়ভাবে নির্বাচন করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। একইভাবে গত নির্বাচনে দলের মেয়র পদপ্রার্থী যিনি ছিলেন তিনিও দলের প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করতে চান না। তাঁরা দুজনেই স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

গত ৩ সেপ্টেম্বর গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচিত মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা সিরাজুল জব্বার চৌধুরী সম্প্রতি মারা যাওয়ায় মেয়র পদে উপনির্বাচন হচ্ছে।

তফসিল ঘোষণার পরপরই তৎপর হয়ে ওঠেন সম্ভাব্য মেয়র পদপ্রার্থীরা। আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী হিসেবে তিনজনের নাম কেন্দ্রে পাঠানো হয়। কেন্দ্র থেকে গত বৃহস্পতিবার রাতে মনোনয়ন দেওয়া হয় সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলুকে। পাপলু এর আগে দুবার মেয়র ছিলেন। গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে দলীয় বিদ্রোহীর কাছে পরাজিত হয়েছিলেন তিনি।

এর আগে গত বুধবার উপজেলা ও পৌর বিএনপির সভায় মেয়র পদে দলের প্রার্থী হিসেবে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে একক প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করা হয়। তবে এক দিন পরই দলীয় মনোনয়ন ফিরিয়ে দিয়ে মহিউস সুন্নাহ জানিয়েছেন, তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন।

দলীয় মনোনয়ন ফিরিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী বলেন, ‘বিএনপি থেকে আমাকে মনোনয়ন প্রদান করা হলেও আমার এলাকার ভোটাররা চাচ্ছে আমি যেন কোনো দলের প্রার্থী না হই। এ জন্য আমি এলাকাবাসীর স্বার্থে মনোনয়ন ফিরিয়ে দিয়েছি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

একই ধরনের কথা জানিয়েছেন গত নির্বাচনে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিনও। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত গোলাপগঞ্জ পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া। এবারও তিনি নির্বাচনে অংশ নেবেন। তবে ধানের শীষ প্রতীকে আর আগ্রহ নেই তাঁর। এবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার কথা আগেই জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

এ অবস্থায় করণীয় নির্ধারণে গত রাতে আবারও জরুরি বৈঠকে বসেছে উপজেলা ও পৌর বিএনপি। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানা যায়নি।

বিএনপির নেতারা দলীয় প্রতীকে প্রার্থী হতে চাচ্ছেন না কেন জানতে চাইলে পৌর বিএনপির সভাপতি মশিকুর রহমান মহি কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘কেন বিএনপির প্রার্থীরা মনোনয়ন নিতে আগ্রহী নন বিষয়টি আমার জানা নেই। আজ (গতকাল) সন্ধ্যায় আমরা জরুরি বৈঠক ডেকেছি। এই বৈঠকে বিএনপির নতুন প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে।’ 



মন্তব্য