kalerkantho


নির্বাহী কমিটির সভায় যোগ দিতে লা মেরিডিয়েনে বিএনপি নেতারা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১০:৫৫



নির্বাহী কমিটির সভায় যোগ দিতে লা মেরিডিয়েনে বিএনপি নেতারা

জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভায় যোগ দিতে রাজধানীর লা মেরিডিয়েন হোটেলে আসতে শুরু করেছেন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর নেতারা। দলটির প্রধান খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায়কে সামনে রেখে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে এই সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। আজ শনিবার সকাল ১১টায় সভা শুরুর কথা রয়েছে।

নির্বাহী কমিটির সভায় সভাপতিত্ব করবেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এতে কমিটির ৫০২ সদস্য ছাড়াও দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য, ভাইস চেয়ারম্যান, উপদেষ্টা, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভা ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি সমপ্রচার করা হবে। বেসরকারী টিভিগুলো সরাসরি বেগম জিয়ার বক্তব্য সমপ্রচার করতে পারবে কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তার কারেন দলটির তিনটি সাইট থেকে এই সভা ও খালেদা জিয়ার বক্তব্য লাইভ সমপ্রচার করা হবে। ফেসবুক পেজগুলো হলো:

Face book .com/bnp.communication,Face book .com/bnpbd.org&Fac ebook .com/bnplivenettv’

দুই বছর পর জাতীয় নির্বাহী কমিটির এই সভায় সারাদেশ থেকে আগত নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে করণীয় চূড়ান্ত করা হবে। খালেদা জিয়া নেতাদেরকে দিক নির্দেশনা ও গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিবেন। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছেন, এই সভা থেকে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দেশবাসীর উদ্দেশে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেবেন। সভায় দেশের চলমান রাজনীতি এবং আগামী নির্বাচন নিয়ে করণীয় সম্পর্কে তৃণমূলসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের মতামত শুনবেন চেয়ারপারসন। এক জটিল রাজনৈতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে আমাদের দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির এই সভাটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই সভা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাত্পর্যপূর্ণ।

আরও পড়ুন: কোন পথে যাবে বিএনপি

মির্জা ফখরুল বলেন, ৮ ফেব্রুয়ারির রায়ের ওপর নির্ভর করছে অনেক কিছু। বেগম খালেদা জিয়ার রায়টা ন্যায় বিচারের মানদণ্ডে না হলে জনগণই রাস্তায় নেমে আসবে। তাদের ঠেকানো যাবে না। যে তীব্র আন্দোলন গড়ে উঠবে তা প্রতিরোধ করার শক্তি এই সরকারের নেই।

দলীয় সূত্রে জানা যায়,রায়ে সাজা হলে কি কি করণীয় তা নিয়ে দলের নেতারা গত কয়েকদিন ধরে বৈঠক করছেন। নেতারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন,রাজপথে আন্দোলনে নামবেন তারা। রায়ের দিন আদালত এলাকায় বিশাল জমায়েত ঘটানো হবে। বেগম জিয়া সিনিয়র নেতৃবৃন্দ ও ২০ দলীয় জোটের শরিকদের নিকট থেকে ইতিমধ্যে পরামর্শ গ্রহণ ও তাদেরকে দিক নির্দেশনা প্রদান করেছেন। ২০ দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বেগম খালেদা জিয়া সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে বলেন। একই সঙ্গে তিনি পরিবেশ ও পরিস্থিতি বুঝে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করার আভাস দেন।

আরও পড়ুন: ‘টাকা দিতে না পারলেই শুরু হয় অমানবিক শারীরিক নির্যাতন’

জোট ও দলের সকল বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে, খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠানো হলে কঠোর আন্দোলনে নামার পাশাপাশি তাকে ছাড়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাবেন না তারা। আজ নির্বাহী কমিটির সভায়ও একই সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে জানা গেছে। এছাড়া সভায় আগামী ৮ ফেব্রুযারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের দিন রাজপথে শান্তিপূর্ণ অবস্থানের কর্মসুচি নেয়া হতে পারে। উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড থেকে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশনা দিতে পারেন বেগম জিয়া।


মন্তব্য