kalerkantho


নড়াইলে সমাজকল্যাণমন্ত্রী

খালেদা জিয়া বিদেশে অর্থ পাচার করে তা বিনিয়োগ করছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ২২:৪৫



খালেদা জিয়া বিদেশে অর্থ পাচার করে তা বিনিয়োগ করছে

সমাজকল্যাণ মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বিভিন্ন দেশের সাবেক রাষ্ট্র ও সরকার প্রধানরা অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে জেল খেটেছেন। খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধেও অর্থ আত্মসাতের মামলা চলছে। এটি চলমান প্রক্রিয়া, এর সাথে রাজনীতির কোন সম্পর্ক নেই।

আজ বুধবার বিকেলে তেভাগা আন্দোলনের নেতা, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাবেক সভাপতি অমল সেনের ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নড়াইলের বাঁকড়িতে দুই দিনব্যাপী কমরেড অমল সেন স্মরণ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মেনন  বলেন, ‘বিভিন্ন দেশ থেকে খবর আসছে খালেদা জিয়াসহ তার পরিবার দেশের অর্থ বিদেশে পাচার করে বিনিয়োগ করছে। খালেদা জিয়া দুর্নীতি করবেন আর তা বলা যাবে না এটা কেমন কথা।’

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির যে মামলাগুলো বিচারাধীন রয়েছে সেগুলো বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলের মামলা। আট বছর আগে থেকে এসব মামলা চলছে, এর সাথে সরকারের কোন সম্পৃক্ততা নেই।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখবেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য বিমল বিশ্বাস ও মুস্তফা লুৎফুল্লাহ এমপি ও কমরেড ইয়াছিন আলী এমপি, সাম্যবাদী দলের সাধারন সম্পাদক দীলিপ বড়ুয়া, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট শেখ হাফিজুর রহমান এমপি, নড়াইল জেলা ওয়ার্কার্স পাটির সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

এর আগে সকালে যশোর সার্কিট হাউজ সম্মেলন কক্ষে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সাথে বিভাগীয় কার্যক্রম বিষয়ক মত বিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

সামাজিক সুরক্ষার দায়িত্ব কেবল সামাজিক দায়বদ্ধতা নয়, বরং এটি সাংবিধানিক দায়িত্ব- এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বর্তমান সরকার সামাজিক খাতকে বেগবান করতে প্রতি বছরই এ খাতে বরাদ্দ বৃদ্ধি করছে। বরাদ্দের এই টাকা নিয়ে কোন ধরণের দুর্নীতি স্বজনপ্রীতি মেনে নেওয়া হবে না’।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, চলমান অর্থবছরের অসম্পন্ন কাজগুলো এই অর্থবছরের মধ্যেই যথাযথভাবে সম্পন্ন করতে হবে।

যশোর জেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ সভায় জেলার সকল সমাজসেবা কর্মকর্তা-কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য