kalerkantho


বিএনপি ব্যর্থ দল তা বেগম জিয়াই স্বীকার করেছেন: নৌ পরিবহন মন্ত্রী

বরিশাল অফিস   

২৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৬:৫৭



বিএনপি ব্যর্থ দল তা বেগম জিয়াই স্বীকার করেছেন: নৌ পরিবহন মন্ত্রী

নৌ পরিবহন মন্ত্রী মো. শাজাহান খান বলেছেন, সবদলের অংশগ্রহনের মাধ্যমে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক এটা আমারও চাই। সেখানে কোন দল আসবে আর কোন দল আসবে না সেটা তাদের নিজেদের ব্যপার। তবে বিএনপির ব্যর্থতার গ্লানির কথা বেগম খালেদা জিয়া নিজেই স্বীকার করেছেন।

গত রবিবার তথাকথিত মুক্তিযোদ্ধা জাতীয়তাবাদী দলের এক সভায় অনুষ্ঠিত হয়েছে। যারা মুক্তিযুদ্ধ করেছে তারা জয় বাংলা শ্লোগান দিবে না, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে স্বীকার করবে না, তারা নিজেকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে দাবী করতে পারে না। সেই তথাকথিত জাতিয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভায় বেগম খালেদা জিয়া বলেছিলেন, ২০১৪ সালের নির্বচন ও পরবর্তী আন্দোলনে তারা ব্যার্থ হয়েছেন।  এবারের আন্দোলনে নাকি তারা সফল হবেন।

বুধবার সকালে বরিশালে মেরিন শিক্ষাণবীশদের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ-২০১৭ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সাথে তিনি এসব কথা বলেন।

নৌ মন্ত্রী শাজাহান খান আরো বলেন, বিএনপি কিভাবে আন্দোলনে সফল হবে আমরা জানি না। যে ৯২জন ড্রাইভার-হেলপার, ১৭জন পুলিশ সদস্য, ২জন বিজিবি জওয়ান, ২জন মুক্তিযোদ্ধা, ২জন ব্যাংকর্মকর্তা ও অসংখ্য শিশু ও নারী, রিক্সা শ্রমিক, গার্মেন্ট শ্রমিক, হকার্স, ফল ব্যবসায়ীকে পুড়িয়ে, কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে তাদের কাছে কী জবাব দিবে বিএনপি?

আমি প্রধান মন্ত্রীর কাছে বলবো যারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে ৭১সালের মতো গণহত্যা চালিয়েছে তাদের বিচারের ব্যবস্থা করতে। তাদের বিচার করা হলে অন্তত বাংলাদেশ আরো একবার পাপমুক্ত হবে। যেমন ৭১সালের খুনীদের বিচার করা হয়েছে। তেমনি করে ২০১৩, ২০১৪, ২০১৫ সালে যারা নিরীহ মানুষ খুন করেছে তাদেরও বিচার হতে হবে।

বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচন প্রসঙ্গে শাজাহান খান বলেন, বিশ্বের বহুদেশের সংসদ চালু রেখে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সংসদীয় গণতান্ত্রিক পদ্ধতিও তাই। যে সরকার ক্ষমতায় থাকবে সেই সরকার ক্ষমতা পরিচালানা করবে। আর নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে।

বিএনপি মিথ্যাবাদী দল উল্লেখ করে শাজাহান খান আরো বলেন, বিএনপি একটি রোগ ও বিভ্রান্তিতে ভুগছে। রোগটা হলো মিথ্যা বলার রোগ। রংপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন নিয়ে বিএপির মহাসচিব বললেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। নির্বাচন মেনে নেওয়া উচিৎ।

অপর দিকে তার যুগ্ম মহাসচিব বললেন, নির্বাচনে সুক্ষ্ম কারচুপি হয়েছে। আমরা নির্বাচন মানিনা। বিষয়টি কি দাঁড়ালো। একই দলের নেতাদেরে দুরকম কথাবার্তা কেন? কারণ নীতিগতভাবে তারা নিজেদের রাজনৈতিক দল হিসেবে পরিচয় দিতে পারে না। শুধু মাত্র খালেদা জিয়ার যে বিচার হচ্ছে আর তারেক রহমানের যে সাজা হয়েছে তার হাত থেকে রক্ষা করতে বিএনপির এ আন্দোলন। জনগনের জন্য ভালো কোন কাজের আন্দোলন নয়।

ঢাকা-বরিশাল নৌরুটের ডুব চর আর ড্রেজিং ব্যবস্থা নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নৌ-মন্ত্রী বলেন, ঢাকা-বরিশাল নৌরুটকে সচল রাখতে বিভিন্ন চ্যানেলে খণন কাজ চলছে। খণনের কারণে নদীতে পলির পরিমাণ কমেছে। বাংলাদেশের নদ-নদীতে বেশী পরিমাণ পলি জমার কারণে নদীর বিভিন্ন চ্যানেলে ডুবচরের সৃষ্টি হচ্ছে। যে সকল নদী থেকে নৌযান চলাচল করে সেগুলোকে সচল রাখাই আমাদের প্রধান কাজ। কিন্তু আমরা যদি ভাবি বিশাল নদীর পুরোটি খণন করা হবে তা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। আর পুরো নদী খণনের সক্ষমতাও আমাদের নেই। তাই নৌ-চলাচল নির্বিঘ্ন রাখার জন্য খণন কাজ করা হচ্ছে।

নদীর পলি নদীতে ফেলা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন যে, খণন করা বালু ও পলি চরে ফেলে আমরা জমি উদ্ধারের কাজ করে যাচ্ছি। ইতিমধ্যে বিভিন্ন স্থানে প্রায় সাড়ে ৫শত একার জমি উদ্ধার করা হয়েছে। এ কাজ আমাদের অব্যহত থাকবে।  ইতিমধ্যে প্রচুর ড্রেজার সংগ্রহ করা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ এর অধীনে ২০টি ড্রেজার নির্মাণ কাজ চলছে। নদীর নব্যতা ধরে রাখতে আর সমস্যা হবে না বলে তিনি জানান। ভবিষ্যতে নদী খনন কাজ সুন্দরভাবে পরিচালনা করা যাবে বলে তিনি জানান।

এর আগে তিনি মেরিন শিক্ষাণবীশদের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ-২০১৭ অনুষ্ঠানের বরিশাল ও মাদারীপুর মিলিয়ে ডেক ও ইঞ্জিন বিভাগের ২৭ জন শিক্ষার্থীর প্রধান অতিথি হিসেবে কুচকাওয়াজে অভিবাদন গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে সভাপত্ত্বি করেন ডেক ও ইঞ্জিন কর্মী প্রশিক্ষন কেন্দ্র ও শিপ পর্সোনেলট্রেনিং ইনিস্টিটিউড মাদাবীপুরের অধ্যক্ষ মো. আবদুল মতিন সরকার। অনুষ্ঠানের বক্তব্য রাখেন, বিআইডব্লিউটিএ চেয়ারম্যান কমান্ডার এম মোজ্জামেল হক, বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফারোজ, বরিশাল সদর উপজেলার চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু প্রমূখ।


মন্তব্য