kalerkantho


সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী

নির্বাচন কমিশনে আওয়ামী লীগের প্রস্তাব সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সহায়ক নয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৭ ১৭:২৮



নির্বাচন কমিশনে আওয়ামী লীগের প্রস্তাব সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সহায়ক নয়

নির্বাচন কমিশনে আওয়ামী লীগ যে ১১ দফা প্রস্তাব দিয়েছে, তা গণতন্ত্র ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য সহায়ক নয় উল্লেখ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, কীভাবে নির্বাচনকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়, কিভাবে নির্বাচন পর্যবেক্ষক ও গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়, কিভাবে ভোটের ফল পাল্টে দেওয়া যায়- সেই কৌশলই ওই সব প্রস্তাবনায় আছে, যা সম্পূর্ণরূপে জনমতের বিপরীত।

আজ শুক্রবার বিকালে রাজধানীর নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, আমরা মনে করি, স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য প্রধান বাধা। জনগণের দাবি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার। এর বিরোধিতা করে ক্ষমতাসীন দল আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে জনগণের কাছে কোনো শুভ বার্তা দেয়নি।

কমিশনের প্রতি আহ্বান রেখে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ তাদের প্রস্তাব দিয়েছে সেটা তাদের বিষয়। এখন নির্বাচন কমিশনের প্রধান দায়িত্ব অবাধ, সুষ্ঠু , স্বচ্ছ, গ্রহণযোগ্য, অংশগ্রহণমূলক ও প্রতিযোগিতাপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠান করা। কারণ নির্বাচন কমিশন সাংবিধানিকভাবে স্বাধীন স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। তার নিরপেক্ষ কাজ করতে কোনো বাধা নেই।

তিনি বলেন, আমরা দৃঢ়তার সাথে বলে দিতে চাই, জনগণের দাবিকে অগ্রাহ্য করে ২০১৪ সালের মতো নির্বাচনের আয়োজন চালালে তা হবে জনগণের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা; দেশে অন্ধকার নেমে আসবে। জনগণ চায় নির্বাচন কমিশন যেন আওয়ামী লীগের আয়ত্বশাসনের মধ্যে বন্দি হয়ে না পড়ে।

ভোটে ইভিএমের ব্যবহার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ইভিএম রাখতে চায়। কারণ এটাতে দূর থেকে ফলাফল ম্যানিপ্যুলেট করা যায়। ক্ষমতাসীনদের যে ম্যানিপ্যুলেশনের একটা অশুভ উদ্দেশ্য আছে- সেজন্য তারা ইভিএম রাখতে চায়।


মন্তব্য