kalerkantho


খালেদাকে ছাড়া এদেশে কোনও নির্বাচন হবে না : ফখরুল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ মার্চ, ২০১৭ ২১:৪০



খালেদাকে ছাড়া এদেশে কোনও নির্বাচন হবে না : ফখরুল

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ছাড়া বিএনপি জাতীয় নির্বাচনে অংশ নেবে না বলে বলে ঘোষণা দিয়েছেন দলটির সিনিয়র নেতারা। তারা বলেন, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে সে নির্বাচনে বিএনপি অংশ নেবে। খালেদা জিয়াকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশে কোনও নির্বাচন হবে না। ’ আজ বুধবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে ছাত্রদল আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বিএনপি নেতারা এ কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘সরকার সু-পরিকল্পিতভাবে দেশে বিভেদ সৃষ্টি করে ফল ভোগ করতে চায়। আমাদের জন্য এটা পরীক্ষা। এই বিভেদ কাটিয়ে একত্রিত হয়ে গণতন্ত্র রক্ষায় খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের ভোটে নিরপেক্ষ সরকার প্রতিষ্ঠা করতে চাই। খালেদা জিয়াকে ছাড়া এদেশে কোনও নির্বাচন হবে না। নির্বাচন হতে হলে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নিরপেক্ষ কমিশনের অধীনে নির্বাচন হতে হবে। ’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দেশের স্বাধীনতার পতাকা যেন অর্ধনমিত থাকে, সে জন্য তারেক রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। জিয়াউর রহমান হত্যা এবং তারেক রহমান গ্রেপ্তার একই সূত্রে গাঁথা।

ভিন্নভাবে দেখার কোনও কারণ নেই। ’

স্লোগানরত ছাত্রদলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘সরকারকে পতনের আন্দোলনের জন্য এই আবেগ এবং অনুভূতিকে জমা করে রাখতে হবে। বিভেদ তৈরি না করে ঐক্যবদ্ধভাবে রাজপথে আন্দোলন করতে হবে। ’

এ সময় দলের স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘এক-এগারোর সরকার খালেদা জিয়াকে মাইনাস করে বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার ষড়যন্ত্রের শিকার তারেক রহমান। যারা বিএনপিকে ভয় পায়, তারাই এই ষড়যন্ত্র করেছিল। যারা বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখতে চায় না, তারাই বিএনপির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে। ’

স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় জানান, ‘৫ জানুয়ারির মতো ভাগাভাগির অফার এলেও বিএনপি ভাগাভাগির নির্বাচনে যাবে না। ’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচন চাই। আমরা রাতের আঁধারে ভাগ বাটোয়ারার নির্বাচন চাই না। ’ 

একই সঙ্গে বিএনপির বিভিন্ন নেতার বক্তব্য প্রসঙ্গে গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, ‘আমাদের অনেক নেতা আছেন যারা আগে থেকেই খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠিয়ে দিয়েছেন, তার মামলা চালাচ্ছেন, তার জামিন নিয়ে নির্বাচন করছেন। ’ 

তিনি আরো বলেন, ‘যা বলেন একসঙ্গে বলেন। খালেদা জিয়া যা বলেন, তার কথা শুনে, সেভাবে কথা বলেন। অকারণে নেতাদের বিভ্রান্ত করবেন না, হতাশ করবেন না। ’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, গাজীপুর বিএনপির জেলা সভাপতি ফজলুল হক মিলন, বিএনপি নেতা শহিদুজ্জামান চৌধুরী এ্যানি, ছাত্রদলের সিনিয়র সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন।


মন্তব্য