kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিবিসি বাংলার খবর

আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন : কে হবেন সাধারণ সম্পাদক?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:০৮



আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন : কে হবেন সাধারণ সম্পাদক?

বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন চলছে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।
উদ্বোধনী অধিবেশনে দেয়া ভাষণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরাই তাঁর দলের প্রাণ।


আর সাধারণ সম্পাদকের রিপোর্ট উপস্থাপনের সময় দেয়া বক্তব্যে দলের বিদায়ী কমিটির সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন তার সময়ে দলে কোন ভাঙ্গন ধরেনি, কোন ইজম তৈরি হয়নি।
তিনি বলেন দলের সবাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কাজ করেছে এবং আওয়ামী লীগ এখন যে কোন সময়ের চেয়ে শক্তিশালী।
আওয়ামী লীগের এবারের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়েই নেতাকর্মীদের মধ্যে বেশি আলোচনা চলছে।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আবারো সাধারণ সম্পাদক থাকবেন নাকি নতুন কেউ আসবে - তা নিয়েই নেতাকর্মীদের কৌতুহল বেশি।
কক্সবাজার থেকে আসা কাউন্সিলর আশরাফুল ইসলাম বিবিসিকে বলেন সভানেত্রীই জানেন কে সাধারণ সম্পাদক হবেন আর কাউন্সিলররা ভালোবেসেই সভানেত্রীর হাতে এ দায়িত্ব অর্পণ করেন।
তরুণ কাউন্সিলররা অবশ্য বলেছেন দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বে তরুণদের বেশি জায়গা করে দেয়ার অনুরোধ করবেন তারা।
ময়মনসিংহ থেকে আসা কেএম আজিবুর রহমান বলেন সভানেত্রী ও সাধারণ সম্পাদক দুজন ই ঐতিহ্যবাহী পরিবার থেকেএসেছেন যেটা আওয়ামী লীগের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ ।
তিনি বলেন, "এর বাইরে আমরা চিন্তাও করতে পারিনা। আওয়ামী লীগের জন্য শেখ হাসিনা ও সৈয়দ আশরাফ অপরিহার্য্য"।
চট্রগ্রামের কাউন্সিলর শওকতআলী বলেন , "শেখ হাসিনা যাকেই দিবেন তাকেই আমরা হাত তুলে সমর্থন দিবো"।
এছাড়া উদ্বোধনী পর্বেই শুভেচ্ছা বক্তব্য দিয়েছেন আমন্ত্রিত বিদেশী রাজনীতিকরা।
এর আগে সকাল দশটার দিকে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।
সম্মেলনে যোগ দিতে বর্ণিল সাজে সজ্জিত সম্মেলনের ভেন্যু ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের দিকে সকাল থেকেই আসতে শুরু করে কাউন্সিলর ও ডেলিগেটরা।
প্রায় সাড়ে ছয় হাজার কাউন্সিলর আর প্রায় ত্রিশ হাজার ডেলিগেট সম্মেলনে উপস্থিত রয়েছেন।
সম্মেলনে যোগ দেয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিলো আওয়ামী লীগের প্রধান প্রতিপক্ষ বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে।
বিএনপি আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছে তবে খালেদা জিয়া বা মির্জা আলমগীর যাবেন কি-না অথবা তাদের পরিবর্তে দলের পক্ষে কারা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যাবেন সে সম্পর্কে পরিষ্কার কিছু বলেননি।
তবে বিএনপির সর্বশেষ সম্মেলনে আওয়ামী লীগকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও তাদের কেউ তাতে যোগ দেননি।
অবশ্য বিএনপি কিংবা আওয়ামী লীগ কোন দলের শীর্ষ নেতারই প্রতিপক্ষ দলের এ ধরণের অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার নজির বাংলাদেশে নেই।
এদিকে সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় যানবাহন চলাচলে নিয়ন্ত্রন আরোপ করেছে পুলিশ।


মন্তব্য