kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জনবিচ্ছিন্ন হয়ে বিএনপি এখন কুঁজোর দলে পরিণত হয়েছে : শাজাহান খান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৭:২৮



জনবিচ্ছিন্ন হয়ে বিএনপি এখন কুঁজোর দলে পরিণত হয়েছে : শাজাহান খান

নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, বিএনপির কার্যকলাপ জনগণের পছন্দ নয়। তারা এখন জনবিচ্ছিন্ন হয়ে কুঁজোর দলে পরিণত হয়েছে।

 
তিনি বলেন, ‘কুঁজো মানুষের যেমন মাঝে মাঝে চিৎ হয়ে শোয়ার স্বাদ হয়, তেমনি বিএনপিরও মাঝে মাঝে আন্দোলনের খায়েস জাগে। কিন্তু কুঁজো যেমন কোন দিনও চিৎ হয়ে শুইতে পারে না। তেমনি বিএনপির আন্দোলনে জনগণের সাড়া না থাকায় তাদের স্বাদও পূরণ হচ্ছে না। বিএনপি এখন কুঁজোর দলে পরিণত হয়ে গেছে। ’ 
মন্ত্রী আজ দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাগর-রুনী মিলনায়তনে ডিআরইউ আয়োজিত মিট দ্য রিপোটার্স অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।  
নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় খাতে সরকারের গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, উন্নয়ন ব্যাহত করতে বিএনপি-জামায়াত ২০১৩, ১৪ ও ১৫ সালে এমন কিছু নেই যা তারা করেনি। আন্দোলনের নামে তারা পত্রিকা অফিস থেকে শুরু করে রাস্তায় গাড়ি ধ্বংসসহ জীবন্ত মানুষকে পেট্রোল ঢেলে পুড়িয়ে হত্যা করেছে।  
স্বাধীনতাবিরোধী, যুদ্ধাপরাধী, জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের রক্ষা করতেই বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে আন্দোলনের নামে নাশকতা ও মানুষ হত্যা করা হয়েছে উল্লেখ করে শাজাহান খান বলেন, আন্দোলনের নামে মানুষ পুড়িয়ে যারা হত্যা করেছে, তাদের এবং তাদের নির্দেশদাতাদের অবশ্যই আইনের আওতায় এনে বিচার করা হবে।  
তিনি বলেন, বিএনপি জনগণের উপর নির্ভরশীল না হয়ে জামায়াত শিবিরের ক্যাডার, অর্থ এবং বিদেশীদের উপর নির্ভর হয়ে আন্দোলন করতে চেয়েছে বলেই তারা বৈতরনী পাড় হতে পারেনি।  
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে নদী দুষণরোধে ইতোমধ্যে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আগামী অর্থবছর থেকে ঢাকার আশপাশের নদীগুলোর দূষণরোধে কার্যক্রম শুরু করা হবে।  
‘সাপ মারতে হলে প্রথমেই মাথায় মারতে হয়’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘নদী ও নদীর পাড় দখল করে গড়ে উঠা রাঘব বোয়ালদের বড় বড় স্থাপনাগুলো চলতি বছরের মধ্যেই গুড়িয়ে দেয়া হবে। ’ 
তিনি বলেন, ঢাকার আশপাশের নদীর পাড়ে ইতোমধ্যে ২০ কিলোমিটার ‘ওয়াকওয়ে’ তৈরি করা হয়েছে। শিগগিরই আরো ৫০ কিলোমিটার ওয়াকওয়ের কাজ শুরু হবে। এসব ওয়াকওয়েগুলো নদী দখলরোধে সহায়ক হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি বলেন, নৌপথে চলাচলরত নৌযানগুলোর সঠিক তালিকা তৈরি করতে ইতোমধ্যে দেশের চারটি এলাকায় পাইলট প্রকল্প হিসেবে নৌশুমারীর কাজ শুরু হয়েছে। এই পাইলট প্রকল্পের কাজ শেষ হলে সারাদেশে এই কার্যক্রম চালানো হবে।  
মন্ত্রী বলেন, দেশের ২ হাজার কিলোমিটার নৌপথ এখন সাড়ে ৩ হাজার কিলোমিটারে এসে ঠেকেছে। তাই দেশের ৭শ’ নদীর হারিয়ে যাওয়া নৌরুটগুলো খননের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ১ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খনন করা হয়েছে।  
ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি জামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ।


মন্তব্য