kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে: খন্দকার মোশাররফ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৩৪



সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে: খন্দকার মোশাররফ

নেতা-কর্মীরা নিজেদের দায়িত্ব পালন করলে ছয় মাসের মধ্যে তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির নেতারা। তাঁরা এ-ও বলেছেন, তারেক রহমান এলে আরেকজন চলে যাবেন।

আজ শনিবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে তারেক রহমানের নবম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিএনপির নেতারা এসব কথা বলেন।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, সরকার তারেক রহমানকে ভয় পায়, কারণ তিনি বিএনপির ভবিষ্যৎ কান্ডারি। খালেদা জিয়াকে ভয় পায়, কারণ তিনি রাস্তায় নেমে ডাক দিলে রাস্তা সয়লাব হয়ে যাবে, গণ-অভ্যুত্থান সৃষ্টি হয়ে যেতে পারে। তাই এই ফ্যাসিবাদী সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য প্রতিপক্ষের ওপর অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘দেশের জাতীয়তাবাদী শক্তির নেতা-কর্মীরা আজকে যেভাবে স্বৈরাচারী-ফ্যাসিবাদী সরকারের হাতে নির্যাতিত হচ্ছে, এর থেকে দেশকে যদি উদ্ধার করতে না পারি, তাহলে যতই স্লোগান দিই, কাজ হবে না। যখন জাতীয়তাবাদী শক্তি খালেদার নেতৃত্বে স্বৈরাচারী সরকারের পতন ঘটিয়ে সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে একটি সরকার প্রতিষ্ঠা হবে, সেদিনই তারেক রহমান বীরের বেশে দেশে আসবেন। ’

স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, দল সুসংগঠিত না হলে এই বর্বর সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটানো যাবে না। অনেকে বলে বিএনপি অগোছালো, কথা পুরোপুরি ঠিক না। সরকারের অত্যাচারে বিএনপি সংগঠিত হতে পারছে না। এ সরকার রক্ত আর জেল ছাড়া কিছু বোঝে না।  

তিনি আরো বলেন, অত্যাচার করে বিএনপিকে সাময়িকভাবে দুর্বল করা যাবে, একেবারে নিঃশেষ করা যাবে না। বিএনপি আবার ঘুরে দাঁড়াবে, আবার ক্ষমতায় আসবে।

এর আগে দলের ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান বলেছিলেন, ‘আমরা যদি আমাদের দায়িত্ব পালন করতে পারি, তাহলে ছয় মাসের মধ্যে তারেক রহমানকে দেশে আনা সম্ভব। আর উনি (তারেক) আসলে আরেকজন চলে যাবেন। ’ তবে কে চলে যাবেন, তিনি তাঁর নাম উল্লেখ করেননি।

এ বক্তব্যের রেশ টেনে মির্জা আব্বাস বলেন, ‘শাহজাহান বলেছেন তারেক রহমান আসলে একজন পালিয়ে যাবেন। আমি বলি, পালাবেন কেন? বিচার মোকাবিলা করবেন। তবে আপনারা যেভাবে করছেন সেভাবে নয়, নিরপেক্ষ বিচার হবে। ’

এ ছাড়াও আলোচনা সভায় অন্য বিএনপি নেতারা বলেন, তারেক রহমান বিএনপির আগামী দিনের কান্ডারি, ভবিষ্যতের রাষ্ট্রনায়ক। এটা আওয়ামী লীগ বুঝেছে। সে জন্যই তারেক রহমানের বিরুদ্ধে এত মামলা, এত ষড়যন্ত্র।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হারুন আল রশীদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল হক, এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, আহমেদ আজম খান ও জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।


মন্তব্য