kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হন : খালেদা জিয়াকে নাসিম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৯:৩৮



নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হন : খালেদা জিয়াকে নাসিম

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে ২০১৯ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণের আহবান জানিয়েছেন।  
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া আপনি জঙ্গিবাদের পক্ষ নিয়ে ভুল করেছেন।

বিভ্রান্ত তরুণ যুবকের পক্ষে কথা না বলে, দল গোছান। নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত হন। বাংলাদেশে ২০১৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।  
নাসিম আজ বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় মানিকগঞ্জ জেলা সদরে কেন্দ্রীয় ১৪ দল আয়োজিত সমাবেশে এ কথা বলেন। জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে জাতীয় গণজাগরণ ও প্রতিরোধ সৃষ্টির উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের ধারাবাহিক কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।  
মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক অ্যাডভোকেট গোলাম মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক দেওয়ান সফিউল আরেফীন টুটুল, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালিক স্বপন এমপি, মমতাজ বেগম এমপি, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, সাম্যবাদী দলের দিলীপ বড়ুয়া, মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আব্দুস ছালামসহ স্থানীয় ১৪ দল এবং বিভিন্ন পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা বক্তব্য রাখেন।
সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, পবিত্র ধর্ম ইসলাম শান্তির ধর্ম। অথচ এই ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে কিছু মানুষকে বিপদগামী করা হয়েছে। তাদের আশ্বাস দেয়া হয়েছে বেহেস্তের হুর-পরি পাওয়ার। কোন সভ্য দেশে এটা কোন বিশ্বাসযোগ্য কথা হতে পারে না। এসব বিপদগামীদের ফিরিয়ে আনতে হবে।  
মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বঙ্গবন্ধুকে পাকিস্তান হাতের কাছে পেয়েও হত্যার সাহস পায়নি। অথচ এদেশের কয়েকজন বিশ্বাস ঘাতক তাকে হত্যা করে। আর এ হত্যাকাণ্ডের বিচার যাতে না হয় সেজন্য খুনি মোশতাক ইমডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে। আর দীর্ঘদিন ধরে জিয়াউর রহমান, এইচএম এরশাদ ও খালেদা জিয়া এই কালো আইন ধারণ করেন।


মন্তব্য