kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিদেশিরাও পড়তে আসে

নাদিম মজিদ   

১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



নেপালের কাঠমাণ্ডু থেকে এসেছেন রাহুল চৌধুরী। পড়ছেন ঢাকা সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজে।

বাংলাদেশের বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজের পড়াশোনার খরচ নেপাল বা ভারতের চেয়ে কম বলে জানান তিনি। পাশাপাশি বিদেশি শিক্ষার্থীদের থাকা-খাওয়ার প্রতি এখানকার কলেজগুলো আলাদা করে যত্ন নেয়।

বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের ডেপুটি রেজিস্ট্রার ডা. আরমান হোসেন জানান, বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলো মোট আসনের ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বিদেশি শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে পারে। গত বছর বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলোতে পড়তে এসেছে ছয় শতাধিক শিক্ষার্থী। এদের বেশির ভাগ আসে নেপাল, ভারত, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা থেকে। মধ্যপ্রাচ্য থেকেও অনেকে আসে।

বাংলাদেশের বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজগুলোতে ভর্তির সময় প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে স্বাস্থ্য ও পরিবার মন্ত্রণালয়কে দুই হাজার ডলার এককালীন দিতে হয়। রেজিস্ট্রেশনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়কে দিতে হয় এক হাজার ডলার করে। প্রতিবেশি দেশের তুলনায় বাংলাদেশে পড়াশোনার খরচ তুলনামূলকভাবে কম। বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মো মোয়াজ্জেম হোসেন জানান, ‘বাংলাদেশে মেডিক্যালে পড়াশোনার খরচ তুলনামূলকভাবে কম। এখানকার সংস্কৃতি ও খাদ্যাভ্যাসের সঙ্গে সার্কভুক্ত দেশগুলোর মিল রয়েছে। বাংলা ভাষা শেখাটা সহজ হওয়ায় বিদেশিরা শিখতে আগ্রহী হয়। আশপাশের মানুষের সঙ্গেও তারা যোগাযোগ করতে পারে। ’


মন্তব্য