kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ভ্রমণ

স্বল্প ছুটিতে অল্প দূরে

ঈদুল আজহায় ব্যস্ততা যেমন বেশি থাকে, তেমনি ছুটিটাও পাওয়া যায় কম। এর পরও এই অল্প সময়কে কাজে লাগিয়ে ঈদের অবসরটা কাটিয়ে আসতে পারেন কাছেপিঠের কোনো রিসোর্টে। এসব রিসোর্টের খোঁজখবর দিলেন মুস্তাফিজ মামুন

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



স্বল্প ছুটিতে অল্প দূরে

নক্ষত্রবাড়ি

মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট

ময়মনসিংহের ভালুকায় বিশাল এলাকাজুড়ে এই রিসোর্টে আছে নানা আয়োজন। আছে দ্বিতল ভিলার সঙ্গে চমৎকার সুইমিং পুল।

রিসোর্টের গাছে ঝোলানো আছে নানা ধরনের দোলনা। এ ছাড়া পানির ওপরও আছে কয়েকটি আধুনিক কটেজ, সবুজে মোড়া বিশাল মাঠ, মাঠের চারপাশে ফলের বাগান। পারিবারিক অবকাশযাপনের জন্য এখানে আছে ‘ফ্যামিলি ডে আউট’ নামের বিশেষ প্যাকেজ। সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত ছয়জনের এই প্যাকেজে ঢাকা থেকে রিসোর্টে যাতায়াত, সকাল ও দুপুরের খাবার, বিকেলের নাশতাসহ দিনভর এখানকার গ্রামীণ পরিবেশে প্রাণবন্ত সময় কাটানোর সুবিধা পাবেন। যোগাযোগ : ০১৬১৩৫৫৫৯৫৩, ০১৯১১৭৭১১৫৫।

 

 

জল ও জঙ্গলের কাব্য

টঙ্গীর পুবাইলে প্রকৃতির সান্নিধ্যে সময় কাটানোর জন্য আছে জল ও জঙ্গলের কাব্য। সবুজ প্রকৃতির মধ্যে ৯০ বিঘা জমির ওপর গড়ে ওঠা এই রিসোর্টে আছে বেশ কিছু কটেজ। আড্ডা দেওয়ার জন্য পানির ওপরে মাচান বানানো। বিলে ঘুরে বেড়ানোর জন্য আছে নৌকার সুব্যবস্থা। এখানকার প্রধান আকর্ষণ গ্রামীণ খাবারদাবার। যোগাযোগ : ০১৭৯২৯২৯৭২৭, ০১৯১৯৭৮২২৪৫।

 

নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রাজবাড়ী এলাকায় অবস্থিত নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট। প্রায় ২৫ বিঘা জায়গাজুড়ে তৈরি এই অবসর যাপন কেন্দ্রে আছে দিঘি, কৃত্রিম ঝরনা, সভাকক্ষ, সুইমিং পুলসহ নানা সুবিধা।

যোগাযোগ : ০২-৯৮৩৫১৭৩, ০১১৯২১৫০৫৬৩, ০১৭৭১৭৯৯৪১০।

 

ছুটি রিসোর্ট

ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান ঘেঁষে প্রায় ৫০ বিঘা জায়গাজুড়ে গাজীপুরের সুকুন্দি গ্রামে এই রিসোর্ট। গ্রামীণ আবহে অবকাশযাপনের উপযোগী করে তৈরি এই রিসোর্টটি। যোগাযোগ : ০১৭৭৭১১৪৪৮৮, ০১৭৭৭১১৪৪৯৯।

 

আনন্দ পার্ক রিসোর্ট

গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সফিপুরে প্রায় ৬০ বিঘা জায়গাজুড়ে আনন্দপার্ক রিসোর্ট। কটেজ ছাড়াও এখানে আছে বনভোজনের সব ধরনের ব্যবস্থা। এই রিসোর্টে আছে তিনটি স্বতন্ত্র বনভোজন কেন্দ্র, ছয়টি আধুনিক কটেজ, সুইমিং পুল ইত্যাদি।

যোগাযোগ : ০২-৯১২৫৭৭৮, ০১৭৪৩৮৩৮১২৩।

 

আরশিনগর হলিডে রিসোর্ট

গাজীপুরের ভাওয়াল এলাকায় অবস্থিত এই বনভোজন কেন্দ্র ও রিসোর্ট। ভাওয়াল জাতীয় উদ্যানের পাশে এই রিসোর্টে আছে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা। যোগাযোগ : ০২-৯৩৪৪৮৮৯, ০১৭৩২৩৫৪০০৭, ০১৯২৩১১৭০৫৬।

 

ড্রিম স্কয়ার

গাজীপুরের মাওনায় ১২০ বিঘা জমির ওপর নির্মিত এই রিসোর্ট। নানা প্রজাতির ফলদ, বনজ ও ঔষধি গাছের সমাহার রয়েছে জায়গাটিতে। গ্রামবাংলার নানা নিদর্শন দেখা যাবে এখানে। এসবের মধ্যে আছে তেলের ঘানি, গরুর খামার, মাছ চাষ, বায়োগ্যাস প্লান্ট ইত্যাদি।   যোগাযোগ : ০১৭৫৫৬০৩৩১০, ০১৭৫৫৬০৩৩১১।

 

অঙ্গনা

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় সূর্যনারায়ণপুর গ্রামে প্রায় ১৮ বিঘা জায়গাজুড়ে লালমাটির টিলাঘেরা এই রিসোর্ট। এখানে আছে খেলার মাঠ, বেশ কিছু বড় পুকুর। সুইমিং পুলও পাবেন। এ ছাড়া এখানকার ডিয়ার পার্কে আছে বেশ কিছু চিত্রা হরিণ। যোগাযোগ : ০১৭১১৫২৭৩৭৩, ০১৭১১১৮২৬২৬।

 

সোহাগপল্লী

গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার কালামপুরে এই রিসোর্টটি অবস্থিত। ১১ একর সবুজে ঘেরা জায়গাজুড়ে এই রিসোর্টের প্রধান আকর্ষণ কৃত্রিম লেকের ওপর ঝুলন্ত সাঁকো। লেকের স্বচ্ছ পানিতে নানা রকম মাছও আছে। আছে কয়েকটি ভালো মানের কটেজও। যোগাযোগ : ০১৭১২০৪৯৯০৩-৪, ০১৬১২০৪৯৯০৩।

 

সাবাহ গার্ডেন

গাজীপুরের বাঘার বাজারে প্রায় ৩৬ বিঘা জায়গাজুড়ে সাবাহ গার্ডেন রিসোর্ট। এই রিসোর্টে নানা গাছপালার মাঝে আছে মনীষীদের প্রতিকৃতি। এ ছাড়া একটি পাঠাগারও আছে। যোগাযোগ : 

০২-৫৫০৩৫১৯৪, ০১৭১১৮৭৩৮৯৫।

সি গাল

গাজীপুরের মাওনা এলাকার সিংগারদিঘি গ্রামে ৪২ বিঘা জায়গা নিয়ে তৈরি  রিসোর্টটি দেশি-বিদেশি গাছে ভরপুর। আছে ১৮টি কটেজ। যোগাযোগ : ০১৭৩২৮৬৬৮৬৬, ০১৭১১০৫৭৪৮৫।

 

সিজি ফিশিং রিসোর্ট

গাজীপুরের কালীগঞ্জে বড়নগর বাসস্টেশন থেকে এক কিলোমিটার দূরে এই রিসোর্টের মূল বৈশিষ্ট্য অতিথিরা এখানে মাছ ধরার সুযোগ পাবেন। এ ছাড়া ছোট ও বড়দের জন্য আছে আলাদা সুইমিং পুল। পুকুরে নৌ ভ্রমণও করতে পারবেন অতিথিরা। যোগাযোগ : ০১৭১৭৩৭৪৭০৪, ০১৮৩০১৬৬৫১১।

গুলবাগিচা

ঢাকা থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে গাজীপুর-কালিয়াকৈর সড়কের পাশে এবং চান্দনা চৌরাস্তা থেকে তিন কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত সফিপুর আনসার একাডেমি। এই একাডেমির কাছেই গুলবাগিচা পিকনিক ও শুটিং স্পট। ১৫ বিঘা জায়গার ওপর বিস্তৃত এই রিসোর্টে আছে পাঁচটি কটেজ। এখানকার ছোট লেকটিতে প্যাডেল বোট চালানোর সুযোগও আছে। দেখা মিলবে খাঁচাবদ্ধ নানা রকম পাখিরও।

যোগাযোগ : ০১৭১৬৬৩৩৫৬৬, ০১৭৩৩১৬৭৪১৩।

পিএসসিসি রিসোর্ট

গাজীপুরের ভাদুনে আছে পুবাইল সোশিও কালচারাল সেন্টার বা পিএসসিসি। বনভোজন ও অবকাশযাপনের নানা ব্যবস্থা আছে এখানে। সবুজে ঢাকা বিস্তৃত এলাকাজুড়ে এই রিসোর্টে আছে লেক, খেলার মাঠ ও খোলা প্রান্তর। যোগাযোগ: ০১৭৩০৭১০৩৪১, ০১৭০৩২৩৪৫৮৩।

 

জিন্দা পার্ক

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে ১৫০ একর  জায়গাজুড়ে আছে জিন্দা পার্ক। প্রায় ২৫০ প্রজাতির ১০ হাজারের বেশি গাছপালাসমৃদ্ধ এই পার্কটি। কয়েকটি জলাধারের আশপাশে এখানে আছে কিছু কটেজও। প্রাকৃতিক পরিবেশে বেড়ানোর জন্য এটি একটি ভালো জায়গা।

যোগাযোগ : ০১৭১৫৪৮৪১০০।

 

 

সোনারগাঁও রয়েল রিসোর্ট

সোনারগাঁও লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন সংলগ্ন খাসনগর দিঘির পাড়ে রাজকীয় স্থাপত্যশৈলীতে তৈরি করা হয়েছে এই রিসোর্ট। ইনডোর সুইমিং পুলসহ আধুনিক রিসোর্টের সব সুযোগ-সুবিধাই আছে এখানে। যোগাযোগ : ০১৭০৯৩৭১৬৮০, ০১৭০৯৩৭১৬৮১, ০১৭০৯৩৭১৬৮২।

 

এমজে হলিডে রিসোর্ট

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখানের ইছাপুরায় আধুনিক রিসোর্ট এটি। পারিবারিক অবকাশ যাপনের জন্য এটি একটি আদর্শ জায়গা। খেলার মাঠ, সুইমিং পুলসহ রিসোর্টটিতে নানা সুবিধা আছে। যোগাযোগ : ০১৯৩১৪১০০৭০, ০১৯৭৩৪৪৩০৭৭, ০১৭৭৫৬৪১২৮১।

 

মাওয়া রিসোর্ট

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের মাওয়া ঘাটের সামান্য দক্ষিণে মাওয়া-ভাগ্যকুল সড়কের কান্দিপাড়ায় এই রিসোর্টটি। ঢাকা থেকে এর দূরত্ব প্রায় ৩৮ কিলোমিটার। বিশাল আকারের একটি পুকুরের চারপাশে গড়ে তোলা হয়েছে এই রিসোর্ট। বেশ কিছু কটেজ আছে এখানে। পদ্মা নদী লাগোয়া এই রিসোর্ট থেকে পদ্মার ইলিশেরও স্বাদ নিতে পারবেন সহজেই। যোগাযোগ : ০১৭১১০৫৭৯৪৭, ০১৭৫৫৫৯২৫৮৫।

 

মেঘনা ভিলেজ রিসোর্ট

মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় মেঘনা-গোমতী সেতুর পূর্ব প্রান্তে প্রায় এক কিলোমিটার সামনে মেঘনা ভিলেজ রিসোর্ট। বনভোজন ও অবকাশযাপনের নানা সুবিধা আছে এখানে। এই রিসোর্টের মূল আকর্ষণ এখানকার নেপালি কটেজ। এসি-ননএসি দুই রকম কামরাই আছে কটেজে। সবুজে ঢাকা জায়গাটিতে বড় একটি খেলার মাঠও আছে। ছোট একটি চিড়িয়াখানায় আছে বিরল কিছু প্রাণীও। যোগাযোগ : ০১৫৫২৩০৮৮৪৯, ০২-৯৫৭০৭৮২।


মন্তব্য