kalerkantho


ডিসি বাদ দিয়ে ইসির জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের

রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:৩৯



রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট

জেলা প্রশাসকদের (ডিসি) বাদ দিয়ে ইসির জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন দাখিল করা হয়েছে। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য বিভাগীয় কমিশনার ও ডিসিদের বাদ দেওয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। পরিবর্তে ইসির জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে। 

বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের হাইকোর্ট বেঞ্চের অনুমতি নিয়ে বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট আবেদন দাখিল করা হয়।

ডিসিদের নিয়োগের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী আব্দুর রহমান এ রিট আবেদন করেছেন। রিট আবেদনকারীর আইনজীবী ব্যারিস্টার সাকিব মাহবুব বলেন, এ আবেদনটি শুনানির দিন ধার্যের জন্য রবিবার সংশ্লিষ্ট হাইকোর্ট বেঞ্চে মেনশন স্লিপ জমা দেওয়া হবে।

বিএনপিসহ জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতৃবৃন্দ শুরু থেকেই ডিসিদের রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগের সমালোচনা করে আসছেন। এ প্রেক্ষাপটে এ রিট আবেদন করা হলো। রিট আবেদনকারীর আইনজীবীর পিতা ব্যারিস্টার এ এম মাহবুবউদ্দিন খোকন নোয়াখালী থেকে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বচানে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

রিট আবেদনে বলা হয়েছে, সংবিধান অনুযায়ী ডিসিদের নির্বাচন পরিচালনাকারী হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার সুযোগ নেই। সংবিধানের ১২৬ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে ‘নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব পালনে সহায়তা করা সকল নির্বাহী কর্তৃপক্ষের কর্তব্য হইবে।’ এই অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ডিসিরা প্রজাতন্ত্রের নির্বাহী বিভাগে কর্মরত আছেন। এরা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীনে কাজ করে থাকেন। এরা সরাসরি নির্বাচন পরিচালনায় অংশ নিলে সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করতে পারে। সংবিধানের ১১৮(৪) নম্বর অনুচ্ছেদের কথা উল্লেখ করে রিট আবেদনে বলা হয়, সংবিধান অনুযায়ী দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন স্বাধীন থাকবে। একইসঙ্গে সংবিধাণ ও আইনের অধিনে থাকবে। এ কারণেই ডিসিদের পরিবর্তে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাদের কাছে নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব অর্পণ করা প্রয়োজন।



মন্তব্য